‘আমার পরিণতিও বেগম জিয়ার মতো হতে পারে’

নিজস্ব প্রতিবেদক
১৭ অক্টোবর ২০২০ ২৩:৩৭ | আপডেট: ১৮ অক্টোবর ২০২০ ০৯:০৮
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর

যেভাবে টার্গেট করে একের পর এক মামলা দেওয়া হচ্ছে; নিজের পরিনতি বিএনপি চেয়ারপারন খালেদা জিয়ার মতো হতে পারে বলে মন্তব্য করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদের (ডাকসু) সাবেক ভিপি নুরুল হক নুর। শনিবার রাজধানীর ধানমন্ডিতে গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রে ভাষাসৈনিক আব্দুল মতিনের ষষ্ঠ মৃত্যুবার্ষিকী উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় এ মন্তব্য করেন তিনি।

নুরুল হক নুর বলেন, ‘যেভাবে আমাকে টার্গেট করে একের পর এক মামলা দেওয়া হচ্ছে, ছাত্রলীগ-যুবলীগ দিয়ে হামলা করছে, কিন্তু আমি তো থেমে যাইনি। যেভাবে বিএনপি নেত্রী খালেদা জিয়াকে দুই বছর মিথ্যা মামলায় কারাগারে রেখেছে, সেখানে আমি নুর কিছুই না। আমার তো খালেদা জিয়ার মতো লাখ লাখ নেতাকর্মী নেই। কিন্তু আমি জানি, আমার পরিণতিও বেগম জিয়ার মতো হতে পারে।’

সাবেক ডাকসু ভিপি আরও বলেন, ‘আওয়ামী লীগের নেতা মাকসুদ কামাল তো টকশোতে বলেছেন যে, ভিপি নুরের পরিণতিও খালেদা জিয়ার মতো হবে। কিন্তু আমি বলছি, আমার একটা জীবনের বিনিময়ে যদি এদেশের ১৮ কোটি মানুষ মুক্তি পায়, তাহলে আমার জীবন আমি উৎসর্গ করলাম। কোনো গণআন্দোলন ত্যাগ ছাড়া সফল হয়নি। তাই জনগণের প্রতি অনুরোধ থাকবে, এখন আর বসে থাকার সময় নেই, খুব শিগগিরই ডাক আসবে গণআন্দোলনের।’

সরকারের উদ্দেশে নুর বলেন, ‘আপনারা (সরকার) দেখেছেন সারাদেশ গর্জে উঠেছে। আপনারা চাইলেও জোর করে আর ক্ষমতায় থাকতে পারবেন না।’ এ সময় মধ্যবর্তী নির্বাচন প্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘যদি নিরাপদে ফিরতে চান, তাহলে নিজেরাই একটা মধ্যবর্তী নির্বাচনের ব্যবস্থা করেন। সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচনের জন্য যদি তত্ত্বাবধায়ক সরকারকে সংবিধানে অন্তর্ভুক্ত করতে হয়, তবে তাই করুন।’

সভায় সরকারকে স্বৈরশাসকের করুণ পরিণতির কথা স্মরণ করিয়ে ডাকসুর সাবেক ভিপি বলেন, ‘যদি এরশাদের মতো, কিংবা পৃথিবীর যে সব স্বৈরশাসকের করুণ পরিণতি হয়েছে, সেটা যদি চান তাহলে জনগণের গণআন্দোলনের জন্য অপেক্ষা করুন।’

আলোচনা সভার সভাপতিত্ব করেন ভাসানী অনুসারী পরিষদের প্রেসিডিয়াম সদস্য নঈম জাহাঙ্গীর। বক্তব্য দেন গণসংহতি আন্দোলনের প্রধান সমন্বয়ক জোনায়েদ সাকি, রাষ্ট্রবিজ্ঞানী অধ্যাপক ড. দিলারা চৌধুরী, জাতীয়তাবাদী মুক্তিযুদ্ধের প্রজন্ম আহ্বায়ক কালাম ফয়েজী, মুক্তিযোদ্ধা ও সাবেক কাউন্সিলর মো. ফরিদ উদ্দিন প্রমুখ।