শুভ জন্মদিন ম্যাশ

  অনলাইন ডেস্ক

০৫ অক্টোবর ২০১৭, ১১:৫৪ | আপডেট : ০৫ অক্টোবর ২০১৭, ১৪:৪৬ | অনলাইন সংস্করণ

মাশরাফি বিন মুর্তজা। বাংলাদেশের এ যাবৎকালের সেরা পেসার। মাশরাফি শুধু খেলোয়ার-ই নন। একটি উদ্দীপনা, বাংলাদেশ ক্রিকেটের জাগরনের সারথি। মাঠে-মাঠের বাইরে কোটি তরুণের রোল মডেল। মাশরাফি মানেই ক্রিকেট, মাশরাফি মানেই সাফল্য। সময়ে-অসময়ে দলকে সামনে থেকে সঠিক নেতৃত্ব দিয়ে অনন্য উচ্চতায় নিয়ে গেছেন মাশরাফি। নিজের শারিরীক বাধাকে দূরে সরিয়ে দিয়ে মাঠে সর্বোচ্চ প্রচেষ্টা ব্যয় করেন। সহ খেলোয়ারদের কাছ থেকে সর্বোচ্চ পারফরমেন্স বের করে আনেন। সাফল্যে উৎসাহ যোগান, বিপর‌্যয়ে পাশে দাঁড়ান। পুরো ক্রিকেট টিমকে এক সুতোয় বেধে রেখেছেন ম্যাশ। ব্যাক্তিত্ব-পারফরমেন্স সবকিছু দিয়েই তিনি নি:সন্দেহে দলের নিউক্লিয়াস।    

বাংলাদেশ ওয়ানডে দলের অধিনায়কের ৩৫ তম জন্মদিন আজ। ১৯৮৩ সালের ৫ অক্টোবর বাংলাদেশের দক্ষিণ-পশ্চিমের জেলা নড়াইলে জন্মগ্রহণ করেন ‘নড়াইল এক্সপ্রেস‘ খ্যাত এই বোলার । নড়াইলেই তার বেড়ে উঠা। মাশরাফির ডাকনাম কৌশিক। ছোটবেলা থেকেই তিনি বাঁধাধরা পড়াশোনার পরিবর্তে ফুটবল আর ব্যাডমিন্টন খেলতেই বেশি পছন্দ করতেন। আর মাঝে মধ্যে সাঁতার কাটতেন চিত্রা নদীতে। তারুণ্যের শুরুতে ক্রিকেটের প্রতি তার আগ্রহ জন্মে। ব্যাটিংয়ের প্রতিই তাঁর ঝোক ছিল বেশি। যদিও বোলার হিসেবেই তিনি বেশি খ্যাত। তবে মাশরাফিকে শুধু বোলার বললে কম হবে। তিনি একজন অলরাউন্ডার। ব্যাট হাতে দেশকে এনে দিয়েছেন বড় বড় সাফল্য। অনেক সময় তার ব্যাটিং-ই গড়ে দিয়েছে বাংলাদেশের সঙ্গে প্রতিপক্ষের পার্থক্য।

২০০১ সালের ৮ নভেম্বরে জিম্বাবুয়ে সিরিজের মাধ্যমে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে মাশরাফির অভিষেক হয়। অভিষেকের পর থেকেই ইনজুরির সঙ্গে সংগ্রাম করতে হয়েছে মাশরাফিকে। ১৬ বছরের ক্যারিয়ারে অসংখ্যবার চোটের কারণে দলের বাইরে যেতে হয়েছে মাশরাফিকে। চোটই তাঁর কাছ থেকে ছিনিয়ে নিয়েছিল ২০১১ সালের দেশের মাটিতে বিশ্বকাপ। ২০১৭ সালে ৬ এপ্রিল বাংলাদেশ -শ্রীলংকা সিরিজের শেষ টি-টোয়েন্টি দিয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট থেকে অবসর নেন। মাঠে ম্যাশ নামে পরিচিত মাশরাফি বাংলাদেশের প্রথম ক্রিকেটার যে অধিনায়ক থাকাবস্থায় অবসর নিলেন।

আন্তর্জাতিক ক্রিকেটে ৩৫২ উইকেট ও ২৭৬১ রানের মালিক মাশরাফি বিন মুর্তজা ভক্তদের কাছে এক আবেগের নাম। বাংলাদেশের ক্রিকেটের অন্যতম সেরা অধিনায়ক হিসেবে, একজন আদর্শ দলনেতা হিসেবে তিনি জায়গা করে নিয়েছেন ভক্তদের হৃদয়ে। তাঁর নেতৃত্বে মুগ্ধ হয়ে সাবেক অজি ওপেনার ও বর্তমানে ধারাভাষ্যকর ম্যাথু হেইডেন বলেছিলেন, ‘অধিনায়ক ত অনেকেই হতে পারে কিন্তু মাশরাফির মত ‘দলের মা’ কয়জন হতে পারে!’

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে