পো শা কে পূজার সাজ

  অনলাইন ডেস্ক

২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

শরতের কাশফুলের শুভ্রতা, শঙ্খধ্বনি আর ঢাকের আওয়াজ বলে দিচ্ছে পূজা এসে গেছে। মাত্র কয়েকটা দিন অপেক্ষার পালা। মাকে সাজাতে যেমন শিল্পীর তুলির শেষ আঁচড়ের ছোঁয়া বাকি তেমনি পূজার আয়োজনে ষষ্ঠী থেকে বিজয়া দশমী পর্যন্ত আপনাকে সাজাতে প্রস্তুত এখন দেশীয় ঘরানার ফ্যাশন হাউসগুলো। পূজার আয়োজনে পোশাকের রঙ নকশা দরদাম থেকে শুরু করে দেশীয় ফ্যাশন হাউস এবং

শপিংমলগুলোর আয়োজন নিয়ে বিস্তারিত জানাচ্ছেন নিলয় রহমান

এবারের পূজায় বেশির ভাগ ফ্যাশন হাউসগুলো থিম বেইস কাজ করেছে। ফ্যাশন হাউসগুলো ঘুরে দেখা গেল লাল-সাদার পাশাপাশি গাঢ় রঙের ব্যবহার এবার বেশি হয়েছে। সময়টা শরতের দখলে হলেও প্রকৃতিতে এখনো গরমের প্রাদুর্ভাব বেশি, এর সঙ্গে রয়েছে বৃষ্টি। তাই দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলো সুতি কাপড়কে বেশি প্রাধান্য দিয়েছে। সুতির সঙ্গে যুক্ত হয়েছে হাফসিল্ক, এন্ডি, ভিসকস আর মিক্সস কাপড়। নকশার ক্ষেত্রে বেশি করা হয়েছে স্ক্রিনপ্রিন্ট। ফ্যাশন হাউস বিশ^ রঙ ষষ্টি থেকে বিজয়া দশমী পর্যন্ত সাজিয়েছে তাদের পোশাকের পসরা। ডিজাইনার বিপ্লব সাহা বলেন, ষষ্টি পূজার দিন ঘট বসানো হয় সে কারণে নারীদের সুতির লাল সাদা শাড়ি পরলে ভালো লাগবে। সপ্তমির সকালে অঞ্জলি দেওয়া হয়। অঞ্জলি মানেই মনের একটা পবিত্রতার ব্যাপার। তাই হালকা রঙের সুতির পোশাকে যে কাউকে মানিয়ে যাবে। পূজার প্রতিটা দিনে নতুন পোশাক পরার ব্যাপার থাকে; তাই বিশ^ রঙ পোশাকের দামের দিকে নজর দিয়েছে। সকাল বেলায় সুতির হালকা রং আর নকশা পোশাক এবং রাতের বেলা একটু ভারী কাজের বর্ণিল পোশাকের আয়োজন করেছে বিশ^ রঙ। এবার তারা কান্তজির মন্দিরসহ ভারতবর্ষেও বিভিন্ন ধরনের মন্দিরের মোটিভ নিয়ে কাজ করেছে। স্ক্রিনপ্রিন্টের নকশায় কখনো উঠে এসেছে মন্দিরের দেব-দেবী, নামাবলি আবার কখনো পৌরাণিক মোটিভ । রং হিসেবে প্রাধান্য পেয়েছে কমলা, অ্যাশ, লাল ধূসর আর গেরুয়া। বিশ^ রঙের পূজার পোশাক মিলবে ১৫০০ থেকে ৬০০০ টাকার মধ্যে। ফ্যাশন হাউস অঞ্জনস কাজ করেছে অ্যাম্বয়ডারি ও স্ক্রিনপ্রিন্ট নিয়ে। ডিজাইনার শাহীন আহম্মেদ বলেন, যেহেতু পূজার থিমগুলো অ্যাম্বয়ডারিতে ভালো করে ফুটিয়ে তোলা যায় না, তাই স্ক্রিনপ্রিন্টের মাধ্যমে কিছু হিন্দুধর্মীয় মোটিভ জ্যামেতি ও ফ্লোরাল কাজ করা হয়েছে। গরমের কারণে সুতি, বেক্সি ভয়েল আর এ›িড নিয়ে বেশি কাজ করেছে অঞ্জনস। রং হিসেবে লাল সাদা আর বাসন্তিকে বেছে নেওয়া হয়েছে। শাহীন আহম্মেদ বলেন, সার্বজনীন দুর্গা পূজায় সবার ক্রয়ক্ষমতার কথা মাথায় রেখে আমরা পোশাকের দাম নির্ধারণ করেছি। অঞ্জনসের সালোয়ার-কামিজ পাওয়া যাবে ২৫০ থেকে ৪৫০০ টাকায়, শাড়ি ১০০০ থেকে ৬০০০ টাকায় আর পাঞ্জাবি ১০০০ থেকে ১৫০০ টাকায়। দেশীয় মোটিভ আর থিম বেইস কাজ করা আরেকটি ফ্যাশন হাউস হলো ক্রে ক্রাফট। এবারের পূজায় তারাও কাজ করেছে কান্তজির মন্দিরের বিভিন্ন ফর্ম নিয়ে।

পোশাকের নকশায় কখনো উঠে এসেছে মন্দিরের জানালা, কখনো পিলার আবার কখনো মন্দিরের গেট। এই পুরো নকশাই ফুটিয়ে তোলা হয়েছে স্কিনপ্রিন্টে। জানালেন, ক্রে ক্রাফটের ডিজিএম শাহজাদা খান স্বাধীন। তিনি বলেন, এবার লং প্যাটার্ন, এ লাইন, আনারকলি কাটিং করা হয়েছে বেশি। নকশার ক্ষেত্রে স্টাকচারাল ফর্ম প্রাধান্য পেয়েছে। পূজার কালেকশনের প্রধান দিক হচ্ছে পরিবারের জন্য পোশাক। পরিবারের নারী আর পুরুষের জন্য লাল সাদা সিরিজের জোড়া পোশাক তৈরি করেছি আমরা। লাল-সাদার পাশাপাশি অফহোয়াইট, অরেঞ্জ, গোল্ডেন রং প্রাধান্য পেয়েছে। টিনএজারদের জন্যও মিলবে কাটিং বেইস পোশাক। ক্রে ক্রাফটের নজরকাড়া পূজার পোশাক পাওয়া যাবে ১৮০০ থেকে ৪৫০০ টাকার মধ্যে। দেশীয় ফ্যাশন হাউসগুলোর খোঁজ তো জানা গেল। এবার দেখা যাক, শপিংমলগুলোয় পূজা উপলক্ষে কেমন পোশাক এসেছে। যমুনা ফিউচার পার্কের দোকানগুলোয় দেখা গেল টিনএজারদের জন্য এসেছে প্রাচ্য আর পাশ্চাত্যের মিশেলে ফিউশনধর্মী পোশাক। এসব পোশাকের কিছু অংশ দেশীয় তৈরি আর কিছু আমদানি করা। মাঝ বয়সী আর বয়স্কদের পোশাকে সুতির পাশাপাশি লিনেন, এন্ডির আর সিল্কর ব্যবহার হলেও টিনদের পোশাকে জর্জেট সিল্ক, ভেলবেট আর মিক্সড কাপড় বেশি ব্যবহার হয়েছে। মেয়েদের মার্কেট হিসেবে পরিচিত নিউমার্কেট আর গাউসিয়া ঘুরে দেখা গেল সুতি, লিনেনের পাশাপাশি অরগেন্ডি কাপড়ের পোশাক বেশি চলছে। অরগেন্ডির সঙ্গে প্রিন্ট আর ভারী অ্যাম্বয়ডারির কাজ করা হয়েছে। দেশীয় পোশাকের মার্কেট হিসেবে পরিচিত শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেটে ছেলেদের জন্য এসেছে অ্যাম্ব্রয়ডারি আর স্ক্রিনপ্রিন্টের পাঞ্জাবি। টি-শার্টের নকশায় দেখা গেল সত্যের চিহ্ন, পৌরাণিক কাহিনিসহ নানা ধরনের ফর্ম। মেয়েদের জন্য আছে সালোয়ার-কামিজ, কুর্তি, শাড়ি। প্রিন্টের পাশাপাশি সুতার কাজও টাইডাই প্রাধান্য পেয়েছে। এসব পোশাকের দাম তুলনামূলকভাবে অন্যগুলোর থেকে কম।

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে