একজনের হাত থেকে তরুণীকে বাঁচিয়ে ৫ জনে মিলে ধর্ষণ

অনলাইন ডেস্ক
১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০১:০৫ | আপডেট: ১৭ নভেম্বর ২০১৯ ০১:০৫
প্রতীকী ছবি

জ্বর হওয়ায় কাজে যেতে পারছিলেন না রুহি (ছদ্মনাম)। এ কারণে চাকরি হারান। সুস্থ হয়ে কাজ খোঁজায় ব্যস্ত হয়ে পড়েছিলেন। সরলতার সুযোগ নিয়ে তাকে চাকরি পাইয়ে দেওয়ার আশা দেন রবি নামে এক যুবক। ডেকে নিয়ে ধর্ষণের চেষ্টা করেন একটি রেল স্টেশনের কাছে। এ সময় সেখানে আসেন দুই যুবক। রবিকে পিটিয়ে সেখান থেকে তাড়িয়ে দেন তারা।

রুহি ভেবেছিলেন বড় বিপদ থেকে বেঁচে গেছেন। কিন্তু ওই দুই যুবক তাদের আরও তিন বন্ধুকে মোবাইল ফোনের মাধ্যমে ডেকে আনান। পরে পাঁচজন মিলে ধর্ষণ করে রুহিকে।

ঘটনাটি ঘটেছে ভারতে নয়ডায়। জেলার বাহলোলপুর পুলিশ ফাঁড়ির অন্তর্গত ইলেকট্রনিক সিটি মেট্রো রেল স্টেশনের কাছে সম্প্রতি ঘটে ঘটনাটি। থানায় গণধর্ষণ মামলা দায়ের করেছেন ওই তরুণী।

ভারতীয় গণমাধ্যম এই সময় তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, চাকরি হারানোর পর কাজ খুঁজে ব্যস্ত হয়ে পড়েছিল ওই তরুণী। রবি তাকে কাজ পাইয়ে দেবে বলে জানান। একটি ঠিকানা দিয়ে তরুণীকে সেখানে যেতে বলেন রবি। সেখানে গেলে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করেন। এমন সময় দুই যুবক সেখানে আসেন।

তরুণীর সামনেই রবিকে মারধর করেন তারা। পড়ে তাড়িয়ে দিয়ে নিজেদের বন্ধুদের ফোন করেন। তারা এলে সিটি মেট্রো রেল স্টেশনের ভেতরেই তরুণীকে গণধর্ষণ করেন।

ওই তরুণীর স্বাস্থ্য পরীক্ষা করানো হয়েছে। এ ঘটনায় মামলা দায়েরের পর রবি ও অন্য তিন যুবককে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। দুজন পলাতক রয়েছেন। বাকিদের খোঁজ চলছে বলে জানিয়েছেন নয়ডা পুলিশ সুপার (এসপি) অজয় পাল।