জানা-অজানা

কামিনী রায়

  অনলাইন ডেস্ক

১২ অক্টোবর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

কামিনী রায় একজন প্রথিতযশা বাঙালি কবি, সমাজকর্মী এবং নারীবাদী লেখিকা। তিনি তৎকালীন ব্রিটিশ-ভারতের প্রথম মহিলা স্নাতক ডিগ্রিধারী ব্যক্তিত্ব। কামিনী রায় ছোটবেলা থেকেই ছিলেন মেধাবী, ভাবুক ও কল্পনাপ্রবণ। তিনি মাত্র আট বছর বয়সে কবিতা লিখতে শুরু করেন। তার প্রথম কাব্যগ্রন্থ ‘আলো ও ছায়া’ প্রকাশিত হয় ১৮৮৯ সালে; হেমচন্দ্র বন্দ্যোপাধ্যায়ের ভূমিকা লিখেছিলেন। অমিত্রাক্ষর ছন্দে রচিত ‘মহাশ্বেতা’ ও ‘পু-রীক’ তার দুটি প্রসিদ্ধ দীর্ঘ কবিতা। ‘গুঞ্জন’ তার শিশুতোষ কবিতার সংকলন ও ‘বালিকা শিক্ষার আদর্শ’ একটি প্রবন্ধ গ্রন্থ। সাহিত্যচর্চার পাশাপাশি তিনি সাংস্কৃতিক ও জনহিতকর, বিশেষত নারীকল্যাণমূলক কাজ করতেন। তিনি ১৯২২-২৩ সালে নারীশ্রমিক তদন্ত কমিশনের অন্যতম সদস্য, ১৯৩০ সালে বঙ্গীয় সাহিত্য সম্মেলনে সাহিত্য শাখার সভানেত্রী ও ১৯৩২-৩৩ সালে বঙ্গীয় সাহিত্য পরিষদের সহসভাপতি ছিলেন।

১৮৯৪ সালে সরকারি কর্মকর্তা কেদারনাথ রায়ের সঙ্গে তার বিয়ে হয়। ১৯০৯ সালে কামিনী রায়ের স্বামী মারা যান। স্বামীর এ অকালমৃত্যু তার ব্যক্তিজীবন ও সাহিত্যিক জীবনকে গভীরভাবে প্রভাবিত করে। সাহিত্যে অসাধারণ অবদানের জন্য তিনি কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘জগত্তারিণী পদক’ (১৯২৯) লাভ করেন। তার বাবা চ-ীচরণ সেন ছিলেন ঔপন্যাসিক। পেশায় চ-ীচরণ ছিলেন বিচারক। কামিনী রায় ১৮৬৪ সালের ১২ অক্টোবর বরিশালের বাস-া গ্রামে জন্মগ্রহণ করেন। ১৯৩৩ সালের ২৭ সেপ্টেম্বর তার মৃত্যু হয়।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে