advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

গাইবান্ধায় চা দোকানদার, নরসিংদীতে কবিরাজ খুন

আমাদের সময় ডেস্ক
৫ ডিসেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৪ ডিসেম্বর ২০২০ ২৩:২৩
advertisement

গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে এক চা দোকানি ও নরসিংদীর শিবপুরে এক কবিরাজকে গলা কেটে খুন করেছে দুর্বৃত্তরা। সিরাজগঞ্জে খড়ের গাদায় পাওয়া গেছে নিখোঁজ এক কিশোরের লাশ। প্রতিনিধিদের পাঠানো খবর-

গোবিন্দগঞ্জ : গাইবান্ধার গোবিন্দগঞ্জে লিটন নামের এক চা দোকানির গলা কাটা লাশ গতকাল দুপুরে পৌর এলাকার বুজরুক বোয়ালিয়া হীরকপাড়া এলাকার কলাক্ষেত থেকে উদ্ধার করে পুলিশ। লিটন উপজেলার ফুলবাড়ী ইউনিয়নের ভাগদরিয়া গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে। বেলা ১১টার দিকে দিকে স্থানীয়রা লাশ দেখে থানায় খবর দেন। পুলিশ ও নিহতের পরিবারের ধারণা, লিটনকে বৃহস্পতিবার রাতে দোকান থেকে বাড়ি যাওয়ার পথে দুর্বৃত্তরা ডেকে নিয়ে কলাক্ষেতে ধারালো অস্ত্র দিয়ে গলা কেটে হত্যা করে ফেলে যায়। গোবিন্দগঞ্জ থানার ওসি (তদন্ত) আফজাল হোসেন ঘটনাস্থল পরিদর্শন করে জানান, লিটনের লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য গাইবান্ধা সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে। হত্যাকারীদের শনাক্ত ও হত্যার কারণ জানতে তদন্ত শুরু করেছে। পাশাপাশি মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

নরসিংদী : শিবপুর উপজেলায় সিদ্দিক ভূঁইয়া নামে এক গ্রাম্য কবিরাজের গলা কাটা লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার (৩ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলার পুটিয়া ইউনিয়নের ঘাসিরদিয়া এলাকার মধ্যপাড়া গ্রামে বাড়ির পাশের নির্জন স্থান থেকে লাশটি উদ্ধার করা হয়।

পুলিশ ও নিহতের স্বজন সূত্র জানান, বুধবার রাতে সিদ্দিক বাড়ি ফেরেননি। পরদিন সকালে বাড়ির কাছের একটি নির্জন জায়গায় তার গলা ও পায়ের রগ কাটা লাশ দেখে পুলিশ ও তার

বাড়িতে খবর দেন স্থানীয়রা।

ঘাসিরদিয়া এলাকার মধ্যপাড়া গ্রামে স্ত্রী, চার ছেলে ও দুই মেয়ে নিয়ে সিদ্দিক ভূঁইয়া বসবাস করতেন। তিন দিন আগে আরেকটি বিয়ে করে ওই বউ ঘরে তোলেন তিনি। এ নিয়ে পরিবারের সদস্যদের সঙ্গে তার দ্বন্দ্ব চলছিল।

শিবপুর মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোল্লা আজিজুর রহমান জানান, হত্যা রহস্য উদঘাটনের চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ। এ ব্যাপারে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে।

সিরাজগঞ্জ : সদর উপজেলার শিয়ালকোল ইউনিয়নে মো. শরিফুল ইসলাম (১৪) নামে এক কিশোরের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। শুক্রবার সকালে উপজেলার নতুন ফুলবাড়ী পূর্বপাড়ায় খড়ের গাদার মধ্যে থেকে এ মরদেহ উদ্ধার করা হয়। শরিফুল ইসলাম ওই গ্রামের ইলেকট্রিক মিস্ত্রি ওয়াসিম শেখের ছেলে। পরিবার সূত্র জানায়, শরিফুল বৃহস্পতিবার রাত থেকে নিখোঁজ ছিল। তাকে অনেক খোঁজাখুঁজি করেও পাওয়া যায়নি। শুক্রবার সকালে খড়ের গাদার মধ্যে তার মৃতদেহ দেখতে পান স্থানীয়রা। পুলিশ মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে। ময়নাতদন্তের পর মৃত্যুর কারণ জানা যাবে বলে জানিয়েছে পুলিশ।

advertisement
Evaly
advertisement