খোঁজখবর

  অনলাইন ডেস্ক

১৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৭, ০০:০০ | প্রিন্ট সংস্করণ

একুশের পোশাক নিয়ে অঞ্জন’স

শিশু-কিশোর, তরুণ-তরুণীদের জন্য ভাষার মাসে অঞ্জন’স এনেছে ‘একুশের চেতনা’ শীর্ষক পোশাক। সাদা, কালো আর লাল রঙকে প্রাধান্য দিয়ে পোশাকের ক্যানভাসে ফুটিয়ে তোলা হয়েছে বাংলা বর্ণমালাসহ বিভিন্ন ডিজাইন মোটিভ। ছোটদের জন্য একুশের পোশাকের আয়োজনে থাকছে শার্ট, ফতুয়া, সালোয়ার-কামিজ, পাঞ্জাবি। বনানী ১১ নম্বর অঞ্জন’সের আউটলেটসহ সব আউটলেটে ২১ ফেব্রুয়ারি পর্যন্ত পাওয়া যাবে পোশাকে ক্যালিগ্রাফিভিত্তিক এ আয়োজন।

বর্ণমালা নকশায় রঙ বাংলাদেশ

রঙ বাংলাদেশ এবার ভাষার মাসে নতুন সংগ্রহ সাজিয়েছে বর্ণমালাকে নকশা বিষয় করে। ভাষার মাসের বিশেষ রঙ হিসেবে সাদা আর কালো আমাদের ভাবনার জগৎকে অধিকার করে আছে। সেই সাদা আর কালোর সঙ্গে এ বছরের একুশে সংগ্রহে আরও যোগ করা হয়েছে ছাই রঙ বা অ্যাশ আর অফহোয়াইট। এবারের সংগ্রহে থাকছে পুরুষ আর মেয়েদের ট্র্যাডিশানাল ও ওয়েস্টার্ন পোশাক। মেয়েদের জন্য তৈরি করা হয়েছে সুতি ও হাফসিল্ক শাড়ি, থ্রিপিস, সিঙ্গেল কামিজ, লং-স্কার্ট ও টপস। অন্যদিকে ছেলেদের জন্য রয়েছে পাঞ্জাবি, শার্ট, আর টি-শার্ট। এ ছাড়া ফ্রক, স্কার্ট-টপস, পাঞ্জাবি, শার্ট ও টি-শার্ট করা হয়েছে শিশুদের জন্য। ব্লকপ্রিন্ট, স্ক্রিনপ্রিন্ট, মেশিন ও হ্যান্ড এমব্রয়ডারিতে করা হয়েছে জমিন অলঙ্করণ। এই মাধ্যমগুলোতে ভ্যালু এডিশনের পর প্রতিটি পোশাকের ডিজাইনকে মাত্রা দেওয়ার চেষ্টা করা হয়েছে নানা অনুষঙ্গের সন্নিবেশে। রঙ বাংলাদেশের একুশে সংগ্রহ পাওয়া যাবে রঙ বাংলাদেশের ঢাকা ও ঢাকার বাইরের যে কোনো আউটলেটে। আর ঘরে বসে পেতে চাইলেও রয়েছে সে ব্যবস্থা। রঙ বাংলাদেশের ওয়েবসাইটে গিয়ে অর্ডার করতে পারেন। তার পর পেয়ে যাবেন ঘরে বসে। আর ক্যাশ অন ডেলিভারির সুযোগ তো রয়েছেই।

একুশেতে এড্রয়েট

একুশের চেতনাকে ধারণ করে এড্রয়েট তাদের শোরুমগুলো সাজিয়েছে দিবস উপযোগী পোশাক দিয়ে। বড়দের পাশাপাশি ছোটদের পোশাকেও নিয়ে আসা হয়েছে একুশের বিভিন্ন চিত্র। যাতে করে শিশুরাও এখন থেকেই একুশ সম্পর্কে জানতে পারে। শাড়ি, পাঞ্জাবি, সালোয়ার-কামিজ, ফতুয়া, টি-শার্ট, শার্ট প্রভৃতি পোশাকে বিভিন্ন একুশের মোটিফ ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। এবারের ডিজাইনের প্রধান বৈশিষ্ট্য হচ্ছে, বাংলা সাহিত্যের উদ্ধৃতি, আবার অক্ষর বিন্যাসে তৈরি করা হয়েছে চেক বা স্ট্রাইপ। পাশাপাশি বিভিন্ন মাধ্যমেও ব্যবহার করা হয়েছে একুশ লেখাটিকে। ব্লক, এপলিকে, এমব্রয়ডারি বা কয়েকটি মাধ্যমকে একসঙ্গে ব্যবহার করা হয়েছে। রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে সাদা, কালো, অফহোয়াইট ও লালকে।

মেঘে একুশের পোশাক

ফ্যাশন হাউস মেঘ এনেছে বড়দের ও ছোটদের জন্য একুশের পোশাক। এসব পোশাকের মধ্যে আছে শার্ট, ফতুয়া, পাঞ্জাবি, সালোয়ার-কামিজ, টপস ও টি-শার্ট। আরামদায়ক কাপড়ে সাদা-কালো রঙে বর্ণমালার প্রাধান্য দিয়ে এসব পোশাকের নকশায় ফুটিয়ে তোলা হয়েছে একুশের ভিন্ন আমেজ। মেঘের বিক্রয়কেন্দ্র আছেÑ শাহবাগের আজিজ সুপার মার্কেট, ধানম-ির সীমান্ত স্কয়ার, মেট্রো শপিংমল ও মিরপুর অরজিনাল দশ নম্বরে (মিরপুর সাড়ে ১০)।

অমর একুশেতে নিত্য উপহার

অমর একুশে এবং আন্তর্জাতিক মাতৃভাষা দিবসকে সামনে রেখে নিত্য উপহারের আয়োজনে সাম্প্রতিক সময়ের বহমান একুশের চেতনাকে উপস্থাপন করবে।

এবার মাতৃভাষা দিবসে ছোট ও বড়দের ৫টি নতুন ডিজাইনে টি-শার্ট ও অমর একুশের শাড়ি পাওয়া যাবে। শাড়ি ১৭০০-২৩০০, টি-শার্ট বড়দের ২৯০ ও ছোটদের ২০০ টাকা। পাওয়া যাবে আজিজ সুপার মার্কেট, শাহবাগ ও ওয়াই-২, নূরজাহান রোড, মোহাম্মদপুরে।

‘আ-মরি বাংলা ভাষা’

একুশে কে-ক্র্যাফটের আয়োজন। একুশ আমাদের গর্ব, একুশ আমাদের অহঙ্কার। পোশাকের অবয়ব অলঙ্করণে নানাভাবে বর্ণমালাকে মোটিফ হিসেবে ব্যবহার করা হয়েছে। বর্ণ ও শব্দমালার বিন্যাসে আমাদের ভাষা আন্দোলন, মুক্তিযুদ্ধ এবং অন্যান্য গর্বের বিষয় ফুটিয়ে তোলা হয়েছে। রঙের ক্ষেত্রে প্রাধান্য দেওয়া হয়েছে ‘শোক’-এর কালো, সূর্যের লাল, বিষণœতার ধূসর, সত্য ও পবিত্রতার প্রতীক সাদার সমতলে। একুশের এই সংগ্রহে থাকছে নতুন নতুন ডিজাইনের শাড়ি, সালোয়ার-কামিজ, কটি, টপ্স, স্কার্ট, শার্ট, পাঞ্জাবি, টি-শার্ট, ছোটদের পোশাকসহ নানা উপহার সামগ্রী। পোশাকের ডিজাইনে, কাটে, প্যাটার্নে, ফিনিশিংয়ে কম্পোজিশন, কালারে থাকছে একুশের মর্যাদা ও শ্রদ্ধা। আর এ পণ্যসম্ভারের যৌক্তিক মূল্যসীমা ক্রেতাদের দেবে বাড়তি স্বাচ্ছন্দ্য। এ ছাড়া রয়েছে যুগল ফ্যামিলি পোশাকের বিশাল সমাহার। আর এই বিশেষ পোশাকগুলো পাওয়া যাচ্ছে কে-ক্র্যাফটের প্রতিটি আউটলেটে।

 

 

সিআ জুয়েলারির জাদুকরী সূচনা

শুদ্ধ সুন্দর মঞ্চে স্নিগ্ধ সুরের তালে তালে আলো ঝলমলে গহনায় নিজেকে সাজিয়ে হেঁটে গেলেন একঝাঁক তরুণী। সেই সঙ্গে বাংলাদেশের ঢাকায় শুভসূচনা হলো বিশ্বখ্যাত জুয়েলারি ব্র্যান্ড ‘সিআ জুয়েলারি’র। সম্প্রতি রাজধানী ঢাকার উত্তরা ১নং সেক্টরের ‘মোঘল অ্যারোমা’ রেস্টুরেন্টে বিখ্যাত ফ্যাশন কোরিওগ্রাফার কাজী কামরুল ইসলামের নির্দেশনায় দেশের সেরা মডেলদের নান্দনিক ও অভিনব উপস্থাপনা দিয়ে যাত্রা শুরুর জানান দিল বিশ্বখ্যাত এই জুয়েলারি ব্র্যান্ডটি। দেশের সেরা মডেলদের ক্যাটওয়াকের মাধ্যমে তুলে ধরা হয় সিআ জুয়েলারির সৌন্দর্য বন্দনা। ক্যাটওয়াক শেষে উপস্থিত অতিথি, সাংবাদিক ও অভ্যাগতদের কাছে সিআ জুয়েলারি সম্পর্কে ধারণা দেন অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি এবং দেশের নন্দিত ও জনপ্রিয় অভিনেতা, নির্মাতা আফজাল হোসেন। অনুষ্ঠানে সিআ জুয়েলারির পক্ষ থেকে নাহিন কাজীসহ দেশের বিভিন্ন অঙ্গনের খ্যাতিমান ব্যক্তি, টিভি ও চলচ্চিত্রের তারকারা উপস্থিত ছিলেন। এই অনুষ্ঠানের মাধ্যমে ভারতের মুম্বাইভিত্তিক বিশ্বখ্যাত জুয়েলারি ব্র্যান্ড সিআ জুয়েলারির নামফলক স্থাপন হয়ে গেল মুম্বাই, লন্ডন, দুবাই, জেদ্দার পর বাংলাদেশের ঢাকায়। অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের মধ্য থেকে কয়েকজন শুভেচ্ছা জ্ঞাপন করেন।

 

ওয়ারীতে গ্রামীণ ইউনিক্লো

গ্রামীণ ইউনিক্লোর ওয়ারী আউটলেটের উদ্বোধন করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জনপ্রিয় অভিনেতা ও গায়ক তাহসান খান। এ ছাড়া উপস্থিত ছিলেন গ্রামীণ ইউনিক্লোর ব্যবস্থাপনা পরিচালক নাজমুল হক ও কোম্পানির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা। তাহসান খান বলেন, গ্রামীণ ইউনিক্লো সামাজিক ব্যবসার মাধ্যমে জাপানের পোশাক প্রস্তুতকরণ পদ্ধতি ও উন্নত মানের সঙ্গে বাংলাদেশের মানুষকে পরিচয় করিয়ে দিচ্ছে। নতুন আউটলেট উদ্বোধনের মাধ্যমে গ্রামীণ ইউনিক্লোর সামাজিক ব্যবসায় উদ্যোগ আরও বেশি প্রসারিত হোক এই প্রত্যাশা সব সময়। জাপানের শীর্ষ ব্র্যান্ড ইউনিক্লো বাংলাদেশে ইউনিক্লো সোস্যাল বিজনেস বাংলাদেশ লি. নামে ২০১০ সাল থেকে যাত্রা শুরু করে প্রতিনিয়ত নতুন নতুন স্টোর উদ্বোধন করার মাধ্যমে ব্যবসায় সম্প্রসারণ করে যাচ্ছে।

 

 

"

  • সর্বশেষ
  • সর্বাধিক পঠিত
  • নির্বাচিত

সর্বাধিক পঠিত

  • অাজ
  • সপ্তাহে
  • মাসে