উপকূলীয় অঞ্চলে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৪ আগস্ট ২০২০ ১৫:৩৩ | আপডেট: ১৪ আগস্ট ২০২০ ১৮:৩৯
প্রতীকী ছবি

শ্রাবণ মাস শেষের দিক। শ্রাবণে যেখানে প্রবল বর্ষণ হওয়ার কথা সেখানে পড়ছে ভ্যাপসা গরম। তবে এ অবস্থা শিগগিরই কেটে যাবে, কেননা বঙ্গোপসাগরে লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাবে উপকূলীয় অঞ্চলসহ দেশের বেশ কিছু এলাকায় বৃষ্টি ও ঝোড়ো বাতাস বয়ে যেতে পারে। আর এ জন্য মোংলা, পায়রা, চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর, কক্সবাজারসহ উপকূলীয় অঞ্চলে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আজ শুক্রবারের পূর্ভাবাসে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানিয়েছে, উত্তর–পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এবং তৎসংলগ্ন উত্তর ওডিশা, গাঙ্গেয় পশ্চিমবঙ্গ এলাকায় একটি লঘুচাপ সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগরে মৌসুমি বায়ু সক্রিয় রয়েছে এবং বায়ুচাপ পার্থক্যের আধিক্য বিরাজ করছে। এর প্রভাবে ঝোড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। সমুদ্রবন্দরগুলোকে ৩ নম্বর সতর্কসংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে। এ ছাড়া উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারগুলোকে পরবর্তী নির্দেশ না দেওয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের পক্ষ থেকে আরও জানানো হয়েরেছ, লঘুচাপের কারণে খুলনা, বরিশাল, চট্টগ্রামসহ উপকূলীয় অঞ্চলে প্রথম বৃষ্টি হবে। এরপর ঢাকাসহ দেশের অন্যান্য অঞ্চলে বৃষ্টি হবে। একই সঙ্গে রোদের তীব্রতাও কিছুটা কমবে। তবে আগামী ২৪ ঘণ্টার মধ্যে দিনের তাপমাত্রা অপরিবর্তিত থাকলেও রাতের বেলা তাপমাত্রা কমবে।

গতকালের তাপমাত্রা ও বৃষ্টি সম্পর্কে আবহাওয়া অধিদপ্তর জানায়, গতকাল বৃহস্পতিবার সকাল ছয়টা থেকে আজ শুক্রবার সকাল পর্যন্ত ২৪ ঘণ্টায় সবচেয়ে বেশি ২৫ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে পঞ্চগড়ের তেঁতুলিয়ায়। এ ছাড়া কিশোরগঞ্জের নিকলীতে ১৪, বরিশালে ১৩ মিলিমিটার বৃষ্টি হয়েছে। গতকাল সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল সিলেটে ৩৬ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস।