চাকুসহ ২ যুবককে আটকের পর ছেড়ে দিল পুলিশ

বইমেলা থেকে ১১ জন আটক

  ইউসুফ সোহেল

১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০০:৩২ | প্রিন্ট সংস্করণ

অমর একুশে বইমেলার প্রবেশদ্বার থেকে গত বৃহস্পতিবার বিকালে চাপাতিসহ চার যুবককে আটক করে পুলিশ। প্রত্যক্ষদর্শীর কাছ থেকে এমন তথ্য পাওয়া গেলেও পুলিশের দাবিÑ চারজন নয়, আটক করা হয়েছিল দুজনকে। আর তাদের কাছ থেকে যে ধারালো অস্ত্র পাওয়া গেছে তাও চাপাতি নয়, চাকু। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে বৃহস্পতিবার রাতেই তাদের ছেড়ে দেয় শাহবাগ থানা পুলিশ। ফলে আটক ওই যুবকদের নাম-পরিচয়ও জানা যায়নি।

এদিকে ওই দিন রাত ৮টার দিকে বইমেলা প্রাঙ্গণ থেকে ইসলামী ঐক্যজোট ও খেলাফতে ইসলামীর সাবেক চেয়ারম্যান মরহুম মুফতি ফজলুল হক আমিনীর নাতি মো. আশরাফ উদ্দিনসহ ১১ জনকে আটক করে পুলিশ। তাদের কয়েকজন মাদ্রাসার শিক্ষার্থী, বাকিরা এনজিও কর্মকর্তা ও বেসরকারি বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে কর্মরত। পুলিশের দাবি, ওই ১১ জনকে সন্দেহভাজন হিসেবে আটক করা হয়েছে। পরে তাদের ডিবি কার্যালয়ে পাঠানো হয়। তাদের এখন পুলিশের বিশেষ বাহিনী কাউন্টার টেররিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিসিটিসি) ইউনিট জিজ্ঞাসাবাদ করছে।

বইমেলা থেকে অস্ত্রসহ যুবক আটকের ঘটনায় একাধিক প্রত্যক্ষদর্শী আমাদের সময়কে জানান, বৃহস্পতিবার সন্ধ্যার কিছু আগে বইমেলার প্রবেশদ্বারে সন্দেহজনক হিসেবে চার যুবককে চ্যালেঞ্জ করে পুলিশ। তাদের বয়স ১৮ থেকে ২৫-এর মধ্যে। এ সময় তাদের দেহ তল্লাশি করে দুজনের কাছ থেকে চাপাতির মতো ধারালো অস্ত্র পাওয়া যায়। মুহূর্তের মধ্যে চাঞ্চল্য ছড়িয়ে পড়ে মেলায়। পুরো বইমেলাজুড়ে সতর্ক অবস্থান নেন আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা। নজরদারি বাড়ানোসহ দর্শনার্থীদের তল্লাশি কার্যক্রমে আরও কঠোরতা প্রদর্শন করতে দেখা গেছে তাদের। পরে ওই যুবকদের শাহবাগ থানায় নিয়ে যাওয়া হয়। যুবকদের যখন আটক করা হয়, প্রায় একই সময় বইমেলার একটি স্টলে গণজাগরণ মঞ্চের কয়েকজন নেতাকর্মী একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচনের জন্য মেলায় উপস্থিত ছিলেন।

শুরু থেকেই ঘটনাস্থলে কর্তব্যরত ছিলেন পুলিশের এএসপি (এসবি) মিজান। তবে চাপাতিসহ চার যুবককে আটকের বিষয়ে জানতে চাইলে গতকাল দুপুরে তিনি আমাদের সময়কে বলেন, ওদের আমি ধরিনি, ডিএমপি ধরেছে। তিনি এ বিষয়ে জানতে শাহবাগ থানা পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগের পরামর্শ দেন।

এ বিষয়ে শাহবাগ থানার ওসি আবুবকর সিদ্দিকী বলেন, আটক যুবকদের সংখ্যা চার নয়, দুই। বৃহস্পতিবার তারা বইমেলায় প্রবেশকালে মূল গেটের কর্তব্যরত পুলিশ তাদের তল্লাশি করে দুটি চাকু পায়। তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করে জানা গেছে, যুবকরা গুলিস্তান থেকে চাকু দুটি কিনেছিল এবং বাসায় ব্যবহারের জন্য। কোনো খারাপ কিছু খুঁজে না পাওয়ায় রাতেই তাদের ছেড়ে দেওয়া হয়।

এদিকে শাহবাগ থানা পুলিশ সূত্র জানায়, বৃহস্পতিবার রাত ৮টার দিকে বইমেলার সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের স্টল নম্বর ১৬৭-তে ডিএমপির সিসি ক্যামেরায় ১১ যুবককে একসঙ্গে দেখায় বিষয়টি সন্দেহ হয় পুলিশের। পরে তাদের মেলার ডিএমপি কন্ট্রোলরুমে নিয়ে যাওয়া হয়। থানার ওসিসহ ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা তাদের জিজ্ঞাসাবাদ করেন। বেশ কিছু গুরুত্বপূর্র্ণ তথ্য পাওয়ায় রাত সাড়ে ৯টার দিকে ঢাকা মেট্রো-ছÑ১৪-০৮-৫৬ নম্বর গাড়িতে করে ওই ১১ জনকে ডিবি পুলিশের রমনা জোনাল টিমের (দক্ষিণ বিভাগ) কাছে হস্তান্তর করা হয়।

সূত্রটি আরও জানায়, আটক ১১ জনের মধ্যে মরহুম মুফতি ফজলুল হক আমিনীর নাতি মো. আশরাফ উদ্দিনও রয়েছেন। তার বাবার নাম মৃত জসিম উদ্দিন। তিনি রাজধানীর লালমাটিয়া মাদ্রাসার ছাত্র। ওই এলাকায়ই থাকেন। আটক অন্যরা হলেনÑ বদরুল জামানের ছেলে জাহিদুদ জামান। থাকেন হাজারীবাগের বাড্ডা নগরে। বেসরকারি একটি প্রতিষ্ঠানে কর্মরত তিনি। গ্রামের বাড়ি রাজশাহীর ঘোড়ামারার শাহেবগঞ্জের ফুতকীপাড়ায়। মাজাহারুলের বাবার নাম আব্দুল সালাম। তিনি তামিরুল মিল্লাত মাদ্রাসা-টুঙ্গির নবম শ্রেণির ছাত্র। গ্রামের বাড়ি আমিনবাজারের সামজিত রোডে। ইসতেকার জামানের বাবার নাম আবু রাহেন। থাকেন ময়মনসিংহের ফুলবাড়িয়ার কালিবাজাইনে। আব্দুল্লাহর বাবার নাম ইউনুস জাহাঙ্গীর। পেশায় ব্যবসায়ী এ যুবক কাকরাইলের গাউসিয়া ডাইনি সিটির বাসিন্দা। মোহাম্মদপুরের তাজমহল রোডের বাসিন্দা মাহামুদুল হুদার বাবার নাম শামসুল হুদা। গ্রামের বাড়ি ব্রাহ্মণবাড়িয়ার কসবা থানাধীন শহীদাবাদে। আ. রহমান নর্দান জেনারেল ইন্ডাস্ট্রিতে কর্মরত। তার বাবার নাম সালাউদ্দিন। থাকেন নারায়ণগঞ্জের বন্দর থানার এনায়েতনগরে। তার গ্রামের বাড়ি নোয়াখালীর বেগমগঞ্জের মির্জানগরে। ধানম-ির ফরিদাবাদ মাদ্রাসার ছাত্র আটক মো. আব্দুর রহমানের বাবার নাম আ. খালেক। গ্রামের বাড়ি লালবাগের খাজে দেওয়ান প্রথম লেনে। গে-ারিয়ার ঢালকানগর মাদ্রাসার ছাত্র মো. আহম্মদ উল্লাহর গ্রামের বাড়ি ভোলার চরফেশনের অফিসারপাড়ায়। তার বাবার নাম আ. রউফ। থাকেন দক্ষিণ কেরানীগঞ্জ এলাকায়। মতিউর রহমানের ছেলে মো. জুবায়ের থাকেন দক্ষিণখানের ফায়দাবাদের খানপাড়ায়। এনজিওতে কর্মরত মো. আবুবকর সিদ্দিক থাকেন মোহাম্মদপুরের ইকবাল রোডে। তার বাবার নাম মো. নুরুন্নবী। গ্রামের বাড়ি লক্ষ্মীপুরের রায়পুর থানাধীন কাঞ্চনপুরে।

১১ যুবককে আটকের সত্যতা নিশ্চিত করে গতকাল শাহবাগ থানার ওসি আবুবকর সিদ্দিকী বলেন, তাদের গোয়েন্দা (ডিবি) পুলিশের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

মরহুম মুফতি ফজলুল হক আমিনীর নাতি আশরাফ উদ্দিনকে আটকের বিষয়ে জানতে গতকাল সন্ধ্যায় ইসলামী ঐক্যজোটের ভাইস চেয়ারম্যান আবুল হাসনাত আমেনীর ব্যবহৃত দুটি মোবাইল ফোনে একাধিকবার যোগাযোগের চেষ্টা করেও বন্ধ পাওয়া যায়। ফলে তার মন্তব্য জানা সম্ভব হয়নি।

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে