জিরুদের গোলে চেলসির জয়

ক্রীড়া ডেস্ক
১৬ জুলাই ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১৬ জুলাই ২০২০ ০০:০৯

তলানির দল নরউইচ সিটিকে ১-০ গোলে পরাজিত করে প্রিমিয়ার লিগের শীর্ষ চারের অবস্থান আরও সুসংহত করেছে চেলসি। স্ট্যামফোর্ড ব্রিজে ম্যাচের একমাত্র গোলটি করেন ফরাসি তারকা অলিভার জিরুদ। ম্যাচ শেষে চেলসি কোচ ফ্রাঙ্ক ল্যাম্পার্ড বলেছেন তার পুরো দল নার্ভাসনেসে ভুগছে।

এ জয়ে চতুর্থ ও পঞ্চম স্থানে থাকা লিস্টার সিটি ও ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের থেকে চার পয়েন্টে এগিয়ে গেল তৃতীয় স্থানে থাকা চেলসি। ল্যাম্পার্ড মনে করেন লিগের শেষ দুই ম্যাচে চ্যাম্পিয়ন লিভারপুল ও ষষ্ঠ স্থানে থাকা উল্ফসের বিরুদ্ধে ম্যাচগুলোতে এখনো অনেক কাজ করার বাকি আছে। ল্যাম্পার্ড বলেন, ‘আমি আরও বেশি চেয়েছিলাম। কিন্তু সে জন্য আরও অপেক্ষা করতে হচ্ছে। এ মুহূর্তে তিন পয়েন্ট অনেক কিছু। টেবিলের পজিশন ধরে রাখাটাও গুরুত্বপূর্ণ। আমরা যদি সত্যিকার অর্থেই এগিয়ে যেতে চাই তবে ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে হবে। যদিও কাজটা মোটেই সহজ নয়। দলের প্রত্যেকেই বেশ নার্ভাস আছে।’ এর আগে শনিবার শেফিল্ড ইউনাইটেডের কাছে ৩-০ গোলের পরাজয়ে বেশ খানিকটা পিছিয়ে গিয়েছিল ব্লুজরা। ওই পরাজয়ে চেলসির শীর্ষ চারে থাকা নিয়ে যথেষ্ট শঙ্কা তৈরি হয়। বারমার লেনের ওই ম্যাচটি থেকে পাঁচটি পরিবর্তন করে দল সাজিয়েছিলেন ল্যাম্পার্ড। এর মধ্যে মূল একাদশে ফিরেছিলেন জিরুদ।

ইতোমধ্যেই আগামী মৌসুমের জন্য টিমো ওয়ার্নার ও হাকিম জিয়েচকে দলে ভিড়িয়ে আক্রমণভাগ শক্তিশালী করেছে ব্লুজরা। করোনার কারণে লকডাউনের সময় আরও এক বছরের জন্য চেলসির সঙ্গে চুক্তি নবায়ন করেছেন জিরুদ। তার পর থেকে মৌসুম পুনরায় শুরু হওয়ার পর চেলসির হয়ে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছেন এ ফরাসি স্ট্রাইকার। ল্যাম্পার্ডও তার প্রশংসা করতে ভুল করেননি, ‘সে আমাদের দলের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ খেলোয়াড়। ম্যাচের সব জরুরি গোলগুলো সেই করেছে।’

প্রথমার্ধে বেশ কয়েকটি সুযোগ পেয়েছিলেন জিরুদ। তবে প্রথমার্ধের ইনজুরি টাইমে ক্রিস্টিয়ান পুলিসিচের ক্রসে গত আট ম্যাচে পঞ্চম গোল করে চেলসির জয় নিশ্চিত করেন এ ফরাসি তারকা। এর আগে পুলিসিচের শক্তিশালী শট নরউইচের ডাচ গোলরক্ষক টিম ক্রুল দারুণ দক্ষতায় রুখে দেন। জিরুদ বলেছেন, ‘যে সুযোগগুলো আমি নষ্ট করেছি তা সাধারণত আমি করি না। কিছুটা আত্মবিশ^াস হারিয়ে ফেলেছিলাম। কিন্তু আমার লক্ষ্য হলো দলের হয়ে আরও গোল করা। পুলিসিচের ক্রস থেকে সেই লক্ষ্য স্থির থেকেই গোল পেয়েছি।’