advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

দেশকে নতজানু করে রাখার ষড়যন্ত্র

নিজস্ব প্রতিবেদক
২২ জানুয়ারি ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০২১ ২২:২০
advertisement

বাংলাদেশকে নতজানু করে রাখার ষড়যন্ত্র চলছে বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। গতকাল স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে দলের এক ওয়েবিনারে তিনি এই মন্তব্য করেন। মির্জা ফখরুল বলেন, ‘তারা (সরকার) আজকে অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশের মানুষকে তাদের অধিকার থেকে বঞ্চিত

করেছেন, বাংলাদেশের মানুষকে তাদের যে পরিচিতি আছে, সেখান থেকে দূরে ঠেলে দিতে চাইছেন। একটা ষড়যন্ত্র চলছেÑ বাংলাদেশ তার স্বাধীনতা, সার্বভৌমত্ব ভুলে গিয়ে অন্য জায়গায় নতজানু হয়ে থাকুকÑ এভাবে পরিকল্পনা চলছে। যে পরিকল্পনাকে আমাদের রুখে দিতে হবে।’

বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সেই পতাকাই ধারণ করেছেন, যে পতাকা স্বাধীনতার ঘোষক জিয়াউর রহমান তার হাতে তুলে দিয়েছিলেন। একইভাবে আমাদের নেতা তারেক রহমান সেই পতাকা তুলে ধরছেন। এই পতাকাই মুক্তির পতাকা। আসুন জিয়াউর রহমানের আদর্শ অনুসরণ করে দেশ ও দেশের মানুষকে বাঁচাতে সবাই ঐক্যবদ্ধভাবে এগিয়ে যাই।’

বিএনপির স্বাধীনতা সুবর্ণজয়ন্তী উদযাপনে গঠিত ‘সেমিনার ও সিম্পোজিয়াম কমিটির উদ্যোগে ‘স্বাধীনতার ঘোষক শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও বাংলাদেশী জাতীয়তাবাদের ধ্যান-ধারণা’ শীর্ষক এই ওয়েবিনার অনুষ্ঠিত হয়। এতে মূল প্রবন্ধ পাঠ করেন শিক্ষাবিদ ড. মাহবুব উল্লাহ।

মির্জা ফখরুল বলেন, ‘শহীদ প্রেসিডেন্ট জিয়াউর রহমান ও বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদÑ এই দুইটাকে আলাদা করে দেখার সুযোগ নেই। আপনি দেখবেন, আওয়ামী লীগ অত্যন্ত পরিকল্পিতভাবে বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ ধারণার বিরোধিতা করে। কিন্তু আজকে যখন পাসপোর্ট তৈরি করেছে নতুন করে, সেই পাসপোর্টেও বাংলাদেশি জাতীয়তাবাদ রাখতে বাধ্য হয়েছে। আসলে ওটাই সত্য। ওটাই সঠিক কথা।’

তিনি বলেন, ‘জিয়াউর রহমানের যেটা প্রাপ্য সেটা তাকে অবশ্যই দিতে হবে। তিনি দ্ব্যর্থহীন কণ্ঠে স্বাধীনতার ঘোষণা দিয়েছিলেন, তিনি বাংলাদেশের রণাঙ্গনে যুদ্ধ করে নেতৃত্ব দিয়েছিলেন, তার ডাকেই মানুষ যুদ্ধক্ষেত্রে নেমে এসেছিল।’

advertisement
Evaly
advertisement