advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ইয়াবার টাকা না পেয়ে মাকে খুন করল মেয়ে
মাদক সরবরাহের পথ বন্ধ করুন

২ মার্চ ২০২১ ০০:০০
আপডেট: ১ মার্চ ২০২১ ২৩:৩০
advertisement

ইয়াবা কেনার টাকা না দেওয়ায় মাদকাসক্ত মেয়ের হাতে মায়ের খুন হওয়ার ঘটনাটি সত্যিই আমাদের ভাবিয়ে তুলেছে। বাঞ্ছারামপুরে এ ঘটনাটি ঘটে, পুলিশ অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছে। বলার অপেক্ষা রাখে না, মাদকের সর্বনাশা ছোবলে বহু তরুণ-তরুণীর জীবন নষ্ট হয়ে গেছে। মাদককে কেন্দ্র করে বেড়েছে অপরাধমূলক কর্মকা-। মাদক নিয়ে বিরোধের জেরে খুনোখুনি, সংঘর্ষ অবশ্য নতুন কিছু নয়। পত্রিকার পাতায় প্রায়ই এ ধরনের সংবাদ দেখা যায়। মাদকদ্রব্যের ব্যবসা করা নিষিদ্ধ হলেও আমাদের দেশে তা অবাধে চলছে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালে মাদকের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেয় সরকার। অনেক মাদককারবারি বন্দুকযুদ্ধে নিহতও হয়। করোনার কারণে গত বছর মাদকবিরোধী অভিযান অনেকটাই স্তিমিত হয়ে পড়ে। ছোটখাটো অভিযান সব সময়ই চলছে, তার পরও রাজধানী ঢাকা এবং বড় বড় শহর ছাড়াও মফস্বল শহরগুলোতে এখন মাদকদ্রব্যের রমরমা ব্যবসা চলছে।

ইয়াবা মূলত মিয়ানমার থেকে চোরাইপথে বাংলাদেশে আসে। বিশেষজ্ঞরা সব সময়ই বলছেন, মাদকের সর্বনাশা ছোবল থেকে সমাজ তথা তরুণ প্রজন্মকে রক্ষা করতে হলে এর উৎসগুলো অবশ্যই বন্ধ করতে হবে। কিন্তু সেটি কীভাবে সম্ভব? পাড়া-মহল্লায় খুচরা মাদক ব্যবসায়ীদের পাকড়াও করাই যথেষ্ট নয়। নেপথ্যের রাঘববোয়ালদের ধরতে হবে। মাদকদ্রব্যের অবৈধ ব্যবসা বন্ধ করতে না পারলে এ রকম খুনোখুনি হতেই থাকবে। সেজন্য সীমান্তপথে মাদক চোরাচালান ও দেশের ভেতরে মাদকদ্রব্যের কেনাবেচা অত্যন্ত কঠোর হাতে বন্ধ করতে হবে। এ ব্যাপারে বিজিবি, পুলিশ, মাদক নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের জবাবদিহি নিশ্চিত করা একান্ত জরুরি। কারণ তাদের একাংশের সহযোগিতা ছাড়া এই মাত্রায় মাদকের ব্যবসা চলা সম্ভব নয়।

মাদকাসক্তি দূর করার জন্য সামাজিক ও পারিবারিক প্রচেষ্টাও খুব জরুরি। প্রতিটি পরিবারের সন্তানদের দিকে দৃষ্টি রাখা প্রয়োজন; খেলাধুলা, সাংস্কৃতিক কর্মকা- ইত্যাদি বাড়ানোর উদ্যোগ নেওয়া প্রয়োজন।

advertisement