চীনে যাচ্ছে আওয়ামী লীগের প্রতিনিধি দল

  আলী আসিফ শাওন

১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:৩৬ | প্রিন্ট সংস্করণ

চলমান রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে এশিয়ার অন্যতম পরাশক্তি চীনকে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানাবে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগ। দেশটির ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির আমন্ত্রণে আওয়ামী লীগের ১৯ সদস্যের একটি প্রতিনিধি দল আগামী মঙ্গলবার চীন সফরে যাচ্ছে। ভূ-রাজনৈতিক প্রেক্ষাপটে মিয়ানমারের দীর্ঘদিনের বিশ্বস্ত বন্ধু চীন। কাজেই রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে দেশটিকে উদ্যোগী হওয়ার আহ্বান জানাবে আওয়ামী লীগ। বাংলাদেশে আশ্রয় নেওয়া রোহিঙ্গাদের যেন দ্রুততম সময়ে মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়া হয়, সে জন্য মিয়ানমারকে চাপ দিকে চীনের সঙ্গে আলোচনায় বসবেন আওয়ামী লীগের সফরকারী নেতারা। সংশ্লিষ্ট একাধিক সূত্রে খবরটি জানা গেছে।
চীন সফরে অতিথির তালিকায় থাকা আওয়ামী লীগের নেতারা আলাপকালে আমাদের সময়কে জানিয়েছেন, চীনের ক্ষমতাসীন কমিউনিস্ট পার্টির সঙ্গে আওয়ামী লীগের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক দীর্ঘদিনের। এর আগেও প্রায় প্রতিবছর বেইজিংয়ের আমন্ত্রণে ঢাকা থেকে আওয়ামী লীগের নেতারা চীন সফর করেছেন। তবে এবারের সফরের গুরুত্ব অন্যবারের চেয়ে বেশি। সফর সূচিটি এমন সময় ঠিক করা হয়েছে, যখন মিয়ানমারের সামরিক জান্তার নির্যাতন-নিপীড়নের শিকার হয়ে রাখাইন রাজ্যের কয়েক লাখ রোহিঙ্গা মুসলিম বাংলাদেশে অনুপ্রবেশ করে সীমান্তবর্তী কক্সবাজার এবং আশপাশের দুয়েকটি জেলায় ঠাঁই নিয়েছে। বিশ্বের বিভিন্ন দেশ যখন রোহিঙ্গাদের প্রতি নির্যাতন বন্ধে মিয়ানমারের প্রতি আহ্বান জানাচ্ছে, তখনো চীনের শাসকরা মিয়ানমার সরকারের প্রতি তাদের সমর্থন অব্যাহত রেখেছেন। আন্তর্জাতিক রাজনীতি সম্পর্কে সচেতন নাগরিকমাত্রই জানেন, চীনের সঙ্গে মিয়ানমারের সম্পর্ক অত্যন্ত গভীর। রোহিঙ্গা ইস্যুতে মিয়ানমারের বর্তমান অবস্থানের পরিবর্তন হতে পারে যদি চীন দেশটিকে আহ্বান জানায়। তাই আওয়ামী লীগের নেতারা বেইজিং সফরকালে চীনের ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষনেতাদের কাছে রোহিঙ্গা সংকট সমাধানে উদ্যোগী হতে বলবেন। মিয়ানমার যেন রোহিঙ্গাদের তাদের দেশে ফিরিয়ে নেয়, সে জন্য চীনকে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বানও জানানো হবে।
আওয়ামী লীগ সূত্রে আরও জানা গেছে, চীনের কমিউনিস্ট পার্টির আমন্ত্রণপত্রটি চলতি বছরের ফেব্রুয়ারিতে পাঠানো হয় আওয়ামী লীগকে। কিন্তু সফরের জন্য বর্তমান সময়কেই বেছে নিয়েছেন দলটির নীতিনির্ধারকরা।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিনিধি দলের নেতা ও আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য লে. কর্নেল (অব) মুহাম্মদ ফারুক খান আমাদের সময়কে বলেন, অবশ্যই চীন সফরে আমাদের আলোচনায় সাম্প্রতিক রোহিঙ্গা সমস্যার বিষয়টি থাকবে। এ সমস্যা সমাধানে আমরা চীনকে তাদের অবস্থান থেকে উদ্যোগ নেওয়ার আহ্বান জানাব।
একই বিষয়ে জানতে চাইলে প্রতিনিধি দলের সদস্য ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি আমাদের সময়কে বলেন, চীন আমাদের বন্ধুতীম দেশ। রোহিঙ্গা ইস্যুতে বাংলাদেশের অবস্থান আমাদের বন্ধু রাষ্ট্রগুলোকে জানাচ্ছি। আসন্ন চীন সফরেও দেশটির ক্ষমতাসীন দলের নেতাদের সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে আলোচনা করব।
জাতীয় সংসদে দেওয়া আওয়ামী লীগ সভাপতি প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার ভাষণে তুলে ধরা তথ্যমতে, এ মুহূর্তে মিয়ানমারের ৭ লাখ রোহিঙ্গা নাগরিক বাংলাদেশে আশ্রিত। এদের দ্রুত নিজ দেশে ফিরিয়ে নিতে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে কূটনৈতিক তৎপরতা শুরু করেছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন বর্তমান সরকার।
আওয়ামী লীগ সূত্রে জানা গেছে, আগামী ১৯ সেপ্টেম্বর থেকে ২৭ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত চীন সফর করবে আওয়ামী লীগের ১৯ সদস্যের প্রতিনিধি দলটি। এর নেতৃত্বে থাকবেন আওয়ামী লীগের সভাপতিম-লীর সদস্য লে. কর্নেল (অব) ফারুক খান। অন্য সদস্যরা হলেনÑ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ডা. দীপু মনি, আন্তর্জাতিকবিষয়ক সম্পাদক ড. শাম্মী আহমেদ, মহিলা ও শিশুবিষয়ক সম্পাদক ফজিলাতুননেসা ইন্দিরা, সংস্কৃতিবিষয়ক সম্পাদক অসীম কুমার উকিল, আইনবিষয়ক সম্পাদক স ম রেজাউল করিম, তথ্য ও গবেষণা সম্পাদক আফজাল হোসেন, বন ও পরিবেশবিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন, শিক্ষাবিষয়ক সম্পাদক শামসুন নাহার চাঁপা, উপদপ্তর সম্পাদক ব্যারিস্টার বিপ্লব বড়ুয়া, কার্যনির্বাহী সদস্য দীপঙ্কর তালুকদার, বদর উদ্দিন আহমদ কামরান, অ্যাডভোকেট নজিবুল্লাহ হিরু, অ্যাডভোকেট রিয়াজুল কবির কাওসার, পারভীন জাহান কল্পনা, মেরিনা জামান, উপাধ্যক্ষ রেমন্ড আরেং, সংসদ সদস্য হাবিবে মিল্লাত, চীন আওয়ামী লীগের নেতা তরুণ কান্তি দাস।

 

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে