advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

মাসের শুরুতেই যুক্তরাজ্য জার্মানি টিকা পাচ্ছে

রুমানা রাখি, যুক্তরাজ্য
১ ডিসেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩০ নভেম্বর ২০২০ ২২:৫৬
advertisement

পশ্চিমা দেশগুলোর মধ্যে যুক্তরাজ্য প্রথম করোনা ভাইরাসের টিকা অনুমোদনের জন্য প্রস্তুত হয়েছে। আগামী কয়েকদিনের মধ্যেই এ অনুমোদনের প্রক্রিয় সম্পন্ন হবে। কর্তৃপক্ষ আশা করছে, আগামী ৭ ডিসেম্বর বায়োএনটেক ও ফাইজারের টিকা হাতে পাওয়া যেতে পারে। আর টিকা হাতে এলেই তা জনসাধারণের মধ্যে প্রয়োগ কার্যক্রম যথাযথভাবে পরিচালনার জন্য বাণিজ্যমন্ত্রী নাদিম জাহাওয়িকে টিকাবিষয়ক স্বাস্থ্যমন্ত্রী হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসন। এ জন্য আজ মঙ্গলবারের মধ্যেই জাতীয় স্বাস্থ্যসেবা (এনএইচএস) কর্তৃপক্ষকে প্রস্তুত থাকতে বলেছে দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ।

যুক্তরাজ্য ছাড়াও ইউরোপের আরেক গুরুত্বপর্ণ দেশ জার্মানিতেও টিকা দেওয়া শুরু হতে পারে বলে জানিয়েছেন দেশটির স্বাস্থ্যমন্ত্রী জেন্স স্প্যান। তিনি বলেছেন, ‘এই বছর ইউরোপে একটি টিকার অনুমোদন হবে বলে আশাবাদী হওয়ার কারণ রয়েছে।’ তিনি জার্মান সরকারকে টিকা দেওয়ার প্রস্তুতি হিসেবে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি থেকে টিকাদান কেন্দ্র প্রস্তুত রাখার কথা বলেছেন। দেশটি বিভিন্ন চুক্তি করে ৩০ কোটি ডোজের বেশি টিকা পাওয়ার

বিষয়টি নিশ্চিত করে রেখেছে। স্প্যান বলেছেন, তারা যে টিকার ফরমাশ দিয়ে রেখেছেন তা প্রয়োজনের চেয়ে বেশি। দরকার পড়লে অন্য দেশের সঙ্গে ভাগাভাগিও করা যাবে।

সম্প্রতি যুক্তরাজ্যের স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে জানানো হয়েছে, ফাইজার তাদের টিকা তৈরি করছে জার্মানির জৈব প্রযুক্তি সংস্থা বায়োএনটেকের সঙ্গে। এটি ৪৪ হাজার স্বেচ্ছাসেবীকে পরীক্ষামূলকভাবে দেওয়া হচ্ছে। ইতোমধ্যে ২৯ হাজার মানুষকে দেওয়া হয়ে গেছে। এর মধ্যে বয়স্ক, বিভিন্ন বর্ণ ও বিভিন্ন শারীরিক সমস্যাযুক্ত মানুষের ওপর প্রয়োগের বিষয়টি রয়েছে।

এদিকে টিকার গুণমান, সুরক্ষা এবং কার্যকারিতার প্রয়োজনীয় তথ্য নিশ্চিতের জন্য বায়োএনটেক ও ফাইজারের সর্বশেষ তথ্য মূল্যায়ন করছে যুক্তরাজ্যের স্বতন্ত্র নিয়ন্ত্রক সংস্থা। দেশটির স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে বলা হয়েছে, এরই মধ্যে ৪ কোটি ডোজ টিকার অর্ডার করেছে যুক্তরাজ্য। যা জনসংখ্যার এক তৃতীয়াংশের জন্য যথেষ্ট। আশা করা হচ্ছে, এর মধ্যে ১ কোটি ডোজ এখনই পাওয়া যাবে। পর্যায়ক্রমে বাকিগুলোও এসে পৌঁছবে। করোনাভীতি ও প্রায় অচল হয়ে পড়া অর্থনীতি থেকে মুক্তির প্রথম পদক্ষেপ হিসেবে এ টিকাকে বিবেচনা করা হচ্ছে। যুক্তরাজ্যের হাসপাতালগুলোকে জানানো হয়েছে, আগামী ৭ থেকে ৯ ডিসেম্বরের মধ্যে ফাইজার/বায়োএনটেকের টিকা পৌঁছতে পারে তাদের কাছে। হাসপাতালে পৌঁছানোর পাঁচ দিনের মধ্যে এ টিকা ব্যবহার করতে হবে। এ টিকা হিমাঙ্কের নিচে ৭৫ ডিগ্রি সেলসিয়াসে সংরক্ষণ করতে হয়। ফলে পথে যাতে টিকা নষ্ট না হয়, নজর থাকবে সেদিকেও।

করোনা জর্জরিত ইউরোপের আরেক দেশ স্পেনে আগামী জানুয়ারিতে টিকা আসার কথা জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী পেদ্রো সানচেজ। গত রবিবার তিনি বলেছেন, জানুয়ারি থেকে ব্যাপক টিকাদান কর্মসূচি পরিচালনা করবে তার দেশ। তিন মাসের মধ্যে দেশটির মোট জনসংখ্যার উল্লেখযোগ্য অংশের জন্য টিকা নিশ্চিত করা হবে।

advertisement
Evaly
advertisement