সালিশে মুক্তিযোদ্ধাকে পিটিয়ে হত্যা

বাসাইল (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধি
১ নভেম্বর ২০২০ ০০:০০ | আপডেট: ১ নভেম্বর ২০২০ ০০:২৯
টাঙ্গাইলের বাসাইলে গ্রাম্য সালিশে হত্যার শিকার মুক্তিযোদ্ধা আবদুল লতিফ খানের স্বজনের আহাজারি -আমাদের সময়

টাঙ্গাইলের বাসাইলে তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে গ্রাম্য সালিশে আবদুল লতিফ খান (৬৭) নামের এক বীর মুক্তিযোদ্ধাকে হত্যার অভিযোগ উঠেছে। উপজেলার হাবলা ইউনিয়নের মটরা গ্রামে গত শুক্রবার সন্ধ্যার ওই ঘটনায় নিহতের ছেলে হাবিব খান বাদী হয়ে শনিবার হত্যা মামলা করেছেন। এর পর মটরা এলাকা থেকে অভিযুক্ত লিটন (৪০) ও উজ্জ্বলকে (৩৮) গ্রেপ্তার করে পুলিশ। পরে আদালতের মাধ্যমে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

পুলিশ ও নিহতের পরিবার জানায়, দুটি পুকুরের মাছ নিয়ে কয়েক দিন ধরে বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল লতিফ খানের সঙ্গে প্রতিবেশী আবু খানের বিরোধ চলে আসছিল। বিষয়টি মীমাংসার জন্য স্থানীয় ইউপি সদস্য শাহজাহান খানের বাড়িতে শুক্রবার বিকালে গ্রাম্য সালিশের আয়োজন করা হয়। সালিশের একপর্যায়ে কথা কাটাকাটির জেরে আবু খান এবং তার ছেলে পাভেল ও পারভেজসহ কয়েকজন আবদুল লতিফ খানকে কিলঘুষি ও পিটিয়ে আহত করে। পরে পরিবার ও স্থানীয়রা উদ্ধার করে টাঙ্গাইল জেনারেল হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক ওই মুক্তিযোদ্ধাকে মৃত ঘোষণা করেন।

হাবলা ইউনিয়ন পরিষদের ৪ নম্বর ওয়ার্ডের সদস্য শাহজাহান খান বলেন, ‘তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে দুপক্ষকে নিয়ে সালিশে বসা হয়। এর শেষ পর্যায়ে দুপক্ষই ক্ষিপ্ত হয়ে সংঘর্ষে জড়ায়। এ সময় উভয় পক্ষেরই কয়েকজন আহত হয়। আহত অবস্থায় ওই মুক্তিযোদ্ধাকে হাসপাতালে নিয়ে গেলে মৃত ঘোষণা করেন চিকিৎসক।’

বাসাইল থানার ওসি হারুনুর রশিদ বলেন, ‘বীর মুক্তিযোদ্ধা আবদুল লতিফ খান হত্যার ঘটনায় তার ছেলে হাবিব খান ১১ জনের নাম উল্লেখ করে একটি মামলা করেছেন। এরই মধ্যে এজাহারভুক্ত দুই আসামিকে গ্রেপ্তার করে আদালতের মাধ্যমে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। জড়িত বাকিদেরও গ্রেপ্তারের চেষ্টা চলছে।’