এবারের পূজা আমার জন্য অনেক স্পেশাল

প্রকাশ | ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০

সমরজিৎ রায়, সংগীতশিল্পী

শিল্পী সমরজিৎ রায়। পূজায় ব্যস্ত গান নিয়ে। এবার পূজা উপলক্ষে ‘শারদীয়া’ শিরোনামে তার একটি গান সম্প্রতি ইউটিউবে প্রকাশিত হয়েছে। সাম্প্রতিক ব্যস্ততা তাই গান নিয়েই। তবু পূজা বলে কথা। নতুন পোশাকে ধূপ-ধুনোর গন্ধে সুরের মূর্ছনা ছড়াতে ঘুরছেন ম-পে ম-পে। আজকের তারার স্টাইলে উঠে এসেছে সমরজিৎ রায়ের পূজা উদযাপনের কথা। সাক্ষাৎকার নিয়েছেনÑ লাবণ্য লিপি

শারদীয় সুরে

এবার পূজায় ইউটিউবে রিলিজ হয়েছে সমরজিৎ রায়ের পূজার গান। এ প্রসঙ্গে তিনি বলেন, অনেক দিন ধরেই ভাবছিলাম দুর্গাপূজা নিয়ে একটি গান করব, যা প্রতিবছর পূজার সময় ম-পে ম-পে বাজবে। গীতিকার জিকে দত্তকে এ কথা জানানোর পর উনি মা দুর্গাকে নিয়ে সুন্দর একটি গান লিখে দিলেন। পরে আমি গানটির সুর করে ফেলি এবং সংগীত পরিচালক জেকে মজলিশ গানটির সংগীতায়োজন করেন। গানের ট্র্যাক তৈরি হওয়ার পর মনে হলো গানটি দ্বৈত কণ্ঠে হলে বেশি ভালো লাগবে। সঙ্গে সঙ্গে ‘সনি টিভি’র রিয়েলিটি শো ‘ফেইম গুরুকূল’-এর বিজয়ী এবং ভারতের জনপ্রিয় শিল্পী রূপরেখা ব্যানার্জীকে কলকাতায় ফোন করে জানাই কথাটি। পরে কলকাতার জেএমডি স্টুডিওতে ওর রেকর্ডিংটা সেরে নিই। ১৮ সেপ্টেম্বর সিডি চয়েজের ব্যানারে গানটি ইউটিউবে প্রকাশিত হয়।

পূজার গানে পূজার ঘ্রাণে

ম-পে ম-পে ঘুরে শিল্পী শুধু পূজার ঘ্রাণই নিচ্ছেন না। শুনছেন নিজের গাওয়া গানটিও কোথাও কোথাও আবার গাইবেনও। তিনি বলেন, যেহেতু এ পূজায়ই গানটি রিলিজ হয়েছে, তাই স্বাভাবিকভাবেই এবারের পূজা আমার জন্য অনেক স্পেশাল। গত বছরের পূজা বাবা-মায়ের সঙ্গে কাটালেও বিভিন্ন জায়গায় অনুষ্ঠানের কারণে এবারের পূজা আমার ঢাকাতেই কাটছে। ২৮ সেপ্টেম্বর অষ্টমীর রাতে ১১টায় পূজার গানসহ আর বেশ কিছু জনপ্রিয় গান নিয়ে হাজির হব মাছরাঙা টেলিভিশনে ‘তোমায় গান শোনাবো’ অনুষ্ঠানে।

পূজায় কেনা নতুন পোশাক

সমরজিৎ বলেন, আসলে কোনও উৎসবে আমার তেমন কেনাকাটা করা হয় না। তবু পূজা বলে কথা। বিশেষ দিনগুলোয় পাঞ্জাবি এবং ফতুয়া পরতে ভালো লাগে। কয়েক দিন আগে কলকাতা থেকে কিছু কেনাকাটা করেছি এবং কিছুটা ঢাকার বসুন্ধরা সিটি মল থেকে। পাঞ্জাবি বা ফতুয়া পরে ম-পে গেলে পূজা পূজা আমেজটা পাই এবং মনে খুব ভালো লাগা কাজ করে।

প্রিয় খাবার

পূজা মানেই ঘোরাঘুরি আর মজার মজার খাবার। পছন্দের খাবার প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আসলে আমি খুব একটা রসনাবিলাসী নই। কোনো ধরনের মাংসই আমি খাই না। আবার সব রকমের মাছও খাই না। তবে ইলিশ আমার ভীষণ প্রিয়। আর যে কোনো সবজিই আমার ভীষণ ভালো লাগে। তার মধ্যে ফুলকপি অন্যতম। তবে পূজায় ঘুরতে গেলে মাছ ভাজা, দই ফুসকা, ঝালমুড়ি এসব খেতে ভালো লাগে।

অবসরে আনন্দে

পূজায় কোথায় ঘুরতে যান জানতে চাইলে তিনি বলেন, অনুষ্ঠানের ব্যস্ততার কারণে এবারের পূজায় তেমন ঘুরতে পারছি না। তবে ঢাকার কিছু পূজা মন্ডপ তো অবশ্যই দেখব। আসলে খুব বেশি ভিড় আমার কোনোকালেই পছন্দ ছিল না। তাই যে ম-পে তুলনামূলকভাবে একটু কম ভিড় হয় সেই ম-পগুলোই বেছে নিই ঘোরার জন্য। পূজাম-পে ঢাকের শব্দে যখন মা দুর্গাকে আরতি দেওয়া হয় এবং মানুষের চোখে-মুখে খুশি যে শান্তির ছাপ দেখি, তখন মন সত্যিই খুব প্রসন্ন হয়।