advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

স্যালাইন নেই হাসপাতালে

পাথরঘাটা (বরগুনা) প্রতিনিধি
৯ এপ্রিল ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ৮ এপ্রিল ২০২১ ২১:৩৯
advertisement

বরগুনার পাথরঘাটায় দিন দিন বেড়েই চলেছে ডায়রিয়ার প্রকোপ। গত এক সপ্তাহে রেকর্ড সংখ্যক রোগী ভর্তি হয়েছে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে। নারী শিশুসহ প্রতিদিন গড়ে ২০ থেকে ২৫ জন নতুন রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে।

বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের চিকিৎসক নাইম আল মুরাদ। অপরদিকে হাসপাতালে কলেরাস্যালাইন না থাকায় দরিদ্র রোগীদের বিড়ম্বনার শিকার হতে হচ্ছে।

উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে গিয়ে রেজিস্ট্রার থেকে দেখা যায়, গতকাল সকাল সাতটা থেকে এগারো পর্যন্ত চার ঘণ্টায় ১৭ জন নতুন ডায়রিয়ার রোগী ভর্তি হয়েছে। এর সংখ্যা মুহূর্তেই বেড়ে চলেছে।

স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ঘুরে দেখা যায়, হাসপাতালে সিট খালি না থাকায় বারান্দা ও করিডরে রোগীরা চিকিৎসা নিচ্ছেন।

চিকিৎসা নিতে আসা চরলাঠিমারা গ্রামের ফরিদা বেগম জানান, গত চারদিন ধরে পাতলা পায়খানা ও বমি হচ্ছিল তার। স্থানীয়ভাবে চিকিৎসা নিয়ে সুস্থ না হওয়ায় সকালে হাসপাতালে ভর্তি হয়েছি।

পাথরঘাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সিনিয়র নার্স অর্পনা রানী দাস আমাদের সময়কে জানান, শতকরা ৭০ শতাংশ ডায়রিয়া আক্রান্ত রোগী ভর্তি হচ্ছে। গত এক মাসে সহস্রাধিক রোগী চিকিৎসা নিয়েছে হাসপাতালে।

এদিকে হাসপাতালে কলেরাস্যালাইন না থাকায় বিড়ম্বনা পোহাতে হচ্ছে চিকিৎসা নিতে আসা রোগীদের।

এ বিষয়ে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের কর্মকর্তা ডাক্তার আবুল ফাতাহ জানান, গত দশ দিন পূর্বে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে কলেরাস্যালাইনের জন্য চাহিদা দিয়েছি। আশা করি আগামী সপ্তাহে এক হাজার কলেরা স্যালাইন হাসপাতালে আসবে।

advertisement