advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

এমপি রতনের বিরুদ্ধে সিলেটে নাগরিকবন্ধন
‘জাতীয় সংসদের পবিত্রতা নষ্ট করছেন এমপি রতন’

সিলেট ব্যুরো
২২ জানুয়ারি ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ২১ জানুয়ারি ২০২১ ২৩:১৬
advertisement

খুন, গুম, চাঁদাবাজি ও দুর্নীতিতে অভিযুক্ত সুনামগঞ্জ-১ আসনের এমপি মোয়াজ্জেম হোসেন রতনের বিরুদ্ধে সিলেটে নাগরিকবন্ধন কর্মসূচি পালিত হয়েছে। সুনামগঞ্জের সুনই নদীর জলমহালে অন্যায়ভাবে আধিপত্য বিস্তার ও চাঁদাবাজির উদ্দেশে মৎসজীবীদের ওপর হামলা ও মৎসজীবী নেতাকে জবাই করে হত্যার প্রতিবাদে গতকাল বিকালে সিলেট কেন্দ্রীয় শহীদ মিনার প্রাঙ্গণে এ নাগরিকবন্ধনের আয়োজন করে সংক্ষুব্ধ নাগরিক আন্দোলন।

সংক্ষুব্ধ নাগরিক আন্দোলনের সমন্বয়ক আবদুল করিম কীমের সঞ্চালনায় নাগরিকবন্ধনে মুক্তিযোদ্ধা, সংস্কৃতিকর্মী, গণমাধ্যমকর্মী ও সিলেটের সচেতন নাগরিক সমাজ ছাড়াও সন্ত্রাসী হামলায় নিহত মৎস্যজীবী শ্যামচরণ বর্মণের ছেলে ও ভাই বক্তব্য রাখেন।

বক্তারা বলেন, কালো টাকার প্রভাবে হাওর এলাকাকে নরক বানিয়ে রেখেছেন সাংসদ মোয়াজ্জেম হোসেন রতন। তার অপকর্মের বিরুদ্ধে কেউ মুখ খুললেই তাকে গুম বা হত্যা করা হচ্ছে। আর এর নেতৃত্ব দিচ্ছেন খোদ এলাকার সাংসদ মোয়াজ্জেম হোসেন রতন ও তার ভাই ধর্মপাশা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হোসেন রোকন।

জলমহাল থেকে চাঁদা আদায় করতে না পেরে রোকনের নেতৃত্বে গত ৭ জানুয়ারি সুনই নদীর জলমহালে সশস্ত্র হামলা চালিয়ে মৎস্যখলায় অগ্নিসংযোগ এবং মৎসজীবী সমিতির সভাপতির বাবাকে গলা কেটে হত্যা করা হয়। এমন নৃশংস ঘটনার পরও কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়নি। সাংসদের বিরুদ্ধে মামলা নিতেও অপারগতা দেখাচ্ছে পুলিশ।

বক্তারা বলেন, দেশের অগ্রযাত্রার সময় এমন দুষ্কৃতকারী একজন সাংসদ সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করছে। তার বিরুদ্ধে, খুন, চাঁদাবাজি, দুর্নীতির একের পর এক অভিযোগ উঠলেও বাস্তবে কোনো ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না। এ রকম একজন ব্যক্তি আইনপ্রণেতা হয়ে সংসদে দাঁড়িয়ে জাতীয় সংসদের পবিত্রতা নষ্ট করছেন।

সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বক্তারা হামলা ও খুনের ঘটনায় সাংসদ ও তার ভাইয়ের বিরুদ্ধে বিচার বিভাগীয় তদন্ত করে এলাকার গরিব জনগণকে মুক্তভাবে বাঁচার সুযোগ করে দিতে সরকারের প্রতি অনুরোধ জানান।

advertisement