advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি : মাঠের লড়াই শুরু

ক্রীড়া প্রতিবেদক
২৪ নভেম্বর ২০২০ ১৩:৪১ | আপডেট: ২৪ নভেম্বর ২০২০ ১৩:৫০
ছবি : আমাদের সময়
advertisement

সারা বিশ্বের মতো দেশেও করোনাভাইরাসের দ্বিতীয় ঢেউ শুরু হয়েছে। তবে থেমে নেই জনজীবন। ক্রীড়াঙ্গনও তার আপন গতিতে চলছে। করোনার প্রথম ধাক্কা সামলে দেশে প্রতিযোগীতামূলক ক্রিকেট শুরু হয়েছে গত অক্টোবরে। ক্রিকেটপ্রেমীরা অবশ্য ২০ ওভারের ক্রিকেটটাই এখন বেশি উপভোগ করেন! তারা চার-ছক্কার ফুলঝুরি দেখতে চান। ক্রিকেটপ্রেমীদের ক্ষুধা মেটাতে এবার টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট আয়োজন করেছে বিসিবি।

সেই অনুযায়ী, পাঁচ দল নিয়ে বিসিবি আয়োজন করে বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি টুর্নামেন্ট। পাঁচ দলের এই টুর্নামেন্ট মাঠে গড়াচ্ছে আজ মঙ্গলবার থেকে। মিরপুর শেরেবাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে আজ দুপুর দেড়টা থেকে শুরু হয় খেলা। প্রথম ম্যাচে মুখোমুখি বেক্সিমকো ঢাকা ও মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী। দিনের অপর ম্যাচে ফরচুন বরিশালের প্রতিপক্ষ জেমকন। দ্বিতীয় ম্যাচটি সন্ধ্যা সাড়ে ছয়টায় শুরু হবে। ম্যাচ সরাসরি দেখা যাবে টি-স্পোর্টসে।

করোনাভাইরাসের কারণে এ টুর্নামেন্টে বিদেশি কোনো ক্রিকেটার নেই। স্থানীয় ক্রিকেটাররাই ২২ গজের ময়দান মাতাবেন। বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপকে বাড়তি রঙ দিতে আয়োজকরা চেষ্টার কমতি রাখেননি। করোনার একালে প্লেয়ার্স ড্রাফটের মাধ্যমে দলগুলোকে খেলোয়াড় বেছে নেওয়ার সুযোগ দেওয়া হয়েছে। বেক্সিমকো ঢাকা, মিনিস্টার গ্রুপ রাজশাহী, গাজী গ্রুপ চট্টগ্রাম, ফরচুন বরিশাল, জেমকন খুলনা প্লেয়ার্স ড্রাফট থেকে তাদের পছন্দের খেলোয়াড়কে দলে ভিড়িয়েছে।

এবার খেলোয়াড়দের চারটি ক্যাটাগরিতে রাখা হয়েছিল। এ গ্রেডে থাকা মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ, সাকিব, তামিম, মোস্তাফিজের পারিশ্রমিক নির্ধারণ করা হয়েছে ১৫ লাখ টাকা। এ ছাড়া বি গ্রেডে ১০ লাখ, সি গ্রেডে ৬ লাখ ও ডি গ্রেডে থাকা ক্রিকেটারদের পারিশ্রমিক ৪ লাখ টাকা। টি-টোয়েন্টি কাপে দেশীয় কোচদের প্রতিই ফ্র্যাঞ্চাইজিগুলো আস্থা রেখেছে।

ঢাকার কোচের দায়িত্ব পালন করবেন খালেদ মাহমুদ সুজন। এ ছাড়া চট্টগ্রামের মোহাম্মদ সালাউদ্দিন, খুলনার মিজানুর রহমান বাবুল, রাজশাহীর সারওয়ার ইমরান ও বরিশালের প্রধান কোচ হিসেবে থাকছেন সোহেল ইসলাম। খেলোয়াড়দের করোনাভাইরাস পরীক্ষা করিয়ে টিম হোটেলে উঠানো হয়েছে। বিসিবি প্রেসিডেন্টস কাপের মতো বঙ্গবন্ধু টি-টোয়েন্টি কাপও বায়ো বাবল বা জৈব সুরক্ষা বলয়ে অনুষ্ঠিত হবে।

টুর্নামেন্টে থাকছে প্রযুক্তির ছোঁয়াও। শুধু ডিআরএসই নয়, করোনার কারণে মাঠে দর্শকদের প্রবেশের অনুমতি না থাকায় তাদের টিভির পর্দায় খেলা দেখতে হবে। তাদের খেলা উপভোগ্য করে তুলবে ড্রোনের ব্যবহার। অবশ্য ড্রোন থাকলেও স্পাইডার ক্যামেরার ব্যবহার থাকছে না। তবে উইকেটে ব্যবহার করা হবে এলইডি স্টাম্প। ফলে বল উইকেটে আঘাত হানলেই জ্বলে উঠবে স্টাম্পগুলো। অনেকটা বিপিএলের আদলে সর্বাধিক সংখ্যক ক্যামেরা দিয়ে সম্প্রচার কার্যক্রম চালাবে রিয়েল ইমপ্যাক্ট প্রোডাকশন। এসবের পাশাপাশি গ্রাফিক্স ও স্কোরকার্ডেও নতুনত্ব আসছে।

টুর্নামেন্টের মোট ম্যাচ ২৪টি। প্রাথমিক পর্বে প্রতিটা দল দুবার করে একে অন্যের মুখোমুখি হবে। টুর্নামেন্টের সব ম্যাচই অনুষ্ঠিত হবে মিরপুর শেরেবাংলা স্টেডিয়ামে। প্রাথমিক পর্ব শেষে টুর্নামেন্টের এলিমিনেটর ও প্রথম কোয়ালিফায়ার ম্যাচ ১৪ ডিসেম্বর। দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ার ১৫ ডিসেম্বর। শুক্রবার প্রথম ম্যাচ দুপুর ২টায়, পরের ম্যাচ সন্ধ্যা ৭টায়। ১৮ ডিসেম্বর অনুষ্ঠিত ফাইনালের মধ্য দিয়ে পর্দা নামবে টি-টোয়েন্টি কাপের। ফাইনালের জন্য রিজার্ভ ডে রাখা হয়েছে।

ঢাকা : মুশফিক (অধিনায়ক), রুবেল, তানজিদ তামিম, নাসুম, নাঈম শেখ, নাঈম হাসান, দিপু, আকবর, ইয়াসির, সাব্বির, রানা, মুক্তার, শফিকুল, আবু হায়দার, পিনাক, রবিউল।

রাজশাহী : সাইফউদ্দিন, মেহেদি, শান্ত (অধিনায়ক), সোহান, ফরহাদ, আশরাফুল, আরাফাত, ইবাদত, ফজলে, রনি তালুকদার, ইমন, রেজাউর, জাকের, রকিবুল, মুকিদুল, সানজামুল।

খুলনা : সাকিব, মাহমুদউল্লাহ (অধিনায়ক), ইমরুল, হাসান, আল-আমিন, বিজয়, শামীম, আরিফুল, শফিউল, শুভাগত, শহিদুল, রিশাদ, জাকির, অপু, সালমান, জহুরুল।

বরিশাল : তামিম (অধিনায়ক), আফিফ, তাসকিন, শুক্কুর, মিরাজ, রাহী, হৃদয়, তানভির, সুমন, সাইফ, আমিনুল, অঙ্কন, ইমন, রাব্বি, সায়েম, শুভ।

advertisement
Evaly
advertisement