advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বিয়ের ২২ দিনের মাথায় হাসপাতালে কাতরাচ্ছেন কুলছুম -যৌতুকের জন্য নির্যাতন

রানীনগর (নওগাঁ) প্রতিনিধি
২২ নভেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২২ নভেম্বর ২০২০ ০০:১৩
advertisement

নওগাঁর রানীনগরে হাত থেকে বিয়ের মেহেদির রঙ মুছতে না মুছতেই যৌতুকের জন্য নির্মম নির্যাতনের শিকার হয়েছেন উম্মে কুলছুম (১৮) নামে এক কলেজ পড়–য়া নববধূ। বিয়ের ২২ দিনের মাথায় শ্বশুর, শাশুড়ি ও পরিবারের অন্য সদস্যদের মারধরের ক্ষত নিয়ে বর্তমানে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের শয্যায় শুয়ে শুয়ে কাতরাচ্ছেন। হাসপাতালে ভর্তির প্রায় সপ্তাহ পার হলেও এখন পর্যন্ত স্বামী কিংবা ওই পরিবারের কোনো সদস্য কুলছুমকে দেখতে আসেননি এবং কোন খোঁজখবরও নেননি।

নববধূ কুলছুম জানান, তিনি রানীনগর শেরেবাংলা সরকারি মহাবিদ্যালয়ের এইচএসসি প্রথম বর্ষের শিক্ষার্থী। গত ২৫ অক্টোবর একই গ্রামের আক্তারের ছেলে রাসেলে সঙ্গে পারিবারিকভাবে তার বিয়ে হয়। বিয়ের সময় লেনদেনের কোনো কথা ছিল না। কিন্তু বিয়ের ১৫ দিন পার হতে না হতেই ফুফাশ্বশুর ময়েজের নেতৃত্বে স্বামী রাসেল, তার মা, বাবা ও বোন বাবার বাড়ি থেকে তাকে যৌতুক হিসেবে ৩ লাখ টাকা নিয়ে আসতে বলেন। এরপর থেকে তারা কুলছুমকে শারীরিক ও মানসিকভাবে নির্যাতন শুরু করেন। চলতি মাসের ১৬ তারিখে শ্বশুর, শাশুড়ি ও ননদ কুলছুমকে ওই টাকার ব্যবস্থা না করতে পারায় এলোপাতাড়িভাবে মারধর করতে থাকে। মারপিটের এক পর্যায়ে কুলছুম জ্ঞান হারিয়ে ফেলেন। এরপর খবর পেয়ে তার বাবা সামছুল ইসলাম মেয়েকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করান। কুলছুম বলেন, ‘আমার বাবা গরিব। আমার বাবা যৌতুকের এত টাকা কোথায় পাবে? তারা যদি সময় দিত তা হলে হয়তো বা আমার বাবা একটু চেষ্টা করতেন।’

কুলছুমের বাবা সামছুল ইসলাম বলেন, আমার মেয়েটিকে যেভাবে তারা মারধর করেছে আমি এর সুষ্ঠু বিচার চাই।

আমি বিষয়টি রানীনগর থানায় মৌখিকভাবে জানিয়েছি। পুলিশ বলেছে মেয়ে সুস্থ হওয়ার পর থানায় নিয়ে আসতে। তারা অনেক প্রভাবশালী। তাই আমি আইনের আশ্রয়ে যাওয়ার জন্য ভয় পাচ্ছি।

এই বিষয়ে কুলছুমের স্বামী রাসেলকে তার মুঠোফোনে একাধিকবার ফোন দিলে রিসিভ করে সাংবাদিক পরিচয় জেনে কোনো কথা বলেননি।

রানীনগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) জহুরুল ইসলাম বলেন, আমাকে বিষয়টি মেয়ের বাবা মৌখিকভাবে জানিয়েছেন। কিন্তু লিখিত অভিযোগ দেননি। লিখিতভাবে অভিযোগ পেলে তদন্ত সাপেক্ষে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

advertisement