‘হাতির আছাড়ে স্ত্রীর ছিন্নভিন্ন দেহ সেলাই করে জোড়া লাগাই’

নিজস্ব প্রতিবেদক
৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৪:৪৮ | আপডেট: ৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ ১৬:৫৬
ফাইল ছবি

চট্টগ্রামে হাতির আক্রমণে দেবী রানী দে (৪৫) নামে এক গৃহবধূ নিহত হয়েছেন। গতকাল রোববার রাতে আনোয়ারা উপজেলার উত্তর গুয়াপঞ্চক গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত গৃহবধূর স্বামী পল্লি চিকিৎসক অরুণ কান্তি দে বলেন, ‘স্ত্রীর ছিন্নভিন্ন দেহ দেখে পাড়া-প্রতিবেশীরা ভয় পাবেন, তাই তার মৃতদেহ সেলাই করে জোড়া লাগাই। এ কষ্ট কাকে বোঝাব!’

পরিবার সূত্রে জানা গেছে, গতকাল রাত ১২টার দিকে দুটি হাতি কেইপিজেডের পাহাড় থেকে নেমে উত্তর গুয়াপঞ্চক গ্রামে যায়। হাতি দুটি পাহাড় থেকে নেমেই ফসলের ক্ষেত ও গাছপালা নষ্ট করে। ওই সময় লোকজন ভয়ে দিগ্বিদিক ছুটতে থাকেন। এ সময় ঘর থেকে ভয়ে বের হলে হাতির সামনে পড়েন দেবী রানী দে। তখন একটি হাতি তাকে শুঁড় দিয়ে তুলে আছড়ে মেরে ফেলে।

নিহত গৃহবধূর মেয়ে পিংকি দে ও ছেলে ঈশান দে বলেন, ‘হাতি এলে আমরা ঘর থেকে ভয়ে বের হই। ওই সময় হাতির সামনে পড়েন মা। সঙ্গে সঙ্গে মাকে তুলে আছাড় মেরে পা দিয়ে চাপ দেয় হাতি। মা তখনই মারা যান।’

স্থানীয় সূত্র জানায়, দেড় বছর ধরে কাছের দেয়াঙ পাহাড়ে অবস্থান নিয়েছে তিনটি হাতি। এগুলো প্রায়ই খাবারের খোঁজে লোকালয়ে নেমে আসে এবং ফসলের ক্ষেত নষ্ট করে। এসব হাতির আক্রমণে গত দেড় বছরে আনোয়ারা উপজেলার বিভিন্ন এলাকার ছয়জন নিহত হয়েছেন।

এ ব্যাপারে বৈরাগ ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোহাম্মদ সোলায়মান বলেন, ‘আমরা পুরোপুরি অসহায় হয়ে পড়েছি হাতির কাছে। গত দেড় বছরে ছয়জন মানুষ মারা গেল।’

জানতে চাইলে আনোয়ারা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) দুলাল মাহমুদ বলেন, ‘হাতির আক্রমণে একজন নিহত হওয়ার খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে। বিষয়টি বন বিভাগসহ বিভিন্ন দপ্তরে জানানো হয়েছে।’