ঝগড়ার পর প্রেমিকের ‘আত্মহত্যা’, প্রেমিকা গ্রেপ্তার

সিলেট ব্যুরো
২১ নভেম্বর ২০২০ ২০:২৯ | আপডেট: ২১ নভেম্বর ২০২০ ২১:৪৬
প্রতীকী ছবি

সিলেট নগরের পাঠানটুলা থেকে মিফতাহুর রহমান (৩৫) নামে এক যুবকের মরদেহ উদ্ধার করেছে পুলিশ। আজ শনিবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে পাঠানটুলা এলাকার নিকুঞ্জ আবাসিক এলাকা থেকে তার মরদেহ উদ্ধার করা হয়। মিফতাহুর আত্মহত্যা করেছেন বলে ধারণা পুলিশের।

এদিকে ওই বাসা থেকেই পুলিশ এক তরুণীকে আটক করেছে। ওই তরুণী ও মিফতাহুর রহমান একই বাসায় থাকতেন। তাদের মধ্যে প্রেমের সম্পর্ক ছিল বলে জানা গেছে।

পুলিশ জানিয়েছে, গতকাল শুক্রবার দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়েছিল। এর জের ধরে রাতেই কিংবা আজ শনিবার সকালে মিফতাহুর আত্মহত্যা করতে পারেন।

মিফতাহুর রহমান দিরাই উপজেলার জগদল ইউনিয়নের কদমতলি গ্রামের মতিউর রহমানের ছেলে। মিফতাহুরের বাবা মতিউর রহমান বাদী হয়ে আত্মহত্যার প্ররোচণার অভিযোগ এনে ওই তরুণীকে আসামি করে থানায় মামলা দায়ের করেছেন।

নিহতের চাচা মুহিবুর রহমান বলেন, ‘গ্রেপ্তার হওয়া মেয়েটিকে আমরা চিনি না। তাকে আমার ভাতিজার বাসায় পাওয়া গেছে। তাদের বিয়ে হয়েছিল কিনা সেটাও আমরা জানি না। মেয়েটির বাড়ি হচ্ছে বাগেরহাটের ফকিরহাট থানা এলাকায়।’ মিফতাহুর রহমানকে হত্যা করা হতে পারে বলেও অভিযোগ করেছেন তিনি।

সিলেট কতোয়ালি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ সেলিম মিঞা বলেন, ‘পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে ময়নাতদন্তের জন্য। ওই বাসা থেকে নিহত মিফতাহুর রহমানের প্রেমিকাকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। তাকে আসামি করে নিহতের বাবা একটি মামলা করেছেন।’

গ্রেপ্তার হওয়া তরুণির বরাত দিয়ে ওসি বলেন, ‘তরুণির মা কয়েকদিন আগে মেয়েকে মিফতাহুর রহমানের বাসায় রেখে যান। গতকাল শুক্রবার রাতে তাদের দুজনের মধ্যে ঝগড়া হয়। এতে দুজন দুই রুমে চলে যায়। মেয়েটি একরুমে বসে ব্লেড দিয়ে হাত কাটছিলো। আর ছেলেটি গলায় ফাঁস দেয়।’