আইসিইউ সেবা দেবে বেসরকারি হাসপাতালগুলো

চট্টগ্রাম ব্যুরো
৩১ মার্চ ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৩১ মার্চ ২০২০ ০০:৩৩

করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত সংকটাপন্ন রোগীদের আইসিইউ (ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিট) সেবা দিতে এগিয়ে এসেছে চট্টগ্রামের বেসরকারি হাসপাতালগুলো। সরকারের আহ্বানে সাড়া দিয়ে প্রত্যেকটি হাসপাতাল কমপক্ষে দুটি আইসিইউ বেড বরাদ্দ দিচ্ছে। এ ছাড়া চট্টগ্রাম জেনারেল হাসপাতালে থাকবে পাঁচটি বেড। চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ১০টি আইসিইউ বেড থাকলেও বিভিন্ন ধরনের রোগী থাকায় সেখানে করোনায় আক্রান্তদের চিকিৎসা না দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে।

জানা গেছে, নগরীর আন্দরকিল্লা জেনারেল হাসপাতাল এবং ফৌজদারহাটের বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অব ট্রপিক্যাল অ্যান্ড ইনফেকশাস ডিজিজেসে (বিআইটিআইডি) করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীর চিকিৎসা দেওয়া হবে। তবে এ দুটির কোনোটিতেই আইসিইউ সুবিধা নেই। তাই সরকারি ছুটি শুরুর আগেই স্বাস্থ্য অধিদপ্তর থেকে চট্টগ্রাম নগরীর বেসরকারি হাসপাতালগুলোকে করোনা রোগীর চিকিৎসায় কমপক্ষে দুটি করে আইসিইউ বেড প্রস্তুত রাখতে বলা হয়। চট্টগ্রামের সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বী প্রত্যেক হাসপাতালে গিয়ে এ বিষয়ে আলোচনাও করেন। বর্তমানে চট্টগ্রাম বিভাগীয় কমিশনার ও সেনাবাহিনী

বিষয়টি দেখভাল করছে। গতকাল সোমবার নগরীর পাঁচলাইশ মোড়ে পার্কভিউ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষকে বলা হয় আইসিইউ বেড প্রস্তুত রাখতে। তারা প্রয়োজনীয় সেবা দিতে প্রস্তুত বলে জানায়। এর পর প্রয়োজনে নগরীর জিইসি মোড়ের মেডিক্যাল সেন্টার, রয়েল হসপিটাল, এশিয়া হাসপাতাল এবং পাহাড়তলীর ইম্পেরিয়াল হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হবে।

এ বিষয়ে সিভিল সার্জন ডা. শেখ ফজলে রাব্বী আমাদের সময়কে বলেন, ‘করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের আইসিইউর প্রয়োজন হলে আপাতত বেসরকারি হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হবে। এরই মধ্যে পার্কভিউ হাসপাতাল প্রস্তুত রয়েছে। ক্রমান্বয়ে বাকি হাসপাতালগুলো প্রস্তুত হচ্ছে। বেসরকারি হাসপাতাল মালিকরা আলোচনা করে ব্যবস্থা নিচ্ছেন।’ পার্কভিউ হাসপাতালের ডেপুটি জেনারেল ম্যানেজার হুমায়ুন কবির বলেন, ‘জাতির সংকটে আমরা পাশে থাকতে চাই। তাই জাতির বৃহত্তর প্রয়োজনে আমাদের আইসিইউ সাপোর্ট দেওয়ার সিদ্ধান্ত হয়েছে। সোমবার বিভাগীয় কমিশনার আমাদের সঙ্গে আলোচনা করেছেন। আমরা সেবা দেওয়ার বিষয়ে আশ্বস্ত করেছি।’

চট্টগ্রাম বেসরকারি হাসপাতাল মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী বলেন, ‘দেশের প্রয়োজনে আমাদের একসঙ্গে কাজ করতে হবে। স্বাস্থ্য বিভাগ থেকে আমাদের দুটি করে আইসিইউ বেড প্রস্তুত রাখার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। আমরা তা প্রস্তুত রেখেছি। প্রয়োজনে সবগুলো বেড একসঙ্গে করে রোগীদের চিকিৎসার ব্যবস্থা করব।’