advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

দুই মেয়েকে নিয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করলেন মা

সিরাজগঞ্জ ও শাহজাদপুর প্রতিনিধি
১৮ জানুয়ারি ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ১৭ জানুয়ারি ২০২১ ২৩:৩৫
advertisement

দ্বিতীয় স্ত্রীর সঙ্গে বেশ কিছু দিন ধরে নানা বিষয় নিয়ে পারিবারিক কলহ চলছিল লাল মিয়ার। এরই জের ধরে ঝগড়ার এক পর্যায়ে দুদিন আগে লাল মিয়া কাউকে কিছু না বলে বাড়ি থেকে উধাও হন। এই ক্ষোভ-দুঃখ ও অভিমানে প্রথমে বিষপাণ করেন স্ত্রী জাহানারা বেগম (৪৩)। পরে দুই মেয়েকেও বিষপাণ করান। জানতে পেরে প্রতিবেশীরা হাসপাতালে নিলে তিনজনকেই মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।

এদিকে মোবাইল ফোনে এ খবর শুনে অসুস্থ হয়ে পড়েন লাল মিয়াও। তাকে সিরাজগঞ্জের এনায়েতপুর খাঁজা ইউনুছ আলী মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

উপজেলার হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়নের ইসলামপুর ডায়া গ্রামে গতকাল রবিবার বিকাল ৩টার দিকে এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটে। মৃতরা হলেনÑ শাহজাদপুর উপজেলার ডায়া ইসলামপুর গ্রামের কাপড় ব্যবসায়ী লাল মিয়ার স্ত্রী জাহানারা (৪৩) ও দুই মেয়ে রাজিয়া (১৯) ও লাবনী (১০)।

শাহজাদপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহীদ মাহমুদ জানান, মা ও দুই মেয়ে বিষপানে আত্মহত্যা করেছে। সম্ভবত বিষ তাদের ঘরেই রাখা ছিল। খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। তিনজনের মরদেহ ময়নাতদন্তের জন্য সিরাজগঞ্জ ২৫০ শয্যার বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব জেনারেল হাসপাতালে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছে।

লাল মিয়ার ভাগ্নে ছানোয়ার হোসেন ও হাবিবুল্লাহনগর ইউনিয়ন পরিষদের ৫ নম্বর ওয়ার্ড সদস্য মো. আব্দুল হালিম জানান, পারিবারিক কলহের জের ধরে এই মর্মান্তিক ঘটনাটি ঘটেছে।

প্রতিবেশীরা আরও জানান, লাল মিয়ার বড় মেয়ে রাজিয়া বিবাহিত ও অন্তঃসত্ত্বা ছিলেন। চলতি বছর এসএসসি পরীক্ষার্থীও ছিলেন তিনি। ছোট মেয়ে লাবনী এবার পঞ্চম শ্রেণিতে উঠেছিল।

খবর পেয়ে শাহজাদপুর সার্কেল এএসপি হাসিবুল ইসলাম ও ওসি (তদন্ত) কমল কুমার দেবনাথ হাসপাতালে যান। একটি অপমৃত্যু মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানান তারা।

প্রত্যক্ষদর্শীরা আরও জানান, লাল মিয়ার প্রথম স্ত্রীর ছেলেকে নিয়ে দ্বিতীয় স্ত্রী জাহানারার সঙ্গে পারিবারিক কলহ চলে আসছিল। এরই জের ধরে জাহানারা গতকাল দুপুরে স্বামী লাল মিয়ার সঙ্গে ফোনে কথা বলেন। এর পর ঘরের মধ্যে থাকা বিষাক্ত কোনো পদার্থ পান করেন। পরে দুই মেয়েকেও পান করান। বেশ কিছুক্ষণ পরে বিষয়টি টের পেয়ে প্রতিবেশীরা তাদের উদ্ধার করে পোতাজিয়ায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যান। সেখানে কর্তব্যরত চিকিৎসক তিনজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

advertisement