advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

চিঠিপত্র
লৌহজং নদীকে বাঁচাতে চাই কার্যকর পদক্ষেপ

৬ এপ্রিল ২০২১ ০০:০০
আপডেট: ৬ এপ্রিল ২০২১ ০০:০৬
advertisement

এক সময়ের খরস্রােতা নদীর নাম লৌহজং। টাঙ্গাইল শহরের বুক চিরে বয়ে গেছে এ নদী। এক সময়ে এ নদী দিয়ে চলত বড় বড় নৌকা, ঘাটে নোঙর করত মালবাহী জাহাজ। এ অঞ্চলের ব্যবসা-বাণিজ্য প্রসারের ক্ষেত্রে লৌহজং নদীর ভূমিকা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। ঢাকা ও এর আশপাশের জেলাগুলো থেকে খুব সহজে এ নদীর মাধ্যমে টাঙ্গাইল জেলা শহরে প্রবেশ করা যেত। ফলে যাত্রী পরিবহন ও মালপত্র স্থানান্তরের আরামদায়ক পথ ছিল এ নদী। লৌহজং নদীর মাধ্যমেই এখানকার স্থানীয় মানুষের ভাগ্যের ব্যাপক উন্নয়ন ঘটেছিল। অর্থনৈতিক ও সামজিক উন্নয়নে এ নদীর ভূমিকা অনস্বীকার্য। আজকের আধুনিক টাঙ্গাইল শহরের গোড়াপত্তনও হয়েছিল এ লৌহজং নদী কেন্দ্র করেই। কিন্তু কালের বিবর্তনে শহরের চাপে নদীই যেন আজকে হারিয়ে যেতে বসেছে। বর্তমানে দখল-দূষণ, ভরাট আর কচুরিপানায় ভরপুর এ নদী। নদীর দুইপাশ দখল করে গড়ে তোলা হয়েছে বিভিন্ন অবৈধ স্থাপনা। ফলে নদী পরিণত হয়েছে সরু খালে। যথাযথ খননের অভাবে নদীর বুক ভরাট হয়ে যাচ্ছে। শিল্প ও আবাসিক বর্জ্য কোনো প্রকার প্রক্রিয়াকরণ ছাড়াই ফেলা হচ্ছে নদীতে। এতে দূষণের শিকার হচ্ছে এ নদী। ময়লা-আর্বজনার স্তূপে পরিণত হয়েছে নদীর অধিকাংশ জায়গা। এ নদীকে বাঁচাতে হলে অবশ্যই সবাইকে সচেতনতার পাশাপাশি একত্রে মিলেমিশে কাজ করতে হবে। প্রথমেই লৌহজং নদীকে অবৈধ দখলমুক্ত করতে হবে। দূষণের হাত থেকে রক্ষায় শিল্প ও মানুষের সৃষ্ট বর্জ্য প্রক্রিয়াকরণ করার ব্যবস্থা করতে হবে। নদী খননের মাধ্যমে এর ভরাট হওয়া রোধ করতে হবে। কচুরিপানা অপসারণের কাজ করতে হবে। আর সর্বশেষ কর্তৃপক্ষের কাছে আমার আকুল আবেদন থাকবে, লৌহজং নদীকে বাঁচাতে এখন থেকে কার্যকর পদক্ষেপ গ্রহণ করে এ নদীর প্রাণ ফিরিয়ে আনুন।

জাহিদুল ইসলাম, মধুপুর, টাঙ্গাইল

advertisement