advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

 ‘অনেক নৌকায় পা দেওয়া সরকার, যে কোনো সময় পড়ে যাবে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ জানুয়ারি ২০২১ ১৫:৩৭ | আপডেট: ১৪ জানুয়ারি ২০২১ ১৬:০১
বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। পুরোনো ছবি
advertisement

ক্ষমতা দখলে রাখতে সরকার অনেক নৌকায় পা দিয়ে বসে আছে এবং যে কোনো সময় সরকার পড়ে যেতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ও ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক নজরুল ইসলাম খান। আজ বুধবার ২০ দলীয় জোটের আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

নজরুল ইসলাম খান বলেন, ‘বাংলাদেশ এক অদ্ভুত রাষ্ট্র যে, দেশের সংবিধানে রাষ্ট্রধর্ম ইসলাম আছে, আবার ধর্মনিরপেক্ষতাও আছে। একই সংবিধানে গণতন্ত্রও আছে, সমাজতন্ত্রও আছে। একই সংবিধানে বাঙালি জাতীয়তাবাদও আছে, বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদও আছে। ক্ষমতায় থাকার জন্য সব ব্যাপারে কম্প্রমাইজ করা। বলে না যে, দুই নৌকায় পা দিলে ডুবে যেতে হয়। এই সরকার তো দুই নৌকায় নয়, অনেক নৌকায় পা দিয়ে বসে আছে আর কি। যেকোনো সময়ে পড়ে যাবে।’

তিনি বলেন, ‘একেবারে সাধারণ একটা প্রবাদ বলে যে, ‘‘সব ডিম এক ঝুড়িতে রাখতে নাই’’। অর্থাৎ কিকল্প রাখতে হয় সব ব্যাপারে। আমরা এই কোভিডে বিভিন্ন রকমের যে মাস্ক, পিপিই ইত্যাদি নিয়ে মানে কি নিয়ে কেলেঙ্কারি হয় নাই বাংলাদেশে। দেখেন চাল, ডাল, তেল, নুনই বলেন, ভোটই বলেন, তারপরে দেশে বৈদেশিক নীতি বলেন, শাসনতন্ত্র বলেন কী নিয়ে হয় নাই।’

আন্দোলনের প্রস্তুতি সম্পর্কে ২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক বলেন, ‘এজন্য আমাদের প্রস্তুতি লাগবে। ২০ দলে সেই নিয়ে আলোচনা হতে হবে। তার আগে আলোচনা হতে হবে আমি যখন অন্যের কথা বলব, তার আগে আমার নিজের কথা বলতে হবে আর কি। আমি নিজে আমার দায়িত্ব বা আমার ভূমিকা ঠিকমতো পালন করছি কিনা। আমরা যদি যার যার দায়িত্ব বা যার যার ভূমিকা ঠিক মতো পালন করি তাহলে আমাদের দায়িত্ব আর ভুমিকাও ঠিক মতো পালন হবে। আর যদি আমরা নিজেদের দায়িত্ব যার যার মতো না পালন করি তাহলে আমাদের দায়িত্বও ঠিক মতো পালন হবে না। আমি আশা করব যে, আগামী দিনে আমরা সবাই যার যার দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করে যে নীতি ও আদর্শের ওপর ভিত্তি করে আমরা এই জোটটা গঠন করেছি- গণতন্ত্র পুনঃপ্রতিষ্ঠার, যেটা মূল কথা সেটার জন্য আমাদের লড়াই করতে হবে।

তিনি  বলেন, ‘আপনাদের কাছে অনুরোধ থাকবে একটাই- সেটা হলো মানসিক প্রস্তুতি নিন। জনগনের আকাঙ্খা পুরণের দায়িত্ব আমাদের ওপর। আমরা যারা দেশকে ভালোবাসি, আমরা যারা গণতন্ত্রে বিশ্বাস করি, আমরা যারা জনগনের যে ক্ষমতা, সেই ক্ষমতার প্রতি আস্থাশীল, আমরা যারা ধর্মীয় মূল্যবোধে বিশ্বাস করি আমাদেরই উচিত ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাওয়া এবং এই লড়াই অংশগ্রহণের জন্য জনগন প্রস্তুত; তাদেরকে সঙ্গে নিয়ে এই লড়াইয়ে বিজয় লাভ করা। বিজয় ইনশাল্লাহ সুনিশ্চিত। শুধু যদি আমাদের দায়িত্ব যথাযথভাবে পালন করতে পারি। আর সেই দায়িত্ব পালনে ২০ দল অবশ্যই ঐক্যবদ্ধভাবে চেষ্টা করবে-আপনাদের এই আশ্বাস আমি দিচ্ছি।’

রাজধানীর সেগুন বাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটি (ডিআরইউ) মিলনায়তনে ২০ দলীয় জোটের শরীক জমিয়তে উলামায়ে ইসলামের সদ্য প্রয়াত মহাসচিব মাওলানা নূর হোসাইন কাসেমী ও মুসলিম লীগের চেয়ারম্যান এএইচএম কামারুজ্জামান খানের স্মরণে এই আলোচনা সভা হয়। জোট গঠনে গঠনে প্রয়াত দুই নেতার অবদানের কথা শ্রদ্ধার সাথে স্মরণ করেন নজরুল।

২০ দলীয় জোটের সমন্বয়ক বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানের সভাপতিত্বে ও লেবার পার্টির চেয়ারম্যান মোস্তাফিজুর রহমান ইরানের পরিচালনায় আলোচনা সভায় শীর্ষ নেতাদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- জামায়াতে ইসলামীর মিয়া মো. গোলাম পারোয়ার, জাতীয় পার্টির (কাজী জাফর) মোস্তফা জামাল হায়দার, কল্যাণ পার্টির সৈয়দ মুহাম্মদ ইবরাহিমসহ জোটের কেন্দ্রীয় নেতারা।

advertisement
Evaly
advertisement