advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

মগর ইউপি নির্বাচনে আ.লীগের মনোনয়ন চান তিনবারের চেয়ারম্যান

নিজস্ব প্রতিবেদক
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ২০:৪৫ | আপডেট: ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ২০:৪৫
মোহাম্মদ আলী খান
advertisement

আওয়ামী লীগের জ্যেষ্ঠ নেতা আমির হোসেন আমুর বিশ্বস্ত ভ্যান গার্ড, ‘গরিবের বন্ধু’ খ্যাত তিনবারের সাবেক চেয়ারম্যান ও ঝালকাঠি জেলা পরিষদ সদস্য মোহাম্মদ আলী খান জেলার নলসিটি উপজেলার ২ নম্বর মগর ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে আওয়ামী লীগ থেকে মনোনয়ন প্রত্যাশী।  

মোহাম্মদ আলী খান বৃহত্তর মগর ইউনিয়ন পরিষদের (ইউপি) তিনবারের চেয়ারম্যান ছিলেন। তিনি মগর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে টানা ১৬ বছর দায়িত্ব পালন করেন। নলছিটি উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক সহসভাপতি ছিলেন তিনি। এ ছাড়া আমিরাবাদ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সাবেক সভাপতি হিসেবেও তিনি দায়িত্ব পালন করেন।

ঝালকাঠি জেলা পরিষদের সদস্য ছাড়াও সালেহা স্কুল অব উইসডম এর চীফ পেট্রন, মোহাম্মদ আলী খান এডুকেশন ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান ও দক্ষিণ খাওখির মেহেদিয়া দাখিল মাদ্রাসার সভাপতি হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন এই জনপ্রিয় নেতা।

স্থানীয়রা বলছেন, ঝালকাঠি জেলার অত্যন্ত জনপ্রিয় মোহাম্মদ আলী খান সৎ ও নিষ্ঠাবান রাজনৈতিক ব্যক্তিত্ব। তিনি বিভিন্ন প্রাথমিক বিদ্যালয়, মাধ্যমিক বিদ্যালয়, কলেজ ও মাদ্রাসায় বৈদ্যুতিক পাখা প্রদান; বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে ও ক্লাবে ক্রীড়া ও শিক্ষা সামগ্রী বিতরণ; গরিব ও মেধাবী শিক্ষার্থীদের শিক্ষা বৃত্তি প্রদান, শীতবস্ত্র বিতরণ, ফ্রি চিকিৎসাসেবা ও ওষুধ বিতরণ, রাস্তার ক্ষুধার্ত ও দুস্থ মানুষের কাছে খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দেন। যেকোনো সামাজিক ও রাজনৈতিক প্রয়োজনে তার সহায়তা পাওয়া যায়।

আওয়ামী লীগ থেকে ইউনিয়ন পরিষদে চেয়ারম্যান পদে মনোনয়ন প্রত্যাশী এই নেতা বলেন, ‘আমার জীবনের একমাত্র রাজনৈতিক উদ্দেশ্য হচ্ছে, আমার নেতা আলহাজ্ব আমির হোসেন আমু মহোদয়ের জীবনদর্শন নিয়ে পথচলা এবং আশীর্বাদপুষ্ট হওয়া। সে লক্ষ্যেই আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে ২ নম্বর মগর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন পেতে আগ্রহ প্রকাশ করেছি।’

মোহাম্মদ আলী খান আরও বলেন, ‘২০০১ সালে ক্ষমতায় এসে বিএনপি-জামায়াতের নেতাকর্মীরা আমার ওপর নির্মম হামলা, ৩৩টি মামলা, বাড়ি ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাট, ভাঙচুরসহ পরিবারকে বিভিন্নভাবে নির্যাতন করে। তবুও আমি আমার নিজ এলাকা ছাড়িনি।’ 

শুধুমাত্র নিজ জেলায় রাজনৈতিক ও সামাজিক কার্যক্রমে নিজেকে সীমাবদ্ধ রাখেননি মোহাম্মদ আলী খান। দলীয় নেতাকর্মীদের ভেদাভেদ ভুলে সকলকে সঙ্গে নিয়ে ইউনিয়ন, পৌরসভা, জেলা, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন ও জাতীয় নির্বাচনে বিশেষ ভূমিকা রাখেন তিনি।

advertisement