advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

অটোরিকশা থামিয়ে গৃহবধূকে ‘ধর্ষণচেষ্টা’

নোয়াখালী প্রতিনিধি
৩১ অক্টোবর ২০২০ ১৯:১৭ | আপডেট: ৩১ অক্টোবর ২০২০ ২০:১১
advertisement

নোয়াখালীর সেনবাগ উপজেলায় চলন্ত অটোরিকশা থামিয়ে এক গৃহবধূকে ধর্ষণেরচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। এ সময় অভিযুক্ত যুবকের হামলায় ওই গৃহবধূর বাবা ও রিকশারচালক আহত হয়েছেন।

গতকাল শুক্রবার সন্ধ্যায় নবীপুর ইউনিয়নের বড়চারীগাও এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এদিন রাতেই ভূক্তভোগীর পরিবারের পক্ষ থেকে সেনবাগ থানায় মামলা দায়ের করা হয়।

নির্যাতিতার পরিবার ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, ফেনী জেলার দাগনভূঞা উপজেলার ওই গৃহবধূ তার বাবাকে নিয়ে ব্যাটারিচালিত রিকশাযোগে নোয়াখালীর সেনবাগে নানার বাড়িতে যাচ্ছিলেন। সন্ধ্যায় রিকশাটি নবীপুর ইউনিয়নের বড়চারীগাও পৌঁছালে ওই গ্রামের লোকমান হোসেনের ছেলে বাবু (২৩) রিকশার গতিরোধ করার চেষ্টা করেন। চালক রিকশা না থামালে বাবু তাকে লাঠি দিয়ে আঘাত করে মাটিতে ফেলে দেন।

এ সময় ওই গৃহবধূকে রিকশা থেকে টেনেহিঁচড়ে নামানোর চেষ্টা করেন বাবু। এতে গৃহবধূর বাবা বাধা দিলে হামলাকারী তাকেও মারধর করে গৃহবধূকে ঘটনাস্থল থেকে একটু দূরে নিয়ে যান।

গৃহবধূর বলেন, ‘বাবু ও তার এক সহযোগীর সঙ্গে আরও একজন যুক্ত হয়। তারা তিনজন মিলে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে। এ সময় তার বাবা স্থানীয় চেয়ারম্যানসহ লোকজন নিয়ে আসলে অভিযুক্তরা পালিয়ে যায়।’

গৃহবধূর বাবা বলেন, ‘আহত অবস্থায় দৌঁড়ে স্থানীয় চৌরাস্তা এলাকায় গিয়ে ইউপি চেয়ারম্যান আমিন উল্যাহ বিএসসিকে বিষয়টি জানান। চেয়ারম্যান লোকজন নিয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছান।’

এ বিষয়ে সেনবাগ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুল বাতেন মৃধা ঘটনার সত্যতা স্বীকার করে বলেন, ‘অভিযুক্তদের গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’

advertisement
Evaly
advertisement