advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা ২৪ মে’র পর

গাজীপুর প্রতিনিধি
২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ২২:০১ | আপডেট: ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০২১ ০০:১৯
advertisement

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা আগামী ২৪ মে’র পরে অনুষ্ঠিত হবে। আজ বুধবার রাতে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, সরকারি সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ২৪ মে থেকে দেশের পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে শ্রেণিকক্ষে পাঠদান কার্যক্রম শুরু হবে। একইসঙ্গে ২৪ মে থেকে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের স্থগিত হয়ে যাওয়া পরীক্ষাও শুরু হবে। সেসব পরীক্ষার সংশোধিত সময়সূচি শিগগিরই প্রকাশ করবে বিশ্ববিদ্যালয়।

শিক্ষার্থীদের পরীক্ষার প্রস্তুতি নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। পাশাপাশি স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের অনলাইন ক্লাসে অংশ নিয়ে পড়াশোনা চালিয়ে যাওয়ার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

এর আগে গত সোমবার দুপুরে উচ্চশিক্ষা সংক্রান্ত এক প্রেস ব্রিফিংয়ে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সব পরীক্ষা বন্ধের কথা জানান। এরপর সেদিন রাতেই চলমান সব পরীক্ষা স্থগিত করে জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়।

সাত কলেজের পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ

এদিকে আজ বুধবার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) অধিভুক্ত সাত কলেজের পরীক্ষার নতুন রুটিন প্রকাশ হয়েছে। এতে ২০১৯ সালের স্নাতক চতুর্থ বর্ষের স্থগিত লিখিত পরীক্ষা ও ২০১৯ সালের স্নাতক তৃতীয় বর্ষের স্থগিত লিখিত পরীক্ষার সময়সূচি জানানো হয়েছে।

এর আগে শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনির সঙ্গে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও সাত কলেজের অধ্যক্ষদের এক ভার্চুয়াল সভা হয়। এতে শর্তসাপেক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় অধিভুক্ত সাতটি সরকারি কলেজের চলমান ও ঘোষিত পরীক্ষা নির্ধারিত সময়ে অনুষ্ঠিত হবে বলে সিদ্ধান্ত হয়। তবে পরীক্ষা চলাকালীন সময়ে হোস্টেল না খোলা এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে শিক্ষার্থীদের পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করতে হবে।

২০১৭ সালের ফেব্রুয়ারিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত হয় ঢাকা কলেজ, ইডেন মহিলা কলেজ, সরকারি শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, কবি নজরুল সরকারি কলেজ, বেগম বদরুন্নেসা সরকারি মহিলা কলেজ, মিরপুর সরকারি বাঙলা কলেজ ও সরকারি তিতুমীর কলেজ। এই কলেজগুলোতে মোট শিক্ষার্থী প্রায় দুই লাখ।

জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের ওপর চাপ কমিয়ে শিক্ষার মান বাড়াতে কলেজগুলোকে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত করা হলেও সমস্যা এখনো দূর হয়নি। শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, কলেজগুলোর বড় সমস্যা হলো ঠিক সময়ে পরীক্ষা না নেওয়া এবং দেরিতে ফল প্রকাশ করা। এই সমস্যা নিরসনের দাবিতে বিভিন্ন সময়ে আন্দোলনে নামেন শিক্ষার্থীরা।

গতকাল মঙ্গলবার সরকারি সাত কলেজের চলমান ২০১৯ সালের স্নাতক চতুর্থ বর্ষ, ২০১৯ সালের স্নাতক তৃতীয় বর্ষের লিখিত পরীক্ষা এবং ২০১৭ সালের মাস্টার্স শেষ পর্বের মৌখিক পরীক্ষা স্থগিত করা হয়। এরপরই ওই সিদ্ধান্তের প্রতিবাদে সড়কে নামেন শিক্ষার্থীরা।

বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাস মহামারি শুরুর পর ২০২০ সালের মার্চ থেকে দেশে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো বন্ধ আছে। পরে জুলাই থেকে অনলাইন, টেলিভিশন কিংবা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ব্যবহার করে বিকল্প শিক্ষাদানের উদ্যোগ নেওয়া হলেও তা খুব একটা সাফল্য পায়নি।

এর মধ্যে করোনাভাইরাস সংক্রমণের হার কমে আসা ও ভ্যাকসিন দেওয়া শুরুর প্রেক্ষাপটে কর্তৃপক্ষ স্কুলগুলো খুলে দেওয়ার বিষয়ে প্রাথমিক প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে। আগামী ২৪ মে দেশের সব পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস শুরু হবে এবং তার আগে ১৭ মে বিশ্ববিদ্যালয়ের হলগুলো খুলে দেওয়া হবে বলে জানিয়েছেন শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি।

advertisement