advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পদাতিক নাট্য সংসদের ‘পাকে বিপাকে’

বিনোদন প্রতিবেদক
১৯ নভেম্বর ২০২০ ১২:১২ | আপডেট: ১৯ নভেম্বর ২০২০ ১৫:১৪
‘পাকে বিপাকে’ নাটকের একটি দৃশ্য
advertisement

বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির পরীক্ষণ থিয়েটার হলে আগামীকাল শুক্রবার মঞ্চস্থ হবে পদাতিক নাট্য সংসদের ৪৩তম প্রযোজনা মনোজ মিত্রের নাটক ‘পাকে বিপাকে’। এটি নির্দেশনা দিয়েছেন সঞ্জীব কুমার দে। আর অভিনয়ে আছেন শাখাওয়াত হোসেন শিমুল, ইমরান খান, এখলাসুর প্রান্ত, জিনাত ইসলাম। গতকাল বুধবার ও আজ বৃহস্পতিবার একই মঞ্চে নাটকটির দুইটি কারিগরি মঞ্চায়ন হয়।

‘পাকে বিপাকে’র গল্পে দেখা যাবে, নিঝুম রাতে গ্রামের আল পথ ধরে কাপা গলায় গান গেয়ে এগিয়ে আসছে হাবলা জনার্দন। হঠাৎ তার আর্তচিৎকারে কেঁপে ওঠে বিলের চারধার। যেন বিষাক্ত সাপ দিয়েছে ছোবল। জনার্দন চিৎকার করে দৌঁড়ে ছুটে যায়, এক লন্ঠনের আলো বরাবর যেখানে মুরিঝুড়ি দিয়ে বসে আছে একজন। জনার্দন তার কাছে যতই সাহায্য চায় ফিরে তাকায় না সে বরং ইশারায় তাকে চলে যেতে বলে। হাবলা জনার্দন ইশারা বোঝে না, সে ক্ষতের জ্বালায় গ্রামের জোয়ার্দার নবকৃষ্ণ বাবুর কুকীর্তির বয়ান ক্রমাগত পেশ করতে থাকে। এই নবকৃষ্ণের জন্যই তিন বছর লালন-পালন করা গাই গরু আজ কসাইয়ের কাছে তুলে দিতে বাধ্য হয়েছে সে, নয়তো এই গরু নিজের বলে বাড়ি নিয়ে যেত নবকৃষ্ণ।

ক্ষতের জ্বালা বাড়ে কমে, বারবার সাহায্য চেয়েও না পেয়ে ক্ষেপে গিয়ে কাথা ধরে টান দেয় জনার্দন। ফলে উন্মোচিত হয় অবগুন্ঠনে থাকা নবকৃষ্ণ বাবু। যে কিনা নিজের জমিতে টহল দিচ্ছিলো বর্গাদারকে ফাঁকি দিয়ে ধান লুট করবে বলে। জনার্দন নাছোড়বান্দা, সে তার মহাজন কে গালাগাল করেছে তাই ক্ষমা না পাওয়া পর্যন্ত সে এই স্থান ছেড়ে যাবে না।

আবার ঐ দিকে বর্গাদার পান্তু দাস চলে এসে ধান লুট ঠেকিয়ে দেয় কি না সেই ভয়ে নবকৃষ্ণ অস্থির। কোন ক্রমে জনার্দন কে সরায় সে। আবার অপেক্কগা। পান্তুর ভাই ডালিম উপস্থিত হয়। এই ডালিন নবকৃষ্ণের হয়ে অনাবাদী জমিতে ফলানো ধান লুট করতে তার লোকজন সমেত। নবকৃষ্ণ ভাইয়ের বিরুদ্ধে ভাইকে দাড় করায়। অন্ধকার ফুড়ে বেড়িয়ে আসে দুর্বা, গ্রামের সবাই জানে সে হলো নবকৃষ্ণের পালিত রক্ষিতা। এভাবেই ঘটনাক্রম এগিয়ে যায় এবং জোতদার নবকৃষ্ণ পরাস্ত হয় হাবলা জনার্দনের কাছে।

advertisement
Evaly
advertisement