নবীগঞ্জের ইউএনওসহ দুই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মুক্তিযোদ্ধার মামলা

হবিগঞ্জ প্রতিনিধি
২৩ মার্চ ২০১৯ ০০:০০ | আপডেট: ২৩ মার্চ ২০১৯ ০৯:২০

ক্ষমতার অপব্যবহার করে সম্মানী ভাতা স্থগিত করার অভিযোগ এনে নবীগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. তৌহিদ বিন হাসানসহ দুজনের বিরুদ্ধে আদালতে মামলা হয়েছে। সহকারী জজ আদালতে মামলাটি দায়ের করেন ওই উপজেলার সাতাইহাল গ্রামের মুক্তিযোদ্ধা নূরউদ্দিন আহমেদ বীরপ্রতীক। মামলার অপর বিবাদী নবীগঞ্জ উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মো. আবদুর নূর।

গত মঙ্গলবার মামলাটি করা হয়। মামলা সূত্র জানায়, একাত্তরে সম্মুখ যোদ্ধা হিসেবে কৃতিত্ব রাখায় নূরউদ্দিন আহমেদকে বীরপ্রতীক খেতাব দেয় রাষ্ট্র। একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে সমাজসেবা অধিদপ্তর এবং বীরপ্রতীক খেতাবপ্রাপ্ত হওয়ায় তিনি মুক্তিযোদ্ধা কল্যাণ ট্রাস্ট থেকে নিয়মিত সম্মানী ভাতা পেয়ে আসছেন।

অন্যান্যবারের মতো গত বছর ১৬ আগস্ট উপজেলার ৩০৪ মুক্তিযোদ্ধার সম্মানী ভাতার তালিকা উপজেলা সমাজকল্যাণ কর্মকর্তার অফিস থেকে নবীগঞ্জ সোনালী ব্যাংকে পাঠানো হয়। ওই তালিকার ৬৭ নম্বরে নূরউদ্দিন আহমেদের নাম উল্লেøখ করে ‘পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত ভাতা বন্ধ থাকবে’ বলে মন্তব্য থাকায় ব্যাংক কর্মকর্তা তাকে ভাতা প্রদানে অপারগতা প্রকাশ করেন। একইভাবে পরবর্তী সম্মানী ভাতার তালিকায় অনুরূপ মন্তব্য থাকায় মুক্তিযোদ্ধা নূরউদ্দিন ভাতা ও ঈদ বোনাস থেকে বঞ্চিত রয়েছেন। এ ব্যাপারে বাদী নূরউদ্দিন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তার সঙ্গে যোগাযোগ করলে তারা একে অপরের ওপর দায় চাপান।

উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মোবাইলে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ২০১৭ সালের মুক্তিযুদ্ধবিষয়ক মন্ত্রণালয়ের পরিপত্রে একজন মুক্তিযোদ্ধা একাধিক সম্মানী ভাতা গ্রহণ করতে পারবেন না বলে উল্লেখ করা হয়েছে। এ পরিপ্রেক্ষিতে জেলা প্রশাসকের সমন্বয়ে গঠিত কমিটি নূরউদ্দিনের ভাতা স্থগিত করেছে।