advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

দেশে মৃত্যু বেড়েছে ৩০ শতাংশ

দুলাল হোসেন
২৯ নভেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ২৯ নভেম্বর ২০২০ ০০:০৫
advertisement

দেশে গত এক সপ্তাহের ব্যবধানে করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ ও মৃত্যু বেড়েছে। আগের সপ্তাহের থেকে এই সপ্তাহে করোনা রোগীর মৃত্যু বেড়েছে ২৯ দশমিক ৯৪ শতাংশ। একই সময়ে রোগী শনাক্ত ৩ দশমিক ৭৪ শতাংশ ও

সুস্থতা ৬ দশমিক ৫৭ শতাংশ বেড়েছে। গতকাল শনিবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে এ তথ্য পাওয়া গেছে।

এদিকে গত ২৪ ঘণ্টায় করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত ১ হাজার ৯০৮ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। এ নিয়ে দেশে করোনা রোগীর সংখ্যা দাঁড়াল ৪ লাখ ৬০ হাজার ৬১৯ জন। ২৪ ঘণ্টায় করোনায় মারা গেছেন ৩৬ জন এবং

সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২০৯ জন।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, দেশে চলতি বছরের ৮ মার্চ প্রথম তিনজন করোনা ভাইরাসের রোগী শনাক্ত হয়। এর পর যত দিন যেতে থাকে, ততই করোনার সংক্রমণ বাড়তে থাকে। একপর্যায়ে জুন-জুলাইয়ে করোনার সংক্রমণ সর্বোচ্চ চূড়ায় পৌঁছায়। ওই সময়ে (পিক টাইম) মাসে প্রতিদিন চার হাজারের বেশি রোগী শনাক্ত হয়েছিল এবং মারা গেছেন ৫০-৬০ জন। তখন রোগী শনাক্তের হার ছিল ২৪-২৫ শতাংশ।

এর পর সেপ্টেম্বর-অক্টোবরে করোনা সংক্রমণ কমতে শুরু করে। একপর্যায়ে সংক্রমণের হার ১০-১১ শতাংশে নেমে এসে নভেম্বর ফের বাড়তে থাকে।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, শনিবার করোনা সংক্রমণের ৪৮ সপ্তাহ (২২-২৮ নভেম্বর) পার হয়েছে। এই সপ্তাহে রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৪ হাজার ৭৮৫ জন এবং মারা গেছেন ১৭৭ জন। এর আগে ৪৭ সপ্তাহে (১৫-২১

নভেম্বর) রোগী শনাক্ত হয়েছে ১৫ হাজার ৩৩৮ জন এবং মারা গেছেন ২৩০ জন। অর্থাৎ এই সপ্তাহে আগের সপ্তাহের তুলনায় ৫৫৩ জন রোগী বেশি শনাক্ত হয়েছে এবং ৫৩ জন বেশি মারা গেছেন। হিসাব বলছে, ৪৭

সপ্তাহের তুলনায় ৪৮ সপ্তাহে করোনা রোগী বেশি শনাক্ত হয়েছে ৩ দশমিক ৭৪ শতাংশ এবং বেশি মারা গেছেন ২৯ দশমিক ৯৪ শতাংশ। একই সময়ে সুস্থতার হার বেড়েছে ৬ দশমিক ৫৭ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ হাজার ১২টি নমুনা পরীক্ষা করে ১ হাজার ৯০৮ জন রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। ২৪ ঘণ্টার নমুনা পরীক্ষায় রোগী শনাক্তের হার ১৩ দশমিক ৬২ শতাংশ।

স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্যমতে, ২৪ ঘণ্টায় মারা গেছেন ৩৬ জন। এর মধ্যে ২৮ জন পুরুষ এবং আটজন নারী। ২৪ ঘণ্টায় মৃতদের বয়স বিশ্লেষণে দেখা যায়, ৬০ বছরের বেশি বয়সী ২৩ জন, ৫১ থেকে ৬০ বছরের মধ্যে

১০ জন, ৪১ থেকে ৫০ বছরের মধ্যে একজন, ২১ থেকে ৩০ বছরের মধ্যে একজন এবং ১১ থেকে ২০ বছরের মধ্যে একজন রয়েছেন। মৃতদের বিভাগ বিশ্লেষণে দেখা যায়, ঢাকা বিভাগে ৩০ জন, চট্টগ্রামে একজন, খুলনায়

তিনজন, বরিশালে একজন ও রংপুরে একজন রয়েছেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় সুস্থ হয়েছেন ২ হাজার ২০৯ জন। এর মধ্যে ঢাকা বিভাগে ১ হাজার ৬৭১, চট্টগ্রাম বিভাগে ৪২৪, রংপুরে ৭, খুলনায় ১৬, বরিশালে ১৮, রাজশাহীতে ৪০, সিলেট ২৪ ও ময়মনসিংহে ৯

জন রয়েছেন।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, ২৪ ঘণ্টায় আইসোলেশনে যুক্ত হয়েছেন ১৭১ জন এবং ছাড়া পেয়েছেন ৮২ জন। বর্তমানে আইসোলেশনে আছেন ১২ হাজার ৮০৫ জন। ২৪ ঘণ্টায় কোয়ারেন্টিন করা হয়েছে ৬৫৭ জন এবং ছাড়া

পেয়েছেন ৬৪৭ জন। বর্তমানে কোয়ারেন্টিনে আছেন ৪০ হাজার ৮৮৩ জন।

advertisement
Evaly
advertisement