advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

উইঘুরদের সঙ্গে চীনের আচরণকে গণহত্যার স্বীকৃতি দিলো কানাডা

অনলাইন ডেস্ক
২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৩:২৬ | আপডেট: ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ১৩:৩২
চীনে নির্যাতিত উইঘুর মুসলমান। পুরোনো ছবি
advertisement

চীনের জিনজিয়াং প্রদেশে জাতিগত সংখ্যালঘু উইঘুর মুসলমানদের সঙ্গে চীন যে আচরণ করছে সেটিকে গণহত্যা হিসেবে স্বীকৃতি দিয়েছে কানাডার হাউস অব কমন্স। গতকাল সোমবার কানাডায় এ স্বীকৃতি দেওয়া হয়েছে বলে আজ মঙ্গলবার বার্তা সংস্থা রয়টার্স এ তথ্য জানিয়েছে। পার্লামেন্টের এই প্রস্তাব কানাডার লিবারেল প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডোর সরকারের ওপর চাপ সৃষ্টি করতে পারে বলে সংবাদ প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়েছে।

ওই প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, কানাডার হাউস অব কমন্সে বিরোধী কনজারভেটিভ পার্টির আনা এই নন-বাইন্ডিং মোশনটির পক্ষে ভোট পড়েছে ২৬৬টি। এর বিপক্ষে কোনো ভোট পড়েনি। কানাডার প্রধানমন্ত্রী জাস্টিন ট্রুডো ও তার মন্ত্রিসভার সদস্যরা ভোট দেওয়া থেকে বিরত ছিলেন। তবে ক্ষমতাসীন লিবারেল পার্টির পেছনের সারির নেতারা এর পক্ষে ভোট দিয়েছেন।

বিভিন্ন তথ্য-প্রমাণ ও উইঘুর জনগণের ওপর নির্যাতনের সংবাদ প্রতিবেদন তুলে ধরে কনজারভেটিভ পার্টির আইনপ্রণেতা মাইকেল চং বলেছেন, ‘আমরা এটি আর অবজ্ঞা করতে পারি না। আমাদের অবশ্যই বলতে হবে এটি একটি গণহত্যা।’

তবে প্রধানমন্ত্রী ট্রুডো ‘গণহত্যা’ শব্দটি ব্যবহার করতে নারাজ। তিনি মনে করেন, পশ্চিমের মিত্র দেশগুলোকে সঙ্গে নিয়ে চীনের মানবাধিকার পরিস্থিতি নিয়ে বড় পরিসরে কাজ করাটাই ভালো হবে।

এর আগে ডোনাল্ড ট্রাম্প ক্ষমতা ছাড়ার আগে উইঘুর মুসলিমদের ওপর চীনের নির্যাতন সম্পর্কে বলেছিলেন, সেখানে ‘গণহত্যা ও মানবতাবিরোধী অপরাধ’সংগঠিত হয়েছে। তবে কানাডায় চীনের রাষ্ট্রদূত কং পেইউ জিনজিয়াংয়ে গণহত্যার অভিযোগ অস্বীকার করেন।

advertisement
Evaly
advertisement