যেভাবে ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরাতে চায় বিসিবি

ক্রীড়া প্রতিবেদক
৩ জুন ২০২০ ১৭:৪৫ | আপডেট: ৩ জুন ২০২০ ১৮:১৮
পুরোনো ছবি

পর্যায়ক্রমে ক্রিকেট শুরুর পরিকল্পনা করছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। করোনাভাইরাসের কারণে অনিশ্চিত হলেও বোর্ড চাইছে আসন্ন শ্রীলংকা সফরের জন্য খেলোয়াড়রা প্রস্তুত হোক। প্রাণঘাতি এই ভাইরাস প্রতিরোধে এ পর্যন্ত বিশ্বের অন্য দেশগুলোর চেয়ে শ্রীলংকা সফল হওয়ায় সফর আয়োজনে তারা প্রস্তুত বলে দাবি করেছে শ্রীলংকা ক্রিকেট (এসএলসি)।

আসন্ন সিরিজের প্রস্তুতি হিসেবে ইতোমধ্যেই ১৩ জন খেলোয়াড়কে নিয়ে অনুশীলন সেশন শুরু করেছে শ্রীলংকা। নির্ধারিত সময়ে সফর করার জন্য বিসিবিকে প্রস্তাব দিয়েছে লংকান বোর্ড। তবে বিসিবি এখনো কোনও সিদ্বান্ত নেয়নি। তবে বোর্ড খেলোয়াড়দের প্রস্তুত রাখবে।

যে কারণে ক্রিকেটারদের মাঠে ফেরানোর পরিকল্পনা করা হচ্ছে বলে জানালেন বিসিবি প্রধান নির্বাহী নিজাম উদ্দিন চৌধুরী। তিনি বলেন, ‘যত দ্রুত সম্ভব মাঠে খেলা ফেরানোর পরিকল্পনা রয়েছে এবং এ জন্য কাজও শুরু হয়েছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘অনেক কিছুর ওপরড় নির্ভরশীল শ্রীলংকা সফর নিয়ে যদিও এখন পর্যন্ত কোনো সিদ্বান্ত হয়নি। তবে আমরা চাই খেলোয়াড়রা প্রস্তুত থাকুক এবং তাদের স্বাভাবিক কার্যকলাপ শুরু করুক। বর্তমানে খেলোয়াড় এবং কোচিং স্টাফরা অনলাইনের মাধ্যমে যোগাযোগ করছে এবং কীভাবে পুনরায় ক্রিকেট শুরু করা যায় সেই পরিকল্পনা করছে।’

তবে বিসিবি প্রধান নির্বাহী জানান, শ্রীলংকা সফর নিয়ে এখনো কোনো সিদ্বান্ত হয়নি এবং এটি সম্পূর্ণ নির্ভর করবে সরকারের অনুমতির ওপর। তিনি বলেন, ‘বিসিবি এখনো এ বিষয়ে কোনো সিদ্বান্ত নেয়নি। তবে এ জন্য কেবল বিসিবির সিদ্ধান্তই যথেষ্ট নয়। এই সফরের জন্য সরকারের অনুমতিরও প্রয়োজন রয়েছে।’

কীভাবে ক্রিকেট ফেরানো হবে? এমন প্রশ্নে তিনি বলেন, ‘সংশ্লিষ্ট সবাই ইতোমধ্যেই সকলে স্বাস্থ্য নির্দেশিকা সর্ম্পকে জেনেছে এবং কিছু নিয়ম মেনে নিজেদের কাজ করছেন। খেলোয়াড় ও সংশ্লিষ্ট অন্যান্য ব্যক্তিদের নিরাপত্তার বিষয়টি সবার আগে। আমরা সকলের জন্য করোনা পরীক্ষা করানোর চিন্তা করছি। স্টেডিয়াম এবং খেলোয়াড় ও অন্যান্য কোচিং স্টাফদের ব্যবহার্য্য সরঞ্জামাদি নিয়মিত পরিষ্কার করা হচ্ছে।’

তিনি আরও জানান, যখন মনে করা হবে পরিস্থিতি অনুকূলে এসেছে, তখনই খেলোয়াড়দের এককভাবে অনুশীলনের অনুমতি দেবে বিসিবি।

‘কয়েক দিন পরই আমরা স্টেডিয়ামে খেলোয়াড়দের এককভাবে অনুশীলন করার অনুমতি দেব। সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে একই সময়ে তিনজন খেলোয়াড় অনুশীলন করতে পারে। আমরাও পুনরায় ক্রিকেট শুরু করতে মুখিয়ে আছি। তবে আমরা কোনো ঝুঁকি নিতে রাজি নই’-এভাবেই বলছিলেন নিজাম উদ্দিন চৌধুরী।