advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

ফোর্বসের তথ্য মহামারীতে ধনীরা আরও ধনী হয়েছে

আমাদের সময় ডেস্ক
৯ এপ্রিল ২০২১ ০০:০০ | আপডেট: ৮ এপ্রিল ২০২১ ২২:৫৩
advertisement

করোনা মহামারীর এক বছরে বিশ্বের ধনকুবেররা আরও ধনী হয়েছে। বিশ্বের বিলিয়নিয়ারদের তালিকায় এবার যোগ হয়েছে আরও ৪৯৩টি নাম- সব মিলিয়ে বিলিয়নিয়ারের সংখ্যা দাঁড়িয়েছে ৬৬০ জনে। এদিক থেকে আবার শীর্ষে রয়েছে করোনা ভাইরাসের উৎসভূমি হিসেবে পরিচিত চীন। গত মঙ্গলবার ফোর্বস ম্যাগাজিনে প্রকাশিত ৩৫তম বার্ষিক বিলয়নিয়ারদের তালিকা থেকে এসব তথ্য জানা গেছে। খবর বিবিসি।

ফোর্বসের অতি ধনীদের এই ‘এলিট ক্লাবের’ মোট সম্পদের পরিমাণ বেড়েছে ৫ ট্রিলিয়ন। এর মধ্যে প্রায় ৮৬ শতাংশেরই মোট সম্পদের পরিমাণ গত বছরের চেয়ে বেড়েছে। অর্থাৎ প্রতি আটজনের মাঝে সাতজনেরই মোট সম্পদ বেড়েছে।

মহামারীতেও ধনীদের সম্পদ বেড়ে যাওয়া নিয়ে ইউনিভার্সিটি অব ক্যালিফোর্নিয়ার অর্থনীতিবিদ গ্যাব্রিয়েল জাকম্যান বলেন, যুক্তরাষ্ট্রের প্রথম ৪০০ ধনীর বর্তমান সম্পদ মার্কিন জিডিপির ১৮ শতাংশ, যা ২০১০ সালের চেয়ে দ্বিগুণ। টানা চতুর্থবারের মতো ফোর্বসের এ তালিকার শীর্ষে আছেন অ্যামাজনের প্রধান জেফ বেজোস। বেজোসের মোট সম্পদের পরিমাণ বর্তমানে ১৭৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। ১৫১ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মোট সম্পদ নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছেন টেসলার প্রধান ইলন মাস্ক।

এদিকে বেইজিংয়ে ৩৩ জন বিলিয়নিয়ার বেড়ে যাওয়ায় শহরটিতে এখন ধনকুবেরের সংখ্যা ১০০ জন। এর ফলে গত সাত বছর ধরে তালিকার শীর্ষে থাকা নিউইয়র্ক অল্পের জন্য পিছিয়ে পড়েছে। নিউইয়র্কে ৯৯ জন বিলিয়নেয়ার আছেন। চীনে করোনা পরিস্থিতি দ্রুত নিয়ন্ত্রণ, প্রযুক্তি কোম্পানিগুলোর উত্থান ও শেয়ারবাজার বেইজিংকে শীর্ষ স্থান অর্জনে সাহায্য করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। তবে বেইজিং নিউইয়র্কের চেয়ে বিলিয়নেয়ারের সংখ্যায় এগিয়ে থাকলেও যুক্তরাষ্ট্রের শহরটির ধনকুবেরদের মোট সম্পদের পরিমাণ চীনের রাজধানীর ধনকুবেরদের চেয়ে এখনো ৮০ বিলিয়ন ডলার বেশি।

ফোর্বস ম্যাগাজিনের দুই হাজার ৭৫৫ জনের এ তালিকায় এবার জায়গা করে নেন মার্কিন রিয়্যালিটি শো তারকা কিম কারডাশিয়ান ওয়েস্ট। গত অক্টোবরে মহামারীর মাঝেই তার মোট সম্পদের পরিমাণ ৭৮০ মিলিয়ন মার্কিন ডলার থেকে বেড়ে এক বিলিয়ন মার্কিন ডলারে গিয়ে ঠেকে। লকডাউনের মাঝে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে এ তারকা তার ব্র্যান্ডের আরামদায়ক ঘরের কাপড়ের বিষয়ে প্রচার চালালে তাতে ব্যাপকভাবে বেড়ে যায় কোম্পানির বিক্রয়। ভারতের মুকেশ আম্বানি সাড়ে ৮৪ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের মালিক হিসেবে এ তালিকার দশম স্থানে আছেন।

advertisement