advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

রোহিঙ্গা ইস্যু
চীনের উদ্যোগে ত্রিপক্ষীয় বৈঠক ১৯ জানুয়ারি

কূটনৈতিক প্রতিবেদক
১৪ জানুয়ারি ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১৩ জানুয়ারি ২০২১ ২২:৩৫
advertisement

রোহিঙ্গা ইস্যুতে চীনের উদ্যোগে আগামী ১৯ জানুয়ারি ঢাকায় বাংলাদেশ, মিয়ানমার ও চীনের পররাষ্ট্র সচিব পর্যায়ের ত্রিপক্ষীয় বৈঠক অনুষ্ঠিত হবে। রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শুরু নিয়ে এ বৈঠকে আলোচনা হবে বলে জানা গেছে।

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ড. একে আবদুল মোমেন বলেন, রোহিঙ্গাদের ফেরত নেওয়ার বিষয়ে মিয়ানমারের সঙ্গে আলোচনায় এখন পর্যন্ত কোনো ফল আসেনি। ওদের ভেরিফিকেশনের জন্য আমরা সাড়ে আট লাখ সাবমিট করেছি। অনাকাক্সিক্ষতভাবে মিয়ানমার খুব কমসংখ্যককে ভেরিফাই (শনাক্ত) করেছে। তারা খুব সেøা।

মাত্র ৪২ হাজার ফাইনালি তারা শনাক্ত করেছে আট লাখ ৩০ হাজারের মধ্যে। এখানে আন্তরিকতার বড় অভাব। সবশেষ ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হয়েছিল গত বছরের ২০ জানুয়ারি। এর পরে কোভিড ও মিয়ানমারের নির্বাচনের অজুহাতে আর বৈঠক হয়নি।

মন্ত্রী বলেন, ৯ অথবা ১০ জানুয়ারি তারিখে সচিব পর্যায়ের ত্রিপক্ষীয় বৈঠক হওয়ার কথা ছিল। তারাই এ তারিখ বলেছিল এবং আমরা রাজি হই। কিন্তু পরে এটি তারা পিছিয়ে দেয়। পেছানোর একটি কারণ হলো চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী (ওয়াং ই) এখন মিয়ানমারে অবস্থান করছেন। সে কারণেই তারা বলছেন, ওনার সঙ্গে আলাপের পর এটি ১৯ তারিখ হবে। আশা করি ফলপ্রসূ কিছু হবে। এটি ঢাকায় হবে।

উল্লেখ্য, গত ২০১৭ সালের আগস্টে মিয়ানমার সেনাবাহিনীর গণহত্যা ও নিপীড়নের মুখে দেশটি থেকে কয়েক লাখ রোহিঙ্গা পালিয়ে বাংলাদেশে আশ্রয় নেয়। একই বছরের নভেম্বর মাসে কক্সবাজার থেকে এক লাখ রোহিঙ্গাকে ভাসানচরে সরিয়ে নেওয়ার লক্ষ্যে একটি প্রকল্প নেয় সরকার। আশ্রয়ণ-৩ নামে প্রকল্পটি বাস্তবায়নের দায়িত্ব দেওয়া হয় বাংলাদেশ নৌবাহিনীকে। কিন্তু ২০১৮ সালে যখন প্রথম তাদের স্থানান্তরের পরিকল্পনা করা হয়, তখন থেকেই সেখানে যাওয়ার ব্যাপারে আপত্তি জানিয়ে আসছিল রোহিঙ্গারা। নানা প্রতিকূলতার মুখে কিছুসংখ্যক রোহিঙ্গা পরিবারকে ভাসানচরে নেওয়া হলেও যেতে অনাগ্রহী ক্যাম্পে অবস্থানরত রোহিঙ্গারা।

advertisement
Evaly
advertisement