রানে ফেরাটাই আমার বড় চ্যালেঞ্জ

  অনলাইন ডেস্ক

১৮ জুলাই ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৮ জুলাই ২০১৭, ০০:১৩ | প্রিন্ট সংস্করণ

চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে নিজের ছায়া হয়ে ছিলেন। চার ম্যাচ খেলেছেন। মোট রান করেছেন ৩৪। সর্বোচ্চ ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ২৮। ব্যাট হাতে নিজেকে মেলে ধরতে পারছেন না জাতীয় দলের বাঁ-হাতি এই ওপেনার। অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজকে সামনে রেখে শুরু হওয়া ক্যাম্পে এখন ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজে সুযোগ পেলে নিজেকে প্রমাণের চেষ্টা করবেন। শুধু ব্যাট হাতেই নয়, বল হাতেও দলে অবদান রাখতে চান বলে জানিয়েছেন সৌম্য সরকার। বিস্তারিতÑ

অস্ট্রেলিয়া ও দক্ষিণ আফ্রিকা সিরিজকে সামনে রেখে শুরু হয়েছে ক্যাম্প। এখন আপনারা ফিটনেস নিয়ে কাজ করছেন। একজন খেলোয়াড়ের জন্য ফিটনেস ক্যাম্প কতটা জরুরি বলে মনে করেন?

সৌম্য: ফিটনেস ক্যাম্প তো সবসময় একজন ক্রিকেটারের জন্য জরুরি। টানা ক্রিকেট খেলার জন্য এই ধরনের ক্যাম্প অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। এখানে নিজেকে ফিট করে নেওয়ার সুযোগ পাওয়া যায় অনেক বেশি। আমি সেভাবেই চেষ্টা করছি। নিজের দুর্বল জায়গাগুলো নিয়ে এখন কাজ করছি।

সামনে অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ রয়েছে। এ সিরিজ নিয়ে কী ভাবছেন?

সৌম্য: আমরা চ্যাম্পিয়নস ট্রফি খেললাম। সামনে এখন অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজ খেলব। দুটি ভিন্ন ফরম্যাটের খেলা। এখন আপাতত ফিটনেস ক্যাম্প নিয়ে চিন্তা করছি। নিজেকে কতটুকু ফিট করে নেওয়া যায় সেগুলো নিয়ে ভাবছি। যদি সুযোগ পাই চেষ্টা করব অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে ভালো কিছু করার।

সাদা জার্সিতে সুযোগ পেলে কোন পজিশনে ব্যাটিং করতে চান?

সৌম্য: ওয়ানডে ও টেস্টের মধ্যে পার্থক্য আছে। ওয়ানডেতে ওপেনিংয়ে খেললেও টেস্টে আমি নিচে খেলেছি। টিম যেখানে নামাচ্ছে হয়তো মনে করছে আমি এখানেই বেটার। আমার কোনো সমস্যা নেই। যে কোনো পজিশনে খেলতে আমি প্রস্তুত।

চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে ব্যাট হাতে নিষ্প্রভ ছিলেন। সমস্যা কী বলে মনে হচ্ছে? নিজের ব্যাটিং নিয়ে নিশ্চয় কাজ করতে হবে?

সৌম্য: কাজ তো করতেই হবে। একদিন হয়তো ভালো করছি, একদিন হচ্ছে না। চ্যাম্পিয়নস ট্রফিতে হয়তো খারাপ করেছি। তার আগের সিরিজটা আবার ভালো করেছি। সবাই হয়তো বলছে। আমি সবার কথা শুনছি না। আমি নিজেই উপলব্ধি করছি আমার সমস্যা আমাকেই বের করতে হবে।

রেগুলার যদি একই রকম আউট হতাম, তা হলে বুঝতাম আমার একই রকম সমস্যা। কিন্তু আউটগুলোতে এক রকম নয়। এ জন্য সমস্যাটা ভিন্ন। আমি চেষ্টা করি সমস্যাগুলো সমাধান করার। আমাকে রান করতে হবে। এটাই এখন আমার সবচেয়ে বড় চ্যালেঞ্জ। আমার খেলার ধরনটাই এমনÑ যখন রান করি তখন ব্যাটিং দেখতে হয়তো ভালো লাগে, যখন রান না পাই তখন হয়তো ব্যাটিংটা দেখতে বাজে লাগে।

অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে টেস্ট সিরিজকে কীভাবে দেখছেন?

সৌম্য: আমরা তো সাধারণত এমনিতেই টেস্ট কম খেলি। তার মধ্যে অস্ট্রেলিয়ার বিপে আরও কম খেলি। গত কিছুদিন ধরে আমরা টেস্ট ভালো খেলছি। সবশেষ দেশের মাটিতে ইংল্যান্ডের বিপে আমরা টেস্ট সিরিজে ভালো করেছি। এটা আমাদের জন্য অনেক বড় সুযোগ। আমাদের এখানে তারা আসবে। তাদের বিপে খেলতে আমরা মুখিয়ে আছি। আশা করি আমরা ভালো ক্রিকেট খেলে অস্ট্রেলিয়াকে হারাতে পারব।

টেস্টে সুযোগ পেলে আপনার লক্ষ্য কী থাকবে?

সৌম্য: যেহেতু অস্ট্রেলিয়ার বিপে আমার প্রথম টেস্ট সিরিজ হবে, আমি এটাকে স্মরণীয় করে রাখতে চাই। আমার ব্যাটিংয়ের মাধ্যমে যেন আমরা দেশের মাটিতে অস্ট্রেলিয়ার সঙ্গে প্রথম কোনো টেস্ট জিততে পারি সেই চেষ্টাই করব।

আপনি তো বোলিংও করেন?

সৌম্য: আমি অনুশীলনে সবসময় বোলিং করে যাচ্ছি। যেদিন আমি সুযোগ পাব চেষ্টা করব বোলিং দিয়ে কিছু করে দেখাতে। বোলিং দিয়ে এখনো আমি নিজেকে প্রমাণ করতে পারিনি। যেদিন আমি সুযোগ পাব চেষ্টা করব বোলিং দিয়ে নিজেকে প্রমাণ করার। এটাই এখন আমার চ্যালেঞ্জ।

দুটি কাজ একসঙ্গে করা কিছুটা কঠিন। এর জন্য ফিটনেসটা ভালো থাকা লাগে। তার পরও আমাকে করতে হবে। কারণ আমি অলরাউন্ডার।

সতীর্থ হিসেবে তামিম ইকবালের কাছ থেকে নিশ্চয় ব্যাটিংয়ের অনেক কিছুই শেখার আছে?

সৌম্য: অবশ্যই, তার কাছ থেকে অনেক কিছু শেখার আছে। সে যখন স্ট্রাইকে থাকি আমি তখন তার ব্যাটিং দেখি আর চিন্তা করি আমি এই বলটাকে কী করতাম! টিমের পরিস্থিতি উনি খুব দ্রুত ধরতে পারেন। আমি উনার কাছে মাঠের বাইরে কিংবা ভেতরে শেখার চেষ্টা করি। তার আগের খেলা হাইলাইটসগুলো এখন আমি দেখি।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে