ঘুরে দাঁড়ানোর গল্প

মারাকানা ট্র্যাজেডি ও একজন পেলে

  ক্রীড়া ডেস্ক

১৯ আগস্ট ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট : ১৯ আগস্ট ২০১৭, ০০:২১ | প্রিন্ট সংস্করণ

মারাকানা স্টেডিয়ামে ১৯৫০ বিশ্বকাপের ফাইনালে উরুগুয়ের কাছে ২-১ গোলে হেরে যায় ব্রাজিল। স্বাগতিক ব্রাজিল এই ধাক্কা সামলাতে পারেনি। পেলের বাবা রেডিওর সামনে বসে কেঁদেছিলেন। পেলে বাবার হাত ধরে বলেছিলেন, দেখো একদিন আমরা বিশ্বকাপ জিতব। বাবা বলেছিলেনÑ ‘তোমার মা ঠিকই বলে, ফুটবল খেলে কিছু হবে না। কাল থেকে তুমি আমার সাথে কাজে যাবে।’ পরের দিন পেলে বাবার সঙ্গে হাসপাতালে কাজে যান। সেখানেই ফুটবলের প্রাথমিক পাঠ নেন পেলে। ব্রাজিলিয়ানরা ‘জোগো বনিতো’ বা সুন্দর ফুটবলের পূজারি ছিল; কিন্তু ওই হারের পর তারা বুঝতে শিখল গোলও করতে হবে। পেলে নিজেও এই ফুটবলের বড় ভক্ত। সান্তোসে যোগ দেওয়ার পর বড় ধাক্কা খেলেন পেলে। এখানে সবাই এড়িয়ে যেতে চায়। সবাই গোল করতে চায়; কিন্তু পেলে একদিন অসাধারণ দুটি গোল করে বুঝিয়ে দিলেন সুন্দর ফুটবল খেলেই সফল হওয়া সম্ভব। ১৯৫৮ সালে এক কঠিন পরিস্থিতিতে ব্রাজিল ফাইনালে উঠেছে। প্রতিপক্ষ স্বাগতিক সুইডেন। ব্রাজিলের কোচ কোনোভাবেই সুইডেনের ফুটবল-কৌশলের সঙ্গে পেরে ওঠার কথা ভাবতে পারছেন না। কারণ সুইডেন শিফটিংয়ে বিপ্লব এনেছে। খেলার আগের দিন ব্রাজিলের কোচ বললেন, সুইডেন তাদের মতো খেলবে। আমরা আমাদের মতো খেলব। ব্রাজিল ব্রাজিলের মতো খেলবে।’ স্বকীয়তা হারিয়ে নয়; নিজ আলোয় চেষ্টা করে সফল হওয়া যায়। ব্রাজিল ফাইনালে ৫-২ গোলে জয় পায়। পেলে জোড়া গোল করেন। নিজেদের যা রয়েছে তা দিয়ে চেষ্টা করলে সফল হওয়া যায়। ব্রাজিল অন্যের মতো নয়। নিজেদের মতো ফুটবল খেলেই মারাকানা ট্র্যাজেডির দুঃখ ভুলেছে। বাবাকে দেওয়া কথা রাখতে পেরেছেন পেলে।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে