যে কারণে আরব আমিরাতের চিকিৎসা সাহায্য ফিরিয়ে দিল ফিলিস্তিন

অনলাইন ডেস্ক
২২ মে ২০২০ ২৩:৩৫ | আপডেট: ২৩ মে ২০২০ ০০:২৮
ছবি : সংগৃহীত

করোনাভাইরাসের এই মহামারি মোকাবিলায় সবচেয়ে নির্যাতিত এবং দুর্ভিক্ষপীড়িত মুসলিম দেশ ফিলিস্তিনকে চিকিৎসা সামগ্রী পাঠিয়েছিল সংযুক্ত আরব আমিরাত। তবে আমিরাতের এই সাহায্য ফিরিয়ে দিয়েছে ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষ। তাদের অভিযোগ, ইসরায়েলের সমর্থন অর্জনের জন্য এ সাহায্য পাঠানো হয়েছে।

মধ্যপ্রাচ্যের সংবাদ পর্যবেক্ষকারী সংস্থা মিডল ইস্ট মনিটর এবং ইরানি বার্তা সংস্থা তাসনিম নিউজ এজেন্সির প্রকাশিত প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, ১৪ টন চিকিৎসা সামগ্রী নিয়ে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের একটি বিমান ফিলিস্তিনে পাঠানো হয়েছিল। এই সাহায্যের মধ্যে ছিল পিপিই, মেডিকেল সরঞ্জাম এবং ১০টি ভেন্টিলেটর।

তবে ইতিহাদ এয়ারওয়েজের এই বিমান প্রথমে ইসরায়েলে পাঠানো হয়। দেশটির তেল আবিবের বেন গুরিওন বিমানবন্দরে চিকিৎসা সামগ্রী বোঝাই করার পর সেখান থেকে ফিলিস্তিনে পাঠানো হয়। এই সাহায্য পাঠানোর মাধ্যমে ইসরায়েল এবং সংযুক্ত আরব আমিরাতের মধ্যে বাণিজ্যিক বিমান চলাচলের ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।

এই সাহায্য ফিরিয়ে দিয়ে ফিলিস্তিনের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, ফিলিস্তিন কর্তৃপক্ষের অনুমতি ছাড়া ইসরায়েলের মধ্যস্ততায় এই সাহায্য পাঠানো হয়েছে। এই সাহায্য গ্রহণ করা হলে ইসরায়েলকে সমর্থন করা হবে।

সংযুক্ত আরব আমিরাতের এই কৌশলী সাহায্যের বিষয়ে ইরানের সর্বোচ্চ ধর্মীয় নেতা আয়াতুল্লাহ আল খামিনি এক টুইট বার্তায় বলেছেন, আজ পারস্য উপসাগরীয় কয়েকটি রাষ্ট্র তাদের নিজস্ব ইতিহাস এবং আরব বিশ্বের ইতিহাসের বিরুদ্ধে সবচেয়ে বড় বিশ্বাসঘাতকতা করেছে। তারা ইসরায়েলকে সমর্থন করে ফিলিস্তিনের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে।