advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ফেব্রুয়ারি থেকে বেসরকারিভাবে টিকা বিক্রি করবে বেক্সিমকো

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ জানুয়ারি ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২১ ০১:১৮
advertisement

বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস লিমিটেড আগামী মাস অর্থাৎ ফেব্রুয়ারি থেকেই দেশে করোনা ভাইরাসের টিকা বিক্রি শুরু করতে পারে। এমন সম্ভাবনার কথা জানিয়েছেন প্রতিষ্ঠানটির চিফ অপারেটিং অফিসার রাব্বুর রেজা। তার বরাত দিয়ে এ সংক্রান্ত একটি প্রতিবেদন প্রকাশ করেছে রয়টার্স। এ ক্ষেত্রে প্রতি ডোজ টিকার দাম পড়বে প্রায় এক হাজার ১২৫ টাকা।

বার্তা সংস্থাটি জানায়, ভারতের সেরামের কাছ থেকে বেক্সিমকো মাসে ৫০ লাখ ডোজ করে টিকা কিনবে পরবর্তী ছয় মাস পর্যন্ত। প্রতিটি

টিকার মূল্য পড়বে ৪ ডলার করে। এভাবে মোট তিন কোটি ডোজ সরবরাহ করবে সেরাম, যা বাংলাদেশ সরকার নেবে।

রাব্বুর রেজা টেলিফোন সাক্ষাৎকারে রয়টার্সকে জানান, চলতি মাসের (জানুয়ারি) শেষ দিকে সরকারি ও বেসরকারি পর্যায়ে প্রয়োগের জন্য টিকা সরবরাহ শুরু করবে সেরাম ইনস্টিটিউট। তার প্রতিষ্ঠান সরকারি টিকাদান কর্মসূচির বাইরে বেসরকারিভাবে বাজারে বিল্ডির জন্য সেরাম থেকে প্রায় ৩০ লাখ ডোজ কোভিশিল্ড টিকা কিনছে। এর প্রতি ডোজের জন্য সেরামকে ৮ ডলার করে পরিশোধ করবে বেক্সিমকো। সরকারকে দেওয়ার জন্য সেরাম থেকে বেক্সিমকোর কেনা টিকার দামের দ্বিগুণ এটি।

রাব্বুর রেজা জানান, বেসরকারিভাবে তারা যে ৩০ লাখ ডোজ টিকা বিল্ডির পরিকল্পনা করছেন এর মধ্যে ১০ লাখ ডোজের জন্য এরই মধ্যে চুক্তিও সম্পন্ন হয়েছে। এখন আরও ২০ লাখ ডোজ সংগ্রহের পরিকল্পনা করছে তার প্রতিষ্ঠান। তিনি জানান, ২০২০ সালের আগস্টে সম্পাদিত চুক্তি অনুযায়ী, বাংলাদেশে সেরাম ইনস্টিটিউটের উৎপাদিত ভ্যাকসিনের ‘এক্সক্লুসিভ ডিস্টিবিউটর’ বেক্সিমকো ফার্মাসিউটিক্যালস। এর বাইরে সরকার চাইলে বেক্সিমকো অন্যান্য টিকার বিষয়েও আলোচনা এগিয়ে নেবে। জানা গেছে, সেরামের কাছ থেকে এক কোটি ১০ লাখ ডোজ টিকা সংগ্রহে চুক্তি করেছে ভারতের কেন্দ্রীয় সরকার। সে ক্ষেত্রে দাম রাখা হচ্ছে ডোজপ্রতি ২ দশমিক ৭৩ ডলার।

advertisement
Evaly
advertisement