advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

মামুনুল হককে নিজ বাড়িতে দাওয়াত দিলেন নিক্সন চৌধুরী

ফরিদপুর প্রতিনিধি
৮ মার্চ ২০২১ ২২:৪২ | আপডেট: ৯ মার্চ ২০২১ ০১:০২
ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য নিক্সন চৌধুরী ও হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক
advertisement

উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় ও হুমকি-ধামকির পর এবার সম্পর্কের বরফ গলার ইঙ্গিত পাওয়া গেলো হেফাজতে ইসলামের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মামুনুল হক ও বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ও ফরিদপুর-৪ আসনের সংসদ সদস্য মজিবুর রহমান চৌধুরী ওরফে নিক্সন চৌধুরীর মধ্যে।

আজ সোমবার বিকেলে ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার ঘারুয়া সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে এক সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে নিক্সন চৌধুরী মাওলানা মামুনুল হককে উদ্দেশ করে বলেন, ‘আপনি যেহেতু বঙ্গবন্ধুকে সম্মান দিয়ে কথা বলেছেন, তাই আমিও আপনাকে সম্মান দিব। আপনি আমার বাড়িতে দাওয়াত খেতে চেয়েছেন, আমি আপনাকে আমার বাড়িতে আনতে পারলে নিজেকে ধন্য মনে করব। আপনার সাথে আমার ব্যক্তিগত কোনো বিরোধ নেই, নিজেদের মধ্যে যে ভুল বোঝাবুঝি হয়েছে, তা চলার পথে হয়েই থাকে। আপনার মতো আলেমের কাছে থেকে অনেক কিছু শেখার আছে।’

পূর্বের বিরোধের বিষয়ে নিক্সন চৌধুরী বলেন, ‘আপনি (মাওলানা মামুনুল হক) হেফাজতের একজন জাতীয় নেতা ও একজন মওলানা। আপনি আমার নেতা বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে সমালোচনা করেছিলেন, আমি আপনাকে নিয়ে কথা বলেছি। রাজনীতিতে চিরশত্রু বলতে কিছু নাই। আপনি ফরিদপুরে একটি ওয়াজে এসে বঙ্গবন্ধুকে সম্মান দিয়ে কথা বলেছেন, আমি আপনাকে তিন থানার জনগণ নিয়ে সম্মান দিব।’

নিক্সন চৌধুরীর বাড়িতে মাওলানা মামুনুল হকের দাওয়াত খেতে চাওয়া প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘আপনি একজন মাওলানা, যিনি ধর্ম শিক্ষা দিচ্ছেন। আপনিসহ যত মাওলানা রয়েছে আসেন আমি দাওয়াত গ্রহণে উৎসুক। আপনাকে আমার বাড়িতে একবার নয়, শতবার আনতে নিজেকে ধন্য মনে করব।’

ওই অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ আওয়ামী যুবলীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য নির্বাচিত হওয়ায় নিক্সন চৌধুরীকে ঘারুয়া ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান অধ্যাপক সফিউদ্দিন মোল্লার সভাপতিত্বে এক সংবর্ধনা দেওয়া হয়।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে আরও উপস্থিত ছিলেন রাজেন্দ্র কলেজের সাবেক ভিপি ও ছাত্রলীগের সভাপতি জিয়াউল হাসান মিঠু, উপজেলা চেয়ারম্যান এসএম হাবিবুর রহমান, কেন্দ্রীয় যুবলীগের অর্থবিষয়ক সম্পাদক মো. শাহাদাত হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি কাজি হেদায়েতুল্লাহ সাকলাইন,সাধারণ সম্পাদক ফাইজুর রহমান,সাংগঠনিক সম্পাদক সোবাহান মুন্সি,জেলা পরিষদের প্যানেল চেয়ারম্যান শেখ শাহিন, সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান মোশাররফ হোসেন প্রমূখ।

advertisement