অপহরণের ২৭ ঘণ্টা পর মায়ের কোলে

  নিজস্ব প্রতিবেদক

২০ মে ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ২০ মে ২০১৭, ০০:১৬ | প্রিন্ট সংস্করণ

কেরানীগঞ্জ থেকে অপহৃত ৩ মাস বয়সী শিশুকন্যা শিন ২৭ ঘণ্টা পর ফিরল মায়ের কোলে। একমাত্র বুকের ধনকে ফিরে পেয়ে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন মা রিতু ইসলাম মিতু। সন্তানকে বুকে জড়িয়ে ধরে বলতে থাকেন, ‘আর কোনোদিন বুকের আড়াল হতে দেব না তোকে।’ গতকাল সকালে রাজধানীর কারওয়ানবাজারে র‌্যাবের মিডিয়া সেন্টারে সংবাদ ব্রিফিংয়ের সময় এমন দৃশ্যের অবতারণা হয়।

গত বুধবার ঢাকার কেরানীগঞ্জের নামাবাড়ী রিভারভিউ সোসাইটির সাততলার ফ্ল্যাট থেকে অপহৃত হয় শিশু শিন। এখানে ভাড়া থাকেন শাখাওয়াত হোসেন ও রিতু ইসলাম দম্পতি।

মিডিয়া সেন্টারে রিতু ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, ৭-৮ মাস আগে বাসার টিভি ও ফ্রিজ মেরামত করে দেওয়ার সূত্র ধরে সুমন নামে এক মেকানিকের সঙ্গে তাদের পরিচয় হয়। এর পর থেকে বাসার কোনো ইলেক্ট্রনিক সামগ্রীর সমস্যা দেখা দিলে তাকে খবর দেওয়া হতো। সুমন বাসায় এসে মেরামত করে দিয়ে যেতেন। গত বুধবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে সুমন তার বাসায় আসেন। দরজা খুলে দিতেই তাকে জিজ্ঞেস করেন, ‘ভাবি, কেমন আছেন? কোনো সমস্যা আছে কিনা?’ কোন সমস্য নেই জানিয়ে সুমনকে তিনি ড্রইংরুমে বসতে বলেন। এ সময় কোলে থাকা শিশু শিনকে ড্রইংরুমের খাটের ওপর শুইয়ে রেখে পাশের কক্ষে যান জামা আনতে। ফিরে এসে দেখেন রুমের ছিটকিনি বাইরে থেকে আটকানো। কয়েকবার দরজা খুলে দেওয়ার অনুরোধ জানিয়ে ড্রইংরুম থেকে কোনো সাড়াশব্দ না পেয়ে চিৎকার করে সাহায্য চান। একপর্যায়ে তার চিৎকার শুনে পাশের ফ্ল্যাট থেকে হেমা নামের এক নারী এসে দরজার ছিটকিনি খুলে দেন। ড্রইংরুমে এসে দেখেন শিন কোথাও নেই। সুমনকেও না দেখে দ্রুত বাড়ির বাইরে গিয়ে কাউকে খুঁজে পাননি। তাৎক্ষণিক বিষয়টি শিনের বাবা শাখাওয়াত হোসেনকে জানালে তিনি বাসায় ছুটে আসেন। প্রায় ১ ঘণ্টা পর শিনের মায়ের মোবাইল ফোনে ফোন করে ২ লাখ টাকা মুক্তিপণ দাবি করে সুমন। বিষয়টি পুলিশ বা র‌্যাবকে জানালে শিনকে মেরে ফেলা হবে বলে হুমকি দেওয়া হয়। পরে তারা বিষয়টি র‌্যাবকে জানান।

র‌্যাব-১০ এর অধিনায়ক অতিরিক্ত ডিআইজি জাহাঙ্গীর হোসেন মাতুব্বর বলেন, বৃহস্পতিবার দুপুরে র‌্যাব-১০ এর একটি টিম মুক্তিপণ পরিশোধের ফাঁদ পেতে দক্ষিণ কেরানীগঞ্জের গোলাম বাজার কাঁচাবাজারের লাকড়িঘরের কাছ থেকে অপহরণকারী সুমনকে গ্রেপ্তার করে। পরে তাকে জিজ্ঞাসাবাদ করলে সে অপহরণের কথা স্বীকার করে। পরে তার দেওয়া তথ্যে রাত সাড়ে ৯টার দিকে গোলামবাজারের হাবিব কলোনির গলিতে হাবিব মিয়ার দোতলার বাড়ির দ্বিতীয় তলার ভাড়াটিয়া আব্দুল হক নলীর বাসা থেকে শিনকে উদ্ধার করা হয়। শিশুটির শরীরে জ্বর আসায় সারাক্ষণই কান্নাকাটি করছিল। পরে রাতেই শিশুটির বাবা-মাকে খবর দেওয়া হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে