advertisement
advertisement
advertisement
advertisement

পাকিস্তানকে ফ্রান্সের ‘না’

অনলাইন ডেস্ক
২২ নভেম্বর ২০২০ ২০:৩৬ | আপডেট: ২৩ নভেম্বর ২০২০ ০০:১৮
পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ও ফ্রান্সের প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ (ডানে)
advertisement

পাকিস্তানের সঙ্গে সম্পর্কের অবনতি ঘটেছে ফ্রান্সের। এমানুয়েল মাক্রোঁর সরকার স্পষ্ট জানিয়েছে যে পাকিস্তানকে কোনো রকম সাহায্য তারা করবে না। প্যারিস থেকে কেনা মিরাজ যুদ্ধবিমান, এয়ার ডিফেন্স সিস্টেম এবং অগস্টা ৯০বি ক্লাস সাবমেরিন আধুনিকীকরণ বা আরও উন্নত করতে ইসলামাবাদকে আর কোনোরকম সাহায্য করবে না ইউরোপের দেশটি।

শুধু তাই নয়, ফ্রান্স কাতারকে অনুরোধ জানিয়েছে তারা যেন পাকিস্তানি টেকনিশিয়ানদের ফাইটার জেটের ওপর কাজ করতে না দেয়। কারণ ফ্রান্সের আশঙ্কা টেকনিশিয়ানরা ফাইটার জেটের অনেক গুরুত্বপূর্ণ তথ্য ফাঁস করে দিতে পারে।

গত ২৯ অক্টোবর ভারতের পররাষ্ট্র সচিব হর্ষবর্ধন শ্রিংলার প্যারিস সফরে তাকে এসব কথা জানায় ফরাসি সরকার। সম্প্রতি ভারতের সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমসের প্রতিবেদনে এ খবর প্রকাশিত হয়েছে।

এর আগে, ফ্রান্সের পত্রিকা শার্লে এবদোয় মুহাম্মদ (সা.)-এর ছবি প্রকাশ নিয়ে যে বিতর্ক তৈরি হয়েছিল তাতে পাকিস্তান খোলাখুলি ফ্রান্স সরকারের বিরোধিতা করে। পাক প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান ফ্রান্সের বিরুদ্ধে আপত্তিজনক মন্তব্য করেন। একইসঙ্গে পাকিস্তানে যারা রাস্তায় নেমে ফ্রান্সের বিরুদ্ধে ক্ষোভ দেখিয়েছিল তাদেরকেও সমর্থন করেন ইমরান সরকার।

গত সেপ্টেম্বর মাসে পাকিস্তানি বংশোদ্ভূত ১৮ বছর বয়সী আলী হাসান শার্লি এবদো পত্রিকার আগের অফিসের বাইরে দুজনকে ছুরিকাঘাত করে। তিনি অবগত ছিলেন না যে পত্রিকাটির অফিস স্থানান্তরিত হয়েছে। তার বাবা, যিনি পাকিস্তানে থাকেন, একটি স্থানীয় নিউজ চ্যানেলকে বলেছিলেন যে তার ছেলে ‘দুর্দান্ত কাজ করেছে’ এবং তিনি এই আক্রমণে ‘খুব খুশি’।

পাকিস্তান কয়েক দশক ধরে ফ্রান্সের কাছ থেকে মিরাজ যুদ্ধবিমান কিনে আসছিল। ফরাসী সংস্থা ড্যাসল্ট এভিয়েশন দ্বারা নির্মিত প্রায় দেড়শটি মিরাজ যুদ্ধবিমান রয়েছে। এর মধ্যে কেবল অর্ধেক চলমান। নয়াদিল্লি ও প্যারিসের কূটনীতিকরা হিন্দুস্তান টাইমসকে বলেন, পাকিস্তান সম্প্রতি ফ্রান্সকে যুদ্ধবিমানগুলো আপগ্রেড করার জন্য অনুরোধ করেছিল। প্যারিসের একজন কূটনীতিক জানিয়েছেন, সেই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করা হয়েছে।

ফরাসি সরকারের মিরাজ যুদ্ধবিমান আপগ্রেড না করার সিদ্ধান্ত পাকিস্তান বিমানবাহিনীকে মারাত্মকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত করতে পারে। 

advertisement
Evaly
advertisement