মন্ত্রীদের কথা কম কাজ বেশি করার নির্দেশ প্রধানমন্ত্রীর

  নিজস্ব প্রতিবেদক

১৮ জুলাই ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৮ জুলাই ২০১৭, ১০:২৪ | প্রিন্ট সংস্করণ

দলীয় এমপি-মন্ত্রীদের কথা কম ও কাজ বেশি করার নির্দেশ দিয়ে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেছেন, নির্বাচন কমিশনের রোডম্যাপ নিয়ে সবার কথা বলার দরকার নেই। দলের সাধারণ সম্পাাদক আছেন, এ বিষয়ে তিনিই কথা বলবেন।

মন্ত্রীদের উদ্দেশে প্রধানমন্ত্রী বলেন, আগামী জাতীয় সংসদ নির্বাচনকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নিন। প্রত্যেকের নির্বাচনী এলাকায় উন্নয়ন কর্মকা- তুলে ধরতে হবে। আওয়ামী লীগ জনগণের উন্নয়নে কাজ করে সেটি বুঝিয়ে দিতে হবে। আগামী নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্র হতে পারে, সবাইকে সতর্ক থাকতে হবে।

গতকাল সোমবার প্রধানমন্ত্রীর সভাপতিত্বে মন্ত্রিসভার নিয়মিত বৈঠক শেষে অনির্ধারিত আলোচনায় এসব বিষয় উঠে আসে। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক মন্ত্রী-প্রতিমন্ত্রীর সঙ্গে আলাপকালে এসব তথ্য জানা গেছে।

শেখ হাসিনা বলেন, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া নিজের মামলা মোকদ্দমার ভয়ে লন্ডনে চলে গেছেনÑ এটা জনগণের সামনে তুলে ধরতে হবে। আগামী নির্বাচন যাতে না হয় সে জন্য নির্বাচন নিয়ে বিভিন্ন ধরনের ষড়যন্ত্রের চেষ্টা হতে পারে। তবে এটা নিয়ে আমাদের ভয় পেলে হবে না। ভয়ভীতির ঊর্ধ্বে থেকে চোখ, কান খোলা রেখে কাজ করার পরামর্শ দেন প্রধানমন্ত্রী।

বৈঠক সূত্রে জানা গেছে, নির্বাচন কমিশন ঘোষিত নির্বাচনী রোডম্যাপের বিষয় নিয়ে মন্ত্রিসভার বৈঠকে আলোচনা শুরু হলে প্রধানমন্ত্রী ছাড়াও অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আব্দুল মুহিত, শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ, কৃষিমন্ত্রী মতিয়া চৌধুরীসহ কয়েকজন সিনিয়র মন্ত্রী এ বিষয়ে কথা বলেন।

প্রধানমন্ত্রী বলেন, সংবিধানের বিধি-বিধানের আওতায় আগামী নির্বাচন হবে। কীভাবে নির্বাচন হবে সেটি সংবিধানেই বলা আছে। এটা নিয়ে তো আর কোনো কথা বলার দরকার নেই। কিছু মানুষ আছে তারা চায় নির্বাচন না হোক। নির্বাচন না হলে আর অনির্বাচিতরা ক্ষমতায় এলে তারা ক্ষমতার ভাগ পায়, তাই তারা নির্বাচন চায় না। সব রাজনৈতিক দল নির্বাচনে আসুক আমরা সেটি চাই। সব দল নির্বাচনে এলে ভালো হয়। কিন্ত কোনো দল যদি নির্বাচনে না আসে তা হলে তো কিছু করার নেই।

মন্ত্রিসভার সদস্যদের মধ্যে ডাক্তার নেই উল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, মন্ত্রিসভায় ইঞ্জিনিয়ারদের আধিক্য আছে, ডাক্তার নেই। বৈঠকে ‘মানবদেহে অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ সংযোজন (সংশোধন) আইন-২০১৭’-এর খসড়ায় চূড়ান্ত অনুমোদন দেওয়া হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে