advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

বরিশালে পিতা হত্যায় অভিযুক্ত তিন পুত্র

বরিশাল ব্যুরো
৯ এপ্রিল ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ৮ এপ্রিল ২০২১ ২১:৩৯
advertisement

আগৈলঝাড়ায় ব্যবসায়ী আবদুল মালেক হাওলাদারের মৃত্যু নিয়ে বিতর্ক তৈরি হয়েছে নিজ পরিবারেই। স্বাভাবিক মৃত্যু নয়; তাকে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ এনেছেন একমাত্র জামাতা আসাদুল হক পাইক ওরফে বুলু। মালেকের তিন পুত্রসহ সাতজনকে দায়ী করে তিনি আদালতে অভিযোগ দায়ের করেছেন। আদালতের নির্দেশে গত বুধবার কবর থেকে মরদেহ উত্তোলন করা হয়েছে।

স্বজনরা জানান, আগৈলঝাড়া উপজেলার ফুল্লশ্রী গ্রামের প্রবীণ ব্যবসায়ী আবদুল মালেক হাওলাদার গত ৮ মার্চ রাতে নিজ বাড়িতে মারা যান। পর দিন সকালে তাকে দাফন করা হয়।

এদিকে মালেক হাওলাদারের জামাতা আসাদুল হক পাইক ওরফে বুলু বিষয়টি নিয়ে আপত্তি করেন। শ্বশুরকে হত্যা করা হয়েছে অভিযোগ এনে তিনি গত ১৫ মার্চ বরিশাল অতিরিক্ত চিফ জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে নালিশি মামলা দায়ের করেন। আসামি করা হয় মালেক হাওলাদারের তিন ছেলে, পুত্রবধূসহ সাতজনকে। বিচারক আমিনুল ইসলাম আগৈলঝাড়া থানার ওসিকে অভিযোগটি এজাহার হিসেবে গণ্য করে তদন্তের নির্দেশ প্রদান করেন।

গত ১৭ মার্চ ওসি মো. গোলাম ছরোয়ার অভিযোগ হাতে পেয়ে মামলা হিসেবে থানায় রেকর্ড করেন।

আদালতের নির্দেশে বুধবার সকালে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট ও উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. আবুল হাশেমের উপস্থিতিতে আবদুল মালেক হাওলাদারের লাশ কবর থেকে উত্তোলন করা হয়। এ সময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা হাসপাতালের ডা. জাহেদ হোসেন, মামলার তদন্ত কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মাজহারুল ইসলামসহ সংশ্লিষ্টরা।

ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ বরিশাল শের-ই-বাংলা চিকিৎসা মহাবিদ্যালয় (শেবাচিম) হাসপাতালের মর্গে নেওয়া হয়েছে।

ওসি মো. গোলাম ছরোয়ার জানান, মালেক হাওলাদারের তিন পুত্র ও এক কন্যা রয়েছে। মেয়ে লাইলী পারভীন নিজের ইচ্ছায় বিয়ে করেন। এ জন্য ক্ষুব্ধ মালেক তাকে বাদ রেখে তিন ছেলের নামে সব সম্পত্তি লিখে দেন। এ পর্যায়ে জামাতা বুলু সম্পত্তি জোরপূর্বক তিন ছেলে লিখে নিয়েছেন বলে অভিযোগ তুলে আদালতে নালিশ করেন।

২০১৯ সালের ১৩ জানুয়ারি স্ত্রী জাহান আরা বেগম মারা যাওয়ার পর মালেক কন্যাকে কিছু সম্পত্তি লিখে দেওয়ার জন্য ছেলেদের অনুরোধ করেন। কিন্তু ছেলেরা তাদের বোনের নামে কোনো সম্পত্তি লিখে দেননি।

মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা ওসি (তদন্ত) মাজহারুল ইসলাম জানান, আদালতের নির্দেশে কবর থেকে লাশ উত্তোলন করে বরিশাল প্রেরণ করা হয়েছে। ময়নাতদন্ত শেষে মরদেহ তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হবে।

advertisement