খুলনায় কোরবানির পশুর হাট বসছে ২৬ জুলাই

নিজস্ব প্রতিবেদক খুলনা
৪ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ৪ জুলাই ২০২০ ০০:১৭

করোনা ভাইরাসের মধ্যেও কোরবানির পশুর হাট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে খুলনা সিটি করপোরেশন (কেসিসি)। প্রতিবছরের মতো এবারও নগরীর জোড়াগেট বাজার চত্বরে আগামী ২৬ জুলাই থেকে সপ্তাহব্যাপী এ হাট বসবে। তবে তিন দফা দরপত্র আহ্বান করা হলেও কোনো ফার্ম এতে অংশগ্রহণ করেনি। ফলে হাট পরিচালনায় এবারও করপোরেশনকেই দেখা যেতে পারে।

কেসিসি সূত্রে জানা গেছে, কোরবানির পশুর হাটের ইজারা মূল্য নির্ধারণ করা হয় ২ কোটি ৪৩ লাখ ২৩ হাজার ৪০৮ টাকা। প্রথম দফায় দরপত্র দাখিলের সময় নির্ধারণ করা হয় ২৫ জুন, দ্বিতীয় দফায় সময় নির্ধারণ করা হয় ২৯ জুন এবং সর্বশেষ তৃতীয় দফায় সময় নির্ধারণ করা হয় গত বৃহস্পতিবার। কিন্তু এ সময়ের মধ্যে কোনো ফার্মই দরপত্র দাখিল করেনি। দরপত্রে উল্লেখ করা হয়, আগামী ২৬ জুলাই থেকে ঈদুল আজহার দিন সকাল ৬টা পর্যন্ত এক সপ্তাহের জন্য হাট ইজারা দেওয়া হবে।

কেসিসির বাজার সুপার সেলিমুর রহমান জানান, কেসিসির ওয়েবসাইটেও বিজ্ঞপ্তি দেওয়া হয়েছে। কিন্তু এখন

পর্যন্ত কেউ দরপত্র ক্রয় করেনি। এতে দরপত্র জমাও হচ্ছে না। ফলে কেসিসির নিজস্ব তত্ত্বাবধানেই জোড়াগেট পশুর হাট পরিচালনার সিদ্ধান্ত নেওয়া ছাড়া আর কোনো পথ নেই। তিনি আরও বলেন, গত ২৫ জুন বাজার পরিচালনায় স্ট্যান্ডিং কমিটির সভায় সিদ্ধান্ত হয়েছে করোনা ভাইরাস সংক্রমণের মধ্যেই চলবে পশুর হাট। তবে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা, হাটে প্রবেশে মাস্ক ব্যবহার বাধ্যতামূলক, প্রবেশ গেটে জীবাণুনাশক ট্যালেন স্থাপনের সিদ্ধান্ত, একদিক দিয়ে পশু হাটে প্রবেশ ও অন্য গেট দিয়ে বের হতে হবে। ক্রয়-বিক্রয়কালে শারীরিক দূরত্ব বজায় রাখাসহ অন্যান্য স্বাস্থ্যবিধি কঠোরভাবে মেনে চলতে হবে। প্রবেশমুখে হাত ধোয়ার ব্যবস্থা এবং স্যানিটাইজারের ব্যবস্থা থাকবে। ওয়ান লাইনে হাট বসানো যায় কিনা সে ব্যাপারে কাজ চলছে। এ ব্যাপারে রিপোর্ট দেওয়ার জন্য নির্বাহী প্রকৌশলী (যান্ত্রিক) জাহিদ হোসেনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি হাট পরিচালনা কমিটির আগামী সভায় তার রিপোর্ট পেশ করবেন। এবার দুযোর্গপূর্ণ পরিবেশেই পশুর হাট পরিচালিত হবে বলে আবহাওয়াবিদরা জানিয়েছেন। ফলে দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার ভয় অনেকাংশে বৃদ্ধি পাবে।

কেসিসির বাজার সুপার আরও জানান, জোড়াগেট কোরবানির পশুর হাট বিভাগের তৃতীয় বৃহত্তম হাট। ঈদুল আজহার এক সপ্তাহ আগে এ হাট উদ্বোধন করা হবে। আর শিগগিরই হাট পরিচালনা কমিটি গঠন করা হবে। হাটে আধুনিকায়নের ছোঁয়া, নিরাপত্তাব্যবস্থাসহ পর্যাপ্ত সুযোগ-সুবিধা থাকবে বলে জানান তিনি।