শুরুটা অনাথ আশ্রম থেকে শেষ শীর্ষ ধনীতে এসে

প্রকাশ | ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ০০:০০ | আপডেট: ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭, ১২:৫০

জামিউর রহমান জিসান

লিওনার্দো দেল ভেচিও জন্মগ্রহণ করেছেন ১৯৩৫ সালের ২২ মে। লিওনার্দো দেল ভেচিও একজন স্ব-প্রতিষ্ঠিত ব্যবসায়ী এবং লাক্সটিকা গ্রুপের চেয়ারম্যান। ফোর্বসের মতে তিনি ইটালির দ্বিতীয় সেরা ধনীদের একজন। তার ধনী হওয়ার গল্প মোটেও কোনো সুখকর গল্প ছিল না। তারা ছিলেন পাঁচ ভাই, তার বিধবা মা পাঁচ ভাইদের মধ্যে একজনকে অনাথ আশ্রমে পাঠিয়ে দেন, তিনিই আজকের লিওনার্দো দেল ভেচিও। ভরণ পোষণের খরচ বহন করতে না পেরে তাকে সেখানে পাঠাতে বাধ্য হন তার মা। বাবাকেও হারিয়েছিলেন তিনি জন্মের পাঁচ মাস আগেই। পরে একটি মোল্ডিং কারখানায় কাজ করার সময় তিনি তার আঙ্গুল হারান। তিনি তার ক্যারিয়ার শুরু করেন মিলানের একটি ছোট কারখানায়। ছোট কারখানায় কাজ করলেও তিনি দৃঢ় প্রতিজ্ঞ ছিলেন তার ভাগ্য ফেরানোর ব্যাপারে। করেছেনও তিনি। তিনি তার ভাগ্য ফিরিয়েছেন। ১৯৬১ সালে তিনি আগোর্ডোতে চলে যান। আগোর্ডো হচ্ছে চশমা তৈরির জন্য ইতালিতে বিখ্যাত এলাকা। ১৯৬৭ সাল থেকে তিনি লাক্সটিকার আন্ডারে চশমার ফ্রেম বিক্রি শুরু করেন। এখান থেকেই শুরু। ১৯৭১ সাল থেকে তিনি চুক্তিতে ব্যবসা শুরু করেন। রেবেনের মতো কোম্পানির সঙ্গেও তিনি নানা চুক্তি সম্পাদন করেছেন এবং তার ব্যবসাকে প্রতিষ্ঠিত করেছেন। মাত্র ২৩ বছর বয়সে নিজের মোল্ডিং শপ খোলেন তিনি। তার বর্তমান সম্পদের পরিমাণ ১৮.৭ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। বিশ্বব্যাপী তিনি সানগ্লাসহাট, ল্যান্সক্র্যাফটারস, রেবেন, ওয়াকলের জন্য সমাদৃত।