advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

শ্রীমঙ্গল পৌরসভা নির্বাচনের দাবিতে মানববন্ধন

মৌলভীবাজার প্রতিনিধি
২২ নভেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২২ নভেম্বর ২০২০ ০০:১২
শ্রীমঙ্গল পৌরসভা বর্ধিতকরণ ও নির্বাচনের দাবিতে মানবন্ধন এবং সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকালে শহরের চৌমুহনা চত্বরে এ কর্মসূচির আয়োজন করে স্থানীয় পৌরসভা বর্ধিতকরণ ও নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদ - আমাদের সময়
advertisement

মৌলভীবাজারের শ্রীমঙ্গলে পৌরসভা বর্ধিতকরণ ও নির্বাচনের দাবিতে মানবন্ধন ও সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল সকালে শহরের চৌমুহনা চত্বরে এ কর্মসূচির আয়োজন করে স্থানীয় পৌরসভা বর্ধিতকরণ ও নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদ। সমাবেশের কারণে ঢাকা-সিলেট ভায়া মৌলভীবাজারের আঞ্চলিক মহাসড়কে দেড় ঘণ্টা যানবাহন চলাচলে বিঘœ ঘটে।

শ্রীমঙ্গল পৌরসভা বর্ধিতকরণ ও নির্বাচন বাস্তবায়ন পরিষদের আহ্বায়ক মো. আছকির মিয়ার সভাপতিত্বে এবং যুগ্ম সদস্য সচিব তফাজ্জল হোসেন ফয়েজের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তব্য দেন মৌলভীবাজার জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অধ্যক্ষ সৈয়দ মনসুরুল হক, উপজেলা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি মো. ইউসুফ আলী, আবু সহিদ আবদুল্লাহ, ডা. হরিপদ রায়, যুগ্ম সম্পাদক এনাম হোসেন চৌধুরী মামুন, উপজেলা বিএনপির সাবেক সাধারণ সম্পাদক সরফরাজ আলী বাবুল, সদর ইউপি চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়, আশ্রিদ্রোণ ইউপি চেয়ারম্যান রনেন্দ্র প্রসাদ বর্ধন জহর, ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি এএসএম ইয়াহিয়া, সাবেক সাধারণ সম্পাদক কদর আলী, জেলা পরিষদের সদস্য বদরুজ্জামান সেলিম প্রমুখ।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, ২০১১ সালের ১৮ জানুয়ারি শ্রীমঙ্গল পৌরসভার নির্বাচন হয়েছিল। কিন্তু বর্ধিত এলাকা নিয়ে নির্বাচনের জন্য উচ্চ আদালতের নির্দেশনা থাকা সত্ত্বেও সীমানা জটিলতার অজুহাত দেখিয়ে মেয়াদ পূর্ণ হওয়ার প্রায় পাঁচ বছর অতিক্রান্ত হলেও নির্বাচন স্থগিত রয়েছে। বক্তারা আরও বলেন, ১৯৩৫ সালে ২ দশমিক ৫৮ বর্গকিলোমিটার আয়তন নিয়ে শ্রীমঙ্গল পৌরসভা প্রতিষ্ঠিত হয়। পৌরসভাটি ২০০২ সালের ৪ ফেব্রুয়ারি ‘খ’ শ্রেণি থেকে ‘ক’ শ্রেণিতে উন্নীত হয়। ১৯৮১ সালে বর্ধিত এলাকা নিয়ে নির্বাচনের গেজেট প্রকাশিত হলেও দীর্ঘ ৩৯ বছরেও তা বাস্তবায়ন হয়নি। ফলে শ্রীমঙ্গলের মানুষ পৌরসভার নাগরিক সুবিধা থেকে সম্পূর্ণভাবে বঞ্চিত হচ্ছে। সম্প্রসারিত এলাকার মানুষ বর্ধিত হারে ২০ বছর ধরে ভূমি উন্নয়ন কর ও অন্যান্য কর দিয়ে যাচ্ছে, অথচ পায় না নিম্নতম নাগরিক সুবিধা। পর্যটন নগরী শ্রীমঙ্গল আজ একটি অপরিচ্ছন্ন শহরে পরিণত হয়েছে। ‘এ’ ক্লাস পৌরসভার নাগরিক সুবিধা ‘সি’ ক্লাসের সুবিধাও নেই। গণতান্ত্রিক নিয়মের বাইরে গিয়ে নির্বাচনবিহীন পৌরসভার স্বেচ্ছাচারী কর্মকা-ে নাগরিক জীবন অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে।

এ ব্যাপারে শ্রীমঙ্গল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা নজরুল ইসলাম জানান, পৌরসভার সীমানা নির্ধারণ করে একটি ম্যাপ তৈরির কাজ চলছে। ম্যাপ তৈরির পর পরবর্তী ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

advertisement
Evaly
advertisement