advertisement
advertisement
advertisement
DBBL
advertisement
advertisement

সিলেটের সব থানার নিরাপত্তায় বসানো হলো মেশিনগান

নিজস্ব প্রতিবেদক
৮ এপ্রিল ২০২১ ২৩:৪০ | আপডেট: ৯ এপ্রিল ২০২১ ০০:৫৮
ছবি : সংগৃহীত
advertisement

সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ (এসএমপি) ও জেলার সব থানার নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। জেলা পুলিশের ১২টি থানা ও এসএমপির ছয়টি থানায় বাঙ্কার তৈরি করে সেখানে বসানো হয়েছে অত্যাধুনিক অটোমেটিক লাইট মেশিনগান (এলএমজি) পোস্ট। অনাকাঙ্ক্ষিত ঘটনা প্রতিরোধে এ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

জানা গেছে, সংশ্লিষ্ট ফাঁড়ি এবং তদন্তকেন্দ্র ও পুলিশের স্থাপনাগুলোতেও বাড়তি নিরাপত্তা জোরদার করা হয়েছে। পাশাপাশি বাড়ানো হয়েছে পুলিশ সদস্যের সংখ্যা। এসব চৌকিতে ২৪ ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করছে পুলিশ।

আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে কোতোয়ালি থানায় দেখা যায়, থানার গোলঘরে সিমেন্টের বস্তা দিয়ে তৈরি করা হয়েছে চৌকি। সেখানে দায়িত্বরত পুলিশের এক সদস্য এলএমজি তাক করে বসে আছেন। এই থানায় পুলিশের অতিরিক্ত ৫০ জন সদস্য মোতায়েন করা হয়েছে। ঝুঁকি বিবেচনা করে কিছু থানার ছাদে ও সামনের ফাঁকা স্থানে এ ধরনের চৌকি দেখা গেছে।

এসএমপির মুখপাত্র অতিরিক্ত উপকমিশনার বি এম আশরাফ উল্যাহ জানান, পুলিশ সদর দপ্তরের নির্দেশনায় দেশব্যাপী বাড়তি নিরাপত্তার অংশ হিসেবে মহানগর পুলিশের আওতাধীন সব থানা, ফাঁড়ি, তদন্তকেন্দ্র ও স্থাপনাগুলোতে এলএমজি পোস্ট স্থাপন করা হয়েছে।

তিনি জানান, বুধবার রাত থেকে এই পোস্টগুলো বসানোর কাজ শুরু হয়। ইতোমধ্যে সব স্থাপনায় এলএমজি পোস্ট বসানোর কাজ শেষ হয়েছে।

বি এম আশরাফ উল্যাহ আরও জানান, এটি একটি স্বয়ংক্রিয় (অটোমেটিক) অত্যাধুনিক আগ্নেয়াস্ত্র। একটি এলএমজির ড্রাম ম্যাগজিনে ১৫০ রাউন্ড গুলি রয়েছে। এটি থেকে একসঙ্গে ১৫০ রাউন্ড গুলি ছোড়া যায়। অস্ত্রগুলো পরিচালনার জন্য দক্ষ পুলিশ সদস্যদেরও পদায়ন করা হয়েছে।

পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, হেফাজতে ইসলামের হরতালসহ নানা ইস্যুতে পুলিশি স্থাপনায় হামলার ঘটনা ঘটছে। ৩ এপ্রিল নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে রয়্যাল রিসোর্টে হেফাজতে ইসলামের নেতা মামুনুল হক অবরুদ্ধ হওয়ার ঘটনার পর রাতে সিলেটের সুনামগঞ্জের ছাতক থানায় হামলার ঘটনা ঘটে। গোয়েন্দা তথ্যে এ রকম সহিংসতা সিলেটে আরও ঘটার শঙ্কা থেকে বাড়তি নিরাপত্তা নেওয়া হয়েছে।

জেলা পুলিশের মুখপাত্র অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (গণমাধ্যম) লৎফুর রহমান বিশেষ এই নিরাপত্তাব্যবস্থা অভ্যন্তরীণ বলে জানিয়েছেন। তিনি জানান, জেলা পুলিশের অধীন সব থানায় একটি করে নিরাপত্তাচৌকি প্রস্তুত করা হয়েছে এবং সেখানে পালাক্রমে সার্বক্ষণিক একজন করে পুলিশ কর্তব্যরত থাকার সিদ্ধান্ত হয়েছে। গতকাল বুধবার দুপুর থেকে সিদ্ধান্ত কার্যকর হয়েছে।

advertisement