বড় বন্যার শঙ্কা

হ দুটি নিম্নচাপের সম্ভাবনা হ বন্যারক্ষা বাঁধগুলো মেরামতের নির্দেশ

  মো. মাহফুজুর রহমান

১৩ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৩ আগস্ট ২০১৭, ০০:১৮ | প্রিন্ট সংস্করণ

অন্যান্য বছরের তুলনায় বর্ষাকালে এবার সারা দেশে দ্বিগুণ বৃষ্টি হয়েছে। আরও বৃষ্টি ঝরার আশঙ্কা করা হচ্ছে। কিছু দিন আগেই পানিসম্পদ মন্ত্রণালয় এ নিয়ে সতর্কবার্তা প্রকাশ করে জানায়, আগস্টের তৃতীয় সপ্তাহে বড় ধরনের বন্যা হতে পারে। এমন পূর্বাভাসকে আরও প্রতিষ্ঠিত করল আবহাওয়া অধিদপ্তর। পূর্বাভাস দিয়ে জানানো হয়, এ মাসে স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হতে পারে। ফলে দেশের উত্তর ও উত্তর-পশ্চিমাঞ্চলে এবং উত্তর-পূর্বাঞ্চলে বড় বন্যার শঙ্কা রয়েছে। এরই মধ্যে নতুন নতুন এলাকা প্লাবিত হতে শুরু করেছে।

আগামী মাসেও বন্যার আশঙ্কা করছে আবহাওয়া অধিদপ্তর। স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি আর কমপক্ষে দুটি নিম্নচাপের সম্ভাবনা রয়েছে বঙ্গোপসাগরে, যা শক্তিশালী হয়ে ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এদিকে বড় বন্যার শঙ্কাকে মাথায় নিয়ে তা মোকাবিলায় পানি উন্নয়ন বোর্ড ও জেলা প্রশাসনকে সতর্ক করেছে পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়। সেই সঙ্গে বন্যারক্ষা বাঁধগুলো মেরামতের নির্দেশ দেওয়া হয়েছে। পানিসম্পদমন্ত্রী আনিসুল ইসলাম মাহমুদ বলেছেনÑ যখন যমুনা, পদ্মা ও মেঘনার পানি একসঙ্গে বাড়ে, সাধারণত তখনই বড় বন্যা হয়। তার সঙ্গে যদি অমাবস্যা থাকে, তখন বন্যার প্রকোপ দেখা দেয়। এবারও তেমনটিই হতে পারে।

তথ্য-উপাত্ত বলছে, এ বছর বর্ষার শুরুতেই স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হয়েছে। গেল মাসজুড়েই ঢাকাসহ দেশের বিস্তীর্ণ অঞ্চলে ভারী বৃষ্টি হয়েছে, বৃষ্টি হচ্ছে এ মাসেও। আবহাওয়া অধিদপ্তরের মতে, স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি হওয়ায় ভারী বর্ষণে ঢাকা ও চট্টগ্রামে দুই দফা জলজট হয়। পাশাপাশি পার্বত্য চট্টগ্রামসহ পাঁচ জেলায় ভূমিধস এবং বর্ষণ-পাহাড়ি ঢলে অন্তত ১৩ জেলায় বন্যা হয়েছে। আর গতকাল থেকে পরবর্তী তিনদিন সারা দেশে ভারী বৃষ্টিপাতের সম্ভাবনা রয়েছে।

জানা গেছে, মৌসুমি বায়ু সক্রিয় থাকার কারণেই স্বাভাবিকের চেয়ে বেশি বৃষ্টি হচ্ছে। আরও কয়েকদিন তা অব্যাহত থাকবে। সেই সঙ্গে উজানেও চলছে ভারী বর্ষণ। এর প্রভাব পড়ছে নদ-নদীর ওপর। পানি বেড়েছে ব্রহ্মপুত্র ও যমুনা এবং উত্তর-পূর্ব এলাকার নদী সুরমা ও খোয়াইতে। প্লাবিত হচ্ছে নতুন নতুন এলাকা।

বন্যা পূর্বাভাস ও সতর্কীকরণ কেন্দ্রের উপবিভাগীয় প্রকৌশলী উদয় রায়হান আমাদের সময়কে জানান, ব্রহ্মপুত্র ও যমুনায় পানি বাড়ছে, আগামী তিন দিন তা অব্যাহত থাকবে। ভারী বর্ষণ ও উজানের স্রোত অব্যাহত থাকলে আগামী সপ্তাহে যমুনা পাড়ে বন্যা দেখা দিতে পারে। এ ছাড়া সুরমা-যদুকাটা ও খোয়াই নদীর পানিও বিপদসীমার ওপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে বলে জানান তিনি।

আবহাওয়ার সংক্ষিপ্ত পূর্বাভাসে আরও বলা হয়, মৌসুমি বায়ুর অক্ষ বর্ধিতাংশ পাঞ্জাব, হরিয়ানা, উত্তর প্রদেশ, মধ্য প্রদেশ, বিহার, গাঙ্গেয় পশ্চিম এবং বাংলাদেশ হয়ে উত্তর-পূর্ব দিকে আসাম পর্যন্ত বিস্তৃত। এর একটি বর্ধিতাংশ বিস্তৃত রয়েছে উত্তর বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত। মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝামাঝি অবস্থায় বিরাজ করছে। এর প্রভাবে রাজশাহী, রংপুর, খুলনা, ঢাকা, ময়মনসিংহ, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হাল্কা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে।

আবার দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে অতিভারী বর্ষণ হতে পারে। দেশের বিভিন্ন অঞ্চলের ওপর দিয়ে দক্ষিণ ও দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বয়ে যেতে পারে অস্থায়ীভাবে ঝড়ো হাওয়া। এ অবস্থায় দেশের অভ্যন্তরীণ নদীবন্দরগুলোকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে। এ ছাড়াও ভারী বৃষ্টির কারণে চট্টগ্রাম ও সিলেট বিভাগের পাহাড়ি এলাকার কোথাও কোথাও ভূমিধসের আশঙ্কা রয়েছে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে